নতুন সংসদ ও মধ্যপ্রদেশ এর বিজয় মন্দিরের মধ্যে রয়েছে অদ্ভুত মিল, যেখানে ঔরঙ্গজেব চালিয়েছিলেন গোলাবারুদ

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি 10 ডিসেম্বর নতুন সংসদ ভবনের ভূমি পূজা করেছিলেন। এই নতুন সংসদ ভবনের নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় একটা ছবি ভাইরাল হয়েছে। যেখানে বলা হচ্ছে ভারতের নতুন সংসদ ভবন মধ্যপ্রদেশের বিদিশা তে অবস্থিত বিজয় মন্দিরের আদলে বানানো হচ্ছে। বিজয় মন্দির এবং নতুন সংসদ ভবনের তুলনা করে একটি ফটো সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে। কেউ বলছেন নতুন সংসদ ভবন আমেরিকার পেন্টাগনের মতন হচ্ছে। তো আবার কেউ বলছেন বিদিশার বিজয় মন্দিরের মনে হচ্ছে নতুন সংসদ ভবন। এটা ঠিক যে ভাল করে দেখলে সংসদ ভবন অবশ্যই বিজয় মন্দিরের মতন দেখতে লাগছে।আকৃতি ত্রিভুজাকার উপর থেকে দেখলে ভারতের বিজয় মন্দির এবং নতুন সংসদ ভবনে কিরকম দেখতে লাগছে বিজয় মন্দির নির্মাণ করেছিলেন চালুক্য বংশের রাজা কৃষ্ণ প্রধানমন্ত্রী বাচস্পতি।

 

এরপর মোঘল বাদশা ঔরঙ্গজেব এই মন্দিরের উপর হামলা করে এই মন্দির ভেঙে দিয়েছিলেন বিজয় মন্দিরের বিশেষত তার বিশালতা এবং প্রসিদ্ধ আক্রমণকারীরা বারবার এই মন্দিরের নানা রকম ক্ষতি সাধন করেছেন কিন্তু তারপরেও বারবার এই পুনর্নির্মাণ করা হয়েছে পুরাতত্ত্ব বিভাগ বিজয় মন্দিরে খননকার্য চালিয়েছেন।এর পরে মুঘল সম্রাট ঔরঙ্গজেব এই মন্দিরে আক্রমণ করে এটি ভেঙে দিয়েছিলেন। বিজয় মন্দিরের বিশেষত্ব ছিল এর বিশালতা এবং খ্যাতি, তাই এই কারণে এই মন্দিরটি মুসলিম সম্রাটদের নজরে ছিল।

 

ফলস্বরূপ, ঔরঙ্গজেব একটি কামান দিয়ে মন্দিরটি উড়িয়ে দিয়েছিলেন। আক্রমণকারীরা এই মন্দিরটি বেশ কয়েকবার লুঠপাঠ করলেও ভেঙে দিলেও প্রতিবারই এটি পূণ্যার্থীরা পুনর্নির্মাণ করেছিলেন। প্রত্নতাত্ত্বিক বিভাগ বিজয় মন্দিরের কাছে খননকার্য করে কীর্তিমুখ পেয়েছেন ।

 

 

হাতে সময় থাকতে করে ফেলুন এই কাজ, না হলে বাতিল হয়ে যেতে পারে আপনার রেশন কার্ড

 

নতুন সংসদ ভবনটি পুরানো সংসদ ভবনের চেয়ে ১৭,০০০ বর্গমিটার বড় হবে। এটির নির্মাণ করছে টাটা প্রজেক্টস লিমিটেড। লোকসভার সদস্যদের জন্য প্রায় ৮৮৮ টি আসন থাকবে, আর রাজ্যসভার সদস্যদের জন্য ৩২ টিরও বেশি আসন থাকবে। লোকসভা এবং রাজ্যসভা চেম্বারগুলি ছাড়াও এই ভবনে একটি দুর্দান্ত সংবিধান ঘর থাকবে। যার মধ্যে ভারতের গণতান্ত্রিক ঐতিহ্য দেখানোর জন্য সংবিধানের মূল অনুলিপি, ডিজিটাল প্রদর্শনশালা ইত্যাদি থাকবে । সংসদীয় গণতন্ত্র হিসাবে দর্শনার্থীদের তাদের ভারত সফর সম্পর্কে জানতে দেওয়ার জন্য নির্বাচনকেন্দ্রে কক্ষের প্রবেশের সুবিধা থাকবে।