ধীরে ধীরে বিয়ে থেকে মন উঠে যাচ্ছে ভারতীয় পুরুষদের, সমীক্ষায় উঠে এলো চাঞ্চল্যকর তথ্য

অদ্ভুত ধরনের এক তথ্য বেরিয়ে এসেছে এক সমীক্ষার সার্ভের সাহায্যে। কিছুজন গবেষকরা জানাচ্ছেন আজকাল কার দিনে প্রায় অনেক ভারতীয় ছেলের নাকি বিয়েতে অনিচ্ছা।তারা লিভ ইন রিলেশন করলেও তারপর কিন্তু বিয়ে করে অটুট সম্পর্ক এর মধ্যে পড়তে চাইছেন না একাংশ জন। শুধু মাত্র এই নয়, বেশির ভাগ ছেলেই কিন্তু এখন কোনো বিয়ের প্রতিশ্রুতি অথবা কমিটমেন্ট করে দিতে চাইছে না। আর দিন দিন ভারতীয় পুরুষদের মধ্যে এই ধরনের এক মানসিকতা ধীরে ধীরে বেড়েই চলেছে।

একটি সমীক্ষা বলছে এখন একদল কিছু ভারতীয় পুরুষেরা মনে করছেন এত তাড়াতাড়ি বয়সের সময় সংসারিক জীবনের মধ্যে না জড়ালেও চলবে। নিজের মনের মতো করে সেভিংস, কাজ, গাড়ি, ঘুরতে যাওয়া, বন্ধুদের সঙ্গে সময় কাটানো , ইত্যাদি এর মতো এসব জিনিস এর দিকেই বেশি আগ্রহী, এবং একটি রেগুলার জীবন থেকে আলাদা করে নিতে চাইছেন জীবনটা। এবং একসঙ্গে থেকে সংসার করার জন্য অনেক সময় পড়ে আছে বাকি জীবনে।

আগেকার দিনে যেমন ছেলের ২৭ বছর পার করলেই অভিভাবকেরা ছেলেদের জোর করে বিয়ে দিতে চাইতেন সেখানে এখন কার দিনে ছেলেদের জন্য পাত্রী খোঁজা শুরু হয় ৩০ বছর এর পরে। আবার অনেক মেয়েই বলেছেন বিভিন্ন ম্যাট্রিমনি সাইট (বিয়ের জন্য অনলাইনে পাত্র/পাত্রী খোঁজার ওয়েবসাইট) যে সকল ছেলেরা সেখানে প্রোফাইল খুলে রেখেছেন তাঁদের মধ্যে সবার আবার বিভিন্ন রকমের দাবি।

Advertisements

বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন আজকের দিনে যে ভাবে খরচের পরিমাণ বেড়েছে সেই জন্যই ছেলেরা বিয়ে করতে চাইছেন না। ২০০৭-সালে যেখানে অবিবাহিত ছেলে ছিল ৪৫ শতাংশ, ২০১৯ সালে সেই সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৫৩ শতাংশ। আর এদের মধ্যে প্রায় সবাই উচ্চ শিক্ষিত। ২০২১ সালে সেই সংখ্যা আরও বেড়ে চলেছে।

Advertisements

একা থাকার জন্য যে পরিমাণ খরচা,একবার বিয়ে করলে যে সেই খরচা দিয়ে সংসার চালানো যাবে না সেটা সকলেই জানেন। তার সঙ্গে ভবিষ্যতের কথা ভেবে কিছু অর্থ সঞ্চয় করাও খুবই দরকারি। এই সময় একটি ছেলের একার রোজগারের ভরসায় যদি সংসার চলতে থাকে তাহলে তখন অনেকটা চাপ পড়ে যায় একার উপরে। কিন্তু যদি স্বামী- স্ত্রী দুজনেই রোজগার করে তাহলে খানিকটা সস্তি। একসাথে সংসারের সব খরচ ভাগ করে নেয় দুজনেই।

এর মধ্যে আবার একটি সমীক্ষাতে দেখা গেছে প্রতি মাসে যে সকল ছেলেরা ৬০ হাজার টাকা অথবা তার অধিক আয় করে, সেরকম ছেলেদের প্রায় ৮০ শতাংশই বিয়ে করে নিয়েছে। সংসার ও সন্তানে ইচ্ছুক নয়।এবার কোনো ভাবে বিয়ে করলেও কিন্তু সন্তান নেওয়ার ভাবনা নিতে ইচ্ছুক নয় অনেক দম্পতি।তারা নিজেদের শখ, আহ্লাদ, ইচ্ছে পূরন এসব কারণেই ছেলেরা এখন ৩০ বছরের আগে আজকাল বিয়ের কথা মাথায় আনছে না।