একেই বলে 56 ইঞ্চির পাওয়ার,কাশ্মীর যেতে চলেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। এই বড় ঘোষণা গুলি করতে, শুনেই ভয়ে কাঁপছে কট্টরপন্থীরা।

বিধানসভা নির্বাচনে কংগ্রেসের কাছে বিজেপি হেরে যাওয়ার পর বিজেপির সকল নেতৃবৃন্দ এবং মোদি জিও এবার আগের তুলনায় অনেকবেশি সতর্ক এবং যে ভুলটি করার জন্য তাদেরকে হারের সম্মুখীন হতে হয়েছিল সে ভুল তারা পুনরায় করতে চান না । সেইজন্য ২০১৯ এর লোকসভার ভোটে জয় লাভের জন্য নরেন্দ্র মোদী যথাসম্ভব চেষ্টা করে যাচ্ছেন। আর সে কারণেই নরেন্দ্র মোদী জম্মু কাশ্মীরের উদ্দেশে যাত্রা করবেন,মোদিজির এই যাত্রার জন্য তার সুরক্ষা অত্যন্ত কড়া করা হয়েছে, যাতে মোদিজির কোনোভাবে ক্ষতি না হয়। আর আপনাদের জানাবো যে, সেখানে তার সুরক্ষা বাহিনী কি কি পদক্ষেপ নিয়েছিল এবং তাকে কেমন ভাবে সুরক্ষিত করা হবে।

সূত্র অনুসারে মোদিজি ৩ ই ফেব্রুয়ারি জম্মু কাশ্মীরের উদ্দেশে রওনা দিবেন ,মোদিজির সুরক্ষার জন্য সেখানকার সরকার ১৫০০০ সৈন্য নিযুক্ত করেছেন। মনে করা হচ্ছে যে, ২০১৯ এর আগে মোদিজির এই যাত্রাকে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত বলে মনে করা হচ্ছে কারণ , প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী যদি ২০১৯ এও দেশে বিজেপির সরকার প্রতিষ্ঠিত করতে চায় তাহলে জম্মু কাশ্মীরের অধিক সিটে তাকে জিততে হবে। এছাড়াও মোদি সরকারের এই যাত্রাটি কে আরো এজন্যও গুরুত্বপূর্ণ বলা হচ্ছে কারণ,এই এতে মোদিজি বেশকিছু পরিযোজোনার শিলান্যাস ও করবেন। এইসকল পরিযোজোনা গুলিতে জম্মু কাশ্মীরে এমস খোলা, অখ্ণুর ফোর লেন পরিযোজোনা ,লাদাখ বিশ্ব বিদ্যালয় ,সুন্দরবন ডিগ্রি কলেজ, অখ্ণুরে ইন্দ্রপত্তন পুল, অধম্পূরে দেবিকা নদী নির্মাণের কাজ,শাহপুর কন্ডী।


এছাড়াও অন্যান্য পরিযোজনা সাথে সাথে পণ বিদ্যুৎ এবং শুদ্ধ মহাদেবের অকল্পনীয় রাজ মার্গ এছাড়াও অন্যান্য পরিযোজনা শিলান্যাস ও করবেন। এইসকল পরিযোজনার পরেও জম্মু কাশ্মীরে একটি রেলির আয়োজন করা হবে ,যেখানে মোদিজি ২০১৯ এর লোকসভার ভোটের জন্য বিজেপির প্রচার করবেন। এও শোনা যাচ্ছে যে, পিএম মোদির কাশ্মীর যাত্রার জন্য কট্টরপন্থীদের মধ্যে একপ্রকারের ভয়ের সৃষ্টি হয়েছে।