প্রশান্ত কিশোরের এই তিনটি মাস্টারস্ট্রোক বদলে দিতে পারে বাংলায় বিধানসভা নির্বাচনের ছবি

তৃনমূল কংগ্রেসের ভোট স্ট্র্যাটেজি তৈরি করার গুরু দায়িত্ব ২০১৯ সাল থেকেই নিয়েছেন  ‘পলিটিক্যাল স্ট্র্যাটেজিস্ট’ প্রশান্ত কিশোর (Prasanta Kishore) ওরফে পিকে৷  এবার পিকের লক্ষ্য মমতা ব্যানার্জিকে (Mamata Banerjee) ২০২১ এর বিধানসভা নির্বাচনে (West Bengal Assembly Election 2021) আবারও জয়ী করে বাংলার মসনদে বসানো। মূলত বিরোধী দল এবং তৃণমূল কংগ্রেস এই দুই দিকের দোষ, গুণ, ক্ষমতা, দুর্বলতা সবকিছুর বিচার করে ভোটে জেতার  স্ট্র্যাটেজি তৈরি করছেন তিনি। শাসক-বিরোধী— উভয় পক্ষের শক্তি-দুর্বলতা বুঝে সেই অনুযায়ী ঘুঁটি সাজানোই পিকের কাজ।

 

বিভিন্ন রাজনৈতিক সমীকরণ নিয়ে বিচার-বিশ্লেষণ করেন তিনি৷ নানা সম্ভাবনা খতিয়ে দেখে,  তৃণমূলকে  জয়ের দরজায় পৌঁছে দিতে বদ্ধপরিকর পিকে। বর্তমানে তৃণমূলের নেতা-কর্মীদের  লক্ষ্য একটাই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাংলা জয় এর হ্যাটট্রিক। নির্বাচনের আগেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দুয়ারে সরকার (Duare Sarkar) এবং পাড়ায় পাড়ায় সমাধান (Paray Paray Samadhan) কর্মসূচি প্রশংসিত হয়েছে আন্তর্জাতিক স্তরে। রাজ্যের মানুষের ওপর এর প্রভাব পড়েছে।  এই প্রকল্প নিয়ে বিরোধীরা সরব হলেও সমীক্ষা বলছে এই দুই প্রকল্পই হয়ে উঠতে পারে এবারের নির্বাচনের গেম চেঞ্জার।

রাজ্যের মানুষের সাথে জনসংযোগ বাড়াতে চাইছে তৃণমূল কংগ্রেস। তাই এসেছে Didir Doot অ্যাপ। এই অ্যাপের মাধ্যমে ভিডিও কনফারেন্সে সরাসরি যোগাযোগ করা  যাবে  মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে। রাজ্যের মানুষ তাদের অভাব এবং অভিযোগের কথা জানাতে পারবেন মুখ্যমন্ত্রী কে। তরুণ প্রজন্মকে আকৃষ্ট করছে এই কৌশল। যদিও এটা পিকের বুদ্ধি কি না তা  জানা যায়নি।

 

Jio-র দুর্দান্ত অফারে বাজিমাত!একদম বিনামূল্যে মিলছে 2 বছর আনলিমিটেড ডেটা-ভয়েস কলের সুবিধা

তবে পিকে রাজনৈতিক কৌশলী হিসেবে তৃণমূল কংগ্রেসে যোগদানের পর দলের অনেক নেতা-কর্মীরাই অসন্তুষ্ট।  ইতিমধ্যেই পিকে ইঙ্গিত দিয়েছে দলে আরও ভাঙ্গন ধরবে। কিন্তু তারপরেও বিজেপির যে বিশেষ কোনো লাভ হবে না তা নিয়ে নিশ্চিত প্রশান্ত কিশোর।  বিজেপির আসন সংখ্যা নিয়ে ভবিষ্যদ্বাণী করেছেন তিনি। তিনি স্পষ্ট করেছেন দুই অঙ্কের সংখ্যা পেরোবে না বিজেপি,তাই জয় নিশ্চিত ঘাসফুল শিবিরের।