দেশনতুন খবরবিশেষলাইফ স্টাইল

ভারতীয় রেলের দুর্দান্ত পদক্ষেপ! করোনা রোগীদের বাঁচাতে কম টাকায় ভেন্টিলেটর তৈরি করল রেল, নাম রাখা হল ‘জীবন’..

করোনা সংক্রমণ ঠেকানোর জন্য সারা দেশজুড়ে চলছে প্রস্তুতি।রেলের তরফ থেকে কয়েকদিন আগেই রেলের কোচগুলিকে আইসোলেশন ওয়ার্ড হিসেবে বানানো হয়েছে। এছাড়াও এদেশে মাস্ক এবং স্যানিটাইজার তৈরির কাজ পুরোদমে চলছে যাতে মাস্ক এবং স্যানিটাইজার কোনরকম ঘাটতি না হয়। দেশে যেভাবে করোনা ছড়িয়ে যাচ্ছে তাতে করোনা রোগীর চিকিৎসার জন্য ভেন্টিলেটর মেশিন খুবই প্রয়োজন বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকেরা। আর এই কথা ভেবেই ভারতীয় রেল তৈরি করে ফেলল ‘জীবন’।

করোনা আক্রান্তদের কথা মাথায় রেখে রেলের বিভিন্ন কারখানাগুলোতে নানান ধরনের জিনিসপত্র তৈরি হচ্ছিল এতদিন ধরে। এবার কপুরথালার রেল কোচ ফ্যাক্টরিতে তৈরি করা হল ভেন্টিলেটর। চিকিৎসকরা জানিয়েছিলেন করোনা আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসার জন্য ভেন্টিলেটর খুবই প্রয়োজন। কিন্তু যতটা পরিমাণে ভেন্টিলেটর দরকার তার থেকে খুবই কম পরিমাণ আছে আমাদের দেশে। তাই ভেন্টিলেটরের চাহিদা যাতে পূরণ করা হয় তার জন্য আরো বেশি করে এই মেশিন বানানোর জন্য সাহায্য চাওয়া হয়।

এরপর কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের গাইডলাইন মেনে এই কাজে হাত লাগাই রেল কর্তৃপক্ষ। এই ভেন্টিলেটার তৈরি করার পর পরীক্ষামুলকভাবে ব্যবহার করা হয়েছে বলে জানা গেছে। এরপর আইসিএমআর -এর অনুমোদন পেয়ে গেলে ভেন্টিলেটার হাসপাতাল গুলি ব্যবহার করতে পারবে। দেশের এমন সংকট জনক পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখেই ভেন্টিলেটরের দাম ঠিক করা হয়েছে 10 হাজার টাকা। চিকিৎসকেরা জানিয়েছেন যে, দেশে করোনা পরিস্থিতি যদি আরও খারাপ হয়ে যায় তাহলে মে মাসের মাঝামাঝি সময় থেকে জুন মাস পর্যন্ত দেশের প্রায় দু’লক্ষ ভেন্টিলেটরের প্রয়োজন হতে পারে।

তাই সামনে বিপুল চাহিদার কারণে সবাইকে এই ধরনের জিনিস তৈরি করতে বলা হচ্ছে। কপুরথালার রেল কোচ ফ্যাক্টরির জেনারেল ম্যানেজার রবীন্দ্র জৈন জানিয়েছেন, “আইসিএমআর এর অনুমোদন মিলে এবং ঠিকঠাক কাঁচামাল সরবরাহ পেলে দিনে 100 টির কাছাকাছি ভেন্টিলেটর বানিয়ে দেবেন তারা।” তিনি আরো বলেন, যেহেতু এই ভেন্টিলেটার মানুষের জীবন বাঁচাতে কাজে লাগবে তাই এর নাম রাখা হয়েছে ‘জীবন’। শুধু তাই নয় আবার অন্যদিকে উত্তর রেলওয়ে বানিয়ে ফেলল করোনা চিকিৎসার জন্য গুরুত্বপূর্ণ বিশেষ পোশাক।

যার নাম রাখা হয়েছে পিপিই।এই পোশাকটি তারাই ব্যবহার করতে পারবেন যারা এই করোনা আক্রান্ত রোগীর চিকিৎসা করার জন্য রয়েছে অর্থাৎ চিকিৎসকেরা ও স্বাস্থ্য কর্মীরা এটি ব্যবহার করবে। এটি এক ধরনের পোশাক এই পোশাকের চাহিদা যোগানের মধ্যে সরঞ্জাম যাতে বজায় থাকে তার জন্য ভারতীয় রেল বিশেষ পোশাক বানানো শুরু করলো। এই পিপিই পড়লে যাতে রক্ত সঞ্চালন স্বাভাবিক থাকে সেই পরীক্ষাও সেরে ফেলা হয়েছে। রেল হাসপাতালে চিকিৎসকদের করোনা চিকিৎসার জন্য এই পোশাক দেওয়া হবে বলে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

Related Articles

Back to top button