বড় খবর:- তৃণমূল দলে আরও এক বড়ো ঝটকা!এবার মুকুলের হাত ধরে বিজেপিতে যোগদান করলেন এই IPS অফিসার।

যেখানে দুর্নীতিগ্রস্ত পুলিশ অফিসার কে বাঁচানোর জন্য ধরনায় বসেছেন মাননীয় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সেখানেই রাজ্যের উচ্চপদস্থ আধিকারিক আইপিএস ভারতী ঘোষ যোগ দিলেন বিজেপিতে। বিগত এক সময়ে ভারতী ঘোষ মমতা দিদির খুব প্রিয় আধিকারিক ছিলেন কিন্তু বর্তমানে মুকুল রায়ের হাত ধরেই তিনি ও বিজেপিতে যোগদান করলেন। আপনাদের জানিয়ে দিই, ভারতী ঘোষ হলেন সেই আইপিএস অফিসার যার দ্বারা মেদিনীপুর মাওবাদী মুক্ত হয়েছিল। শুধু তাই নয় , মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় অনেকবারই আইপিএস ভারতী ঘোষকে দলীয় কাজে লিপ্ত বদ্ধ করেছেন। আর এই ভারতী ঘোষ এর জন্য একমাত্র শুভেন্দু অধিকারী মেদিনীপুর জেলায় বিনা সংকোচে বুক ফুলিয়ে ঘুরতে পারেন।

আর আজকের দিনটিতেই আইপিএস ভারতী ঘোষ মুকুল রায়ের হাত ধরেই যোগদান করলেন ভারতীয় জনতা পার্টিতে। ভারতীয় জনতা পার্টি এমনটাই আশা করছেন এই আইপিএস ভারতী ঘোষের হাত ধরে জঙ্গলমহল ও মেদনীপুর এলাকায় বিজেপির ভোটের বাক্সে উত্থান দেখা দেবে। যদিও এই যোগদানের কারণ এই তৃণমূল কংগ্রেস কিছুটা হলেও ব্যাকফুটে চলে গেছে। আপনারা জানলে অবাক হবেন, তিনি বিজেপিতে যোগদান করে থেমে থাকেননি। তার সাথে তৃণমূল কংগ্রেস ও নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে তমুল হুঁশিয়ারি দিয়েছেন। তিনি এবারে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ালেন । অনেকবার মমতা বন্দোপাধ্যায়ের অনুগত না হয়ে থাকার কারণে তাকে অপমান সহ্য করতে হয়েছে , এছাড়াও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রশাসন তাকে অনেকবার ভুগিয়েছে ।

তিনি জানিয়েছেন, দিদির সরকার ওনার ক্যারিয়ারে দাগ কাটার চেষ্টা করেছে , ওনার ফোন ট্যাপ এবং উনার বাড়িতে পুলিশ দিয়ে হানা পর্যন্ত করিয়েছে রাজ্য সরকার, এমনটাই তিনি অভিযোগ জানিয়েছেন। যদিও অনেকদিন থেকেই চর্চায় আসছিল যে তিনি বিজেপিতে যোগ দেবেন আর এবার সত্যি সত্যি সেটাই হলো।বিগত কয়েকদিন থেকে মুকুল রায় সাংবাদিক বৈঠকে জানিয়েছিলেন তৃণমূলের সরকারের কয়েকজন বিধায়ক ও সাংসদ বিজেপিতে যোগ দেওয়ার জন্য প্রস্তুত ।

যদিও সে সব দল নেতারা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও রাজ্য পুলিশের ভয়ে দল পরিবর্তন করতে পারছে না , তবে লোকসভা ভোটের আগে কোন এক বড় পরিবর্তন হতে চলেছে বলে মুকুল রায় জানিয়েছেন। আর শেষমেশ আইপিএস ভারতী ঘোষের যোগদানে কিছুটা হল শক্তিশালী হয়ে উঠেছে বিজেপি শিবির ।