শীঘ্রই বদলাতে চলেছে বাংলার আবহাওয়া জাঁকিয়ে পড়তে চলেছে কনকনে ঠান্ডা, আবহাওয়া খবর

কিছু মাস আগে থেকেই আমাদের পশ্চিমবঙ্গ তথা ভারত বর্ষ থেকে বিদায় নিয়েছে বর্ষাকাল। কিন্তু এখনো সেই ভাবে জাঁকিয়ে বসেনি শীত।কিন্তু শীত ভালোভাবে না নিলেও বৃষ্টি কিন্তু এখনো আমাদের ছেড়ে যেতে চাইছে না। তাই বার বার ফিরে আসতে চাইছে সে।এদিকে বারবার নিম্নচাপ হওয়ার দরুন সেইভাবে উত্তরে হাওয়া ঢুকতে পারছে না ভারতবর্ষে, ব্যাহত হচ্ছে বাঙালির ঠান্ডার আমেজ যাওয়ার সময়। নভেম্বর মাস প্রায় শেষের দিকে, তাও সেইভাবে ঠান্ডা না আসায় বিরক্ত দেশবাসী।

আবহাওয়া দপ্তরের পূর্বাভাস অনুযায়ী, রবিবার থেকে হালকা মেঘলা করতে থাকবে আকাশ। পূর্ব মেদিনীপুর এবং দক্ষিণ ২৪ পরগনা, কলকাতা হাওড়া এবং ঝাড়গ্রামের বিস্তীর্ণ এলাকায় থাকবে বৃষ্টির সম্ভাবনা। দক্ষিণবঙ্গের পাশাপাশি উত্তরবঙ্গের দার্জিলিং এবং কালিম্পংয়ে থাকবে হালকা বৃষ্টির সম্ভাবনা।

আজ কলকাতার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা থাকবে ৩১ ডিগ্রি সেলসিয়াসের কাছাকাছি এবং সর্বনিম্ন তাপমাত্রা থাকবে ২২ ডিগ্রি সেলসিয়াসের কাছাকাছি। সকালের দিকে এবং রাতের দিকে হালকা মেঘ হবার সম্ভাবনা রয়েছে। আরব সাগরের উৎপন্ন হওয়া নিম্নচাপ কেটে গেলেও সম্পূর্ণ ভারতবর্ষে চলে আসবে শীত, এমনটাই আশা করছেন আবহাওয়া দপ্তরের কর্মকর্তারা।

আগামীকাল কলকাতার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা থাকবে ৩২ ডিগ্রি সেলসিয়াসের আশেপাশে এবং সর্বনিম্ন তাপমাত্রা থাকবে ২২ ডিগ্রি সেলসিয়াসের আশেপাশে। রৌদ্রোজ্জ্বল সকাল থাকার সম্ভাবনা রয়েছে।

ইতিমধ্যেই আলমারি থেকে আস্তে আস্তে বেরিয়ে আসছে শীত পোশাক। সকালে সেই ভাবে না লাগলেও যত রাত বাড়ছে, তত সোয়েটার এবং টুপির প্রয়োজনীয়তা বেড়ে গেছে। ইতিমধ্যেই বাঙালিরা তৈরি শীতের আমেজ অনুভব করার জন্য। পিঠে পুলি এবং পিকনিক, এই সব কিছু নিয়েই জমে উঠলো বাঙালির শীতকাল।