চীন থেকে টায়ার আমদানির ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করল ভারত সরকার, এবার লাভবান হবেন দেশীয় ব্যবসায়ীরা

বর্তমানে ভারতকে দুটি সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়েছে একটি হল মরণ ভাইরাস COVID-19 আর অন্যটি হল চীনের ধোঁকাবাজির। যেমনটা আমরা জানি এই মুহূর্তে সীমান্ত এলাকায় ভারত এবং চীনের মধ্যে উত্তেজনা ক্রমশ চরম পর্যায়ে পৌঁছেছে। আর এরই মধ্যে দেশবাসী স্লোগান দিতে শুরু করেছে “চীনা পণ্য হাঁটাও, দেশ বাঁচাও”। তাছাড়া এই মুহূর্তে করোনার কারণে গোটা বিশ্ব এখন চীনের দিক থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে, তাই সবমিলিয়ে বলা যেতে পারে এইসব পরিস্থিতি নিয়ে প্রবল সঙ্কটে রয়েছে বর্তমানে জিনপিং এর সরকার।

ইতিমধ্যে ভারতে তরফ থেকেও সাফ জানিয়ে দেওয়া হল তারা এবার থেকে চীন থেকে আমদানি করবে না টায়ার। চীনা টায়ার আমদানির ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা জারি করল ভারত সরকার।আপনাদের সুবিধার্থে বলে রাখি প্রায়, কুড়িটি দেশ থেকে আগত টায়ারের মধ্যে চীন এবং থাইল্যান্ডের নাম রয়েছে যেখানে মোটর সাইকেল, রেসিং গাড়ি, বাস, গাড়ির টায়ারকে রাখা হয়েছে এই নিষেধাজ্ঞার মধ্যে। এক্ষেত্রে শুধুমাত্র বাদ রাখা হয়েছে ট্রাকের টায়ারকে। অন্যদিকে এই বিষয়ে সহমত জানিয়েছেন ব্যবসায়ীরা জানিয়েছেন চীনের কাছে এমন কী জিনিস আছে যা আমাদের কাছে নেই তাই আমরা চাইব ভারতের কাছেও এই ধরনের সুযোগ-সুবিধা থাকুক।

আমাদের এই ক্ষমতা থাকা উচিত। আর বর্তমানে মোদীজি যে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন সেটি আমাদের শিল্পকে চীন থেকে আরও উন্নত ও প্রসারিত করে তুলবে ভবিষ্যতে। যার দরুন লাভবান হবে ভারত।তাছাড়া এই মুহূর্তে যেখানে গোটা দেশজুড়ে মহামারীর মোকাবিলা করতে উঠে পড়ে লেগেছে গোটা বিশ্ব সেখানে চীন এখনো বিরত না থেকে হামলা চালিয়ে যাচ্ছে ভারতে। অন্যদিকে এই বিষয়ে বিপিন কুমার যিনি একজন টায়ার বিশেষজ্ঞ তিনি জানিয়েছেন অর্থনীতির বাজারে টান পড়লে তখনই আফসোসে চীন আলোচনা করতে বসবে।

তখন তারা বাধ্য হবে চুক্তিতে আসতে আর তা হবে তাদের ভারতের বাজারে সেল কমে গেলে, যা চীনের বাজারে অনেক খানি প্রভাব ফেলবে। তাছাড়া এই মুহূর্তে চীনের বাজার ভারতে এতটাই পরিমাণে ছেয়ে গেছে যে সেখানে ভারতের জায়গায় অনেকটাই দিন দিন কমে যাচ্ছে।তাই এবার লাইসেন্সপ্রাপ্ত দেশীয় কোম্পানিগুলো সময় নিয়ে নিজেদের তৈরি করতে পারবে। তবে শুধু তাই নয় এক্ষেত্রে যদি চীনা পণ্য বর্জন করা হয় তাহলে ভারতীয় সংস্থাগুলির জন্য একটি খুব ভালো পয়েন্ট হবে কারণ যার ফলে ভারতের ব্যবসায়ীরা কিছুটা হলেও সুযোগ পাবে নিজেদের ব্যবসাকে আরো ভালোভাবে বৃদ্ধি করতে।

এছাড়া ভারতীয় টায়ারের মান উন্নত হওয়ার তারাও এক্ষেত্রে লাভবান হবেন তাই এটি একটি এমন সময় যখন ভারত তাদের শিল্পকে একটি উন্নতির শিখরে নিয়ে যেতে পারবে। পাশাপাশি সরকারের সামান্য ক্ষতি হলেও মেক ইন ইন্ডিয়ার দরুন লাভবান হবে দেশের অর্থনীতি।

More Stories
নিজের দেশের লোকেরা পর্যন্ত বলে উঠল দেশের লজ্জা তিনি, নিজের ভৌগোলিক জ্ঞান কে নিয়ে আরো একবার হাসি-ঠাট্টার পাত্র হয়ে দাঁড়ালেন ইমরান