নতুন খবরবিশেষরাজনৈতিকলাইফ স্টাইল

রাহুল গান্ধীকে ঋণ দিতে রাজি নয় কোনও ব্যাঙ্ক, নিজের নাম নিয়ে নাজেহাল ইন্দোরের এই বাসিন্দা..

ভারতীয় রাজনীতিতে রাহুল গান্ধী নামটি অত্যন্ত পরিচিত একটি নাম। ভারতবর্ষে এরকম কোন ব্যক্তি নেই বললেই চলে যে রাহুল গান্ধীর নামটি হয়তো জীবনে একবারও শোনেনি। তবে ভারতবর্ষে আরো একজন রাহুল গান্ধী নামে ব্যক্তি রয়েছেন তা হয়তো আমরা অনেকেই জানতাম না। অবশ্য তার কাছে এখন তার নিজের নামটাই সমস্যার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। তাই তিনি তার নিজের পদবী বদল করতে চলেছেন।আপনাদের বলে রাখি এই রাহুল গান্ধী মধ্যপ্রদেশের ইন্দোর জেলার আখহান্দ নগরে থাকেন।

তার এই গান্ধী পদবীর জন্য তিনি এখন বেজায় সমস্যা ভোগ করছেন। তার এই গান্ধী পদবীর জন্য ব্যাঙ্ক থেকে ঋণ পাচ্ছেন না তিনি। এক ব্যাঙ্ক থেকে অন্য ব্যাঙ্ক ঘুরে বেড়াচ্ছেন ঋণ নেওয়ার জন্য তবে সুফল মিলছে না এতে সকল ব্যাংকই তার নাম শুনে লোন দিতে অস্বীকার করছেন। এমনকি সিম দিতেও অস্বীকার করছে মোবাইল অপারেটররা তাকে। তাই বাধ্য হয়ে ভাইয়ের নামে সিম কিনে তা ব্যবহার করছেন তিনি। এমনকি কোনো দোকান থেকে  দ্রব্য কিনলে তাঁকে ওই নামে বিল দিতেও অস্বীকার করছেন মালিকেরা।

যার জন্য তিনি এখন তার নিজের বন্ধুদের কাছে হাসিঠাট্টার পাএ হয়ে উঠেছেন। এমনকি অনেকে তাকে কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী সঙ্গে তুলনা করছেন। এই বিষয়ে ইন্দোর এর বাসিন্দা রাহুল গান্ধী নিজেই বলেছেন ব্যবসার জন্য ব্যাংক এ লোন নিতে গিয়েছিলাম তারপরে আমার নাম শুনে ব্যাঙ্কের কর্মী হেসে উঠলেন। এবং হাসি ঠাট্টা করে আমাকে বলতে লাগলেন রাহুল গান্ধী দিল্লি থেকে কবে ইন্দরে চলে এলেন। তাই তিনি এখন ঠিক করেছেন এইভাবে হাসিঠাট্টার পাত্রের হাত থেকে বাঁচার জন্য বাধ্য হয়ে তিনি তার নিজের নামের পদবী পরিবর্তন করে ফেলবেন। কাপড়ের ব্যবসায়ী রাহুল গান্ধীর আরও বিড়ম্বনা রয়েছে। লেকজন এখন পাপ্পু বলে তাঁকে উত্তক্ত করেন। যখনই অপরিচিত কারও কাছে নিজের নাম বলেন তখন অনেকে তাঁকে মুখে ওপরে বলেন, মিথ্যেবাদী। এতকিছুর পর আর সহ্য হচ্ছে না।

তিনি ঠিক করেছেন ফের বাবার পুরনো মালভিয়া পদবী রাখবেন এবার নিজের। আর তা হয়ে গেলে তিনি তার বন্ধুদের কাছে হাসির খোরাকের হাত থেকে বেঁচে যাবেন। এমন কি বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সরকারি কাজে বাধা আসবে না তার। আর এটা সম্ভব হয়ে গেলে তিনি ড্রাইভিং লাইসেন্স পেয়ে যাবেন এবং ব্যবসার ক্ষেত্র পেয়ে যাবেন লোনের ব্যবস্থাও।

Related Articles

Back to top button