IPL এ করোনা ভাইরাসের থাবা! উঠছে বাতিলের দাবি, আগামী শনিবার দিন বিসিসিআই নিতে চলেছে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত

এবারের 13 তম আইপিএল খেলাটি শুরু হতো মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স বনাম চেন্নাই সুপার কিংসের ম্যাচ দিয়ে। তবে এবার দেশজুড়ে যেভাবে করোনা ভাইরাসের প্রকোপ পড়েছে তার জেরে এবার আইপিএল বাতিলের সিদ্ধান্ত উঠছে একাধিক মহলে। আর এই করোনা ভাইরাস আতঙ্কের জেরে ইতিমধ্যে মহারাষ্ট্র সরকার আইপিএলের টিকিট বিক্রি বন্ধ করে দিয়েছে। তাদের দাবি বন্ধ রাখা হোক এবারের IPL 2020, আর তাদের এই সুরে সুর ছড়িয়েছে বিদেশমন্ত্রক ও।

তবে এই বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়ার বিষয়টাকে তারা IPL-এর আয়োজকদের ওপর ছেড়ে দিয়েছেন। আর অন্যদিকে আইপিএলের ফ্র্যাঞ্চাইজির দাবি এ বছরের আইপিএল ফাঁকা গ্যালারিতে অনুষ্ঠিত হলেও আইপিএল খেলা হবে আর গত বুধবার দিন নিজেদের এ দাবি জানান তারা। তবে এই বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে শনিবার দিন মুম্বাইয়ে বিসিসিআইয়ের হেডকোয়ার্টারে। যার দরুন শনিবার দিন মুম্বাইয়ের বিসিসিআই হেডকোয়াটারে আয়োজন করা হয়েছে আইপিএল গভর্নিং বডির মিটিং। আর সেদিনেই  নির্ধারণ করা হবে এ বছরের আইপিএলের ভবিষ্যৎ। তবে এ বছর বিশ্ব জুড়ে যেভাবে করোনা ভাইরাসের প্রকোপ পড়ছে তার জেরে এটা এক প্রকার নিশ্চিত হয়ে গেছে যে যদি নির্দিষ্ট সময়ে আইপিএল শুরু করতে হয় তাহলে তা ফাঁকা গ্যালারি দিয়েই শুরু করতে হবে। কারণ কেন্দ্রীয় ক্রীড়ামন্ত্রকের তরফের নির্দেশিকা অনুযায়ী দেশের বিভিন্ন ইভেন্টে দর্শক সমাগম হয়েছে নিষেধাজ্ঞা। আর তার জন্যই চিঠি পৌঁছে গিয়েছে বিসিসিআই, ইন্ডিয়ান অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশন, এআইএফএফ এর সহ দেশের বিভিন্ন স্পোর্টস গভর্নিং -দের কাছে।

তাই এরকম একটা মন্তব্যের নির্দেশ পেয়ে বিভিন্ন স্পোর্টস ইভেন্টের ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলো জানাচ্ছে দর্শকশূন্য গ্যালারিতে আয়োজন করা ছাড়া দ্বিতীয় কোনো রাস্তা নেই খেলা শুরু করার তাই ফাঁকা গ্যালারিতে অনুষ্ঠিত করা হোক IPL এর ও ম্যাচ। সকলেই মনে করছেন আইপিএল না হওয়ার চেয়ে ফাঁকা গ্যালারিতে ম্যাচ অনুষ্ঠিত হওয়া অনেক ভালো। তবে এবিষয়ে আইপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের বৈঠকের পর পুরো বিষয়টি স্পষ্ট হয়ে যাবে।

Advertisements

এখনো পর্যন্ত এই ইস্যুতে বিসিসিআই সেভাবে কিছু না বললেও আইপিএল চেয়ারম্যান ব্রিজেশ প্যাটেল আশাবাদী শনিবারের বৈঠকটিকে নিয়ে, তার কথায় জানতে পারা যায় আমরা সমস্ত সম্ভাবনা দিকটি খোলা রাখবো যাতে এই বছরের আইপিএল ভালোভাবে অনুষ্ঠিত হয় ও এই বৈঠকের মাধ্যমে যে ভালো সিদ্ধান্ত বেরিয়ে আসবে বলে তিনি আশ্বাস ও দেন। তবে এখন প্রশ্নের বিষয় হচ্ছে যদি ফাঁকা গ্যালারিতে ম্যাচ অনুষ্ঠিত করা হয় তাহলে আইপিএলের যে উন্মাদনা বজায় থাকে সেটি কী থাকবে আদৌ? দ্বিতীয়তঃ আইপিএলের টিকিট বিক্রি করে যে রিভিনিউ হয় ফ্রাঞ্চাইজিদের তার ক্ষতিপূরণ কী বোর্ড দেবে তাদের? তাছাড়া দর্শক থাসা গ্যালারি যেভাবে ক্রিকেটারদের মোটিভেট করে সেরকম সুবিধা পায় স্পন্সাররা আর তার  ভিত্তিতে স্পন্সারাও বিভিন্ন অনুষ্ঠানের আয়োজন করে থাকে তবে এবার যদি দর্শকদের জন্য সে দরজা বন্ধ থাকে তাহলে সেই রকম কোনটিই সম্ভব হবে না। তাই একথা বলা বাঞ্ছনীয় যে ফাঁকা স্টেডিয়ামে খেলা হলেই স্পন্সারদের যে খেলা আয়োজন করার আগ্রহ থাকে তা অনেকখানি কমে যাবে। তবে দেখা যাক আগামী দিন কী সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় বিসিসিআই এর তরফ থেকে সে বিষয়ে নজরদারি থাকবে সকল ক্রিকেট প্রেমীদের।

Advertisements