ভারতীয় দলে পরিবর্তন হতে চলেছে পুরনো কোচের, পেতে চলেছে নতুন কোচ ভারতীয় টিম।

ড্যামেজ কন্ট্রোল করার চেষ্টা করছে বিসিসিআই। ভারতের প্রাক্তন মহিলা ক্রিকেট দলের অধিনায়ক মিতালি রাজ সম্পর্কিত বিতর্কে জড়িয়ে পড়েন ভারতের বর্তমান মহিলা ক্রিকেট দলের দায়িত্ব প্রাপ্ত কোচ রমেশ পাওয়ার। সদ্য শেষ হওয়া মহিলা টি 20 বিশ্বকাপে ভারত খুব সুন্দর ভাবে খেললেও,শেষ পর্যন্ত সেমিফাইনালে তাদের রাস্তা থেমে যায়। আর হেরে যাওয়ায় প্রশ্ন উঠতে থাকে মিতালি রাজ এর মতন একজন অভিজ্ঞ ক্রিকেটার কে কেন বসিয়ে রাখা হলো সেই নিয়ে তুমুল বিতর্কের সৃষ্টি হয়। এবং এই অভিযোগের তির যায় একেবারে ভারতের বর্তমান দায়িত্বপ্রাপ্ত অধিনায়ক হরমনপ্রীত কৌরের দিকে।

আর এর সাথে জড়িয়ে পড়েন কোচ রমেশ পাওয়ার ও। আর এর পরেই রমেশ পাওয়ার কে বিসিসিআই ছেঁটে ফেলার উদ্যোগ নিল। শুক্রবার বিসিসিআই ভারতীয় মহিলা ক্রিকেট দলের নতুন কোচ কে হবেন তা নিয়ে আবেদন পত্র চেয়েছেন।
অতএব আমরা এটা বলতেই পারি যে পাওয়ার কে আর কোচ হিসেবে রাখার কোনো ইচ্ছাই নেই বোর্ডের। মহিলা দলের কোচ হিসেবে নিয়োগ করার জন্য বেশ কিছু শর্তাবলী রাখা হয়েছে বোর্ডের তরফ থেকে। এর মধ্যে প্রথম শর্তটি হলো, তাকে আন্তর্জাতিক স্তরে প্রতিনিধিত্ব করতে। আর তা না হলেও, কোন আন্তর্জাতিক দলে একটি মরসুম বা যেকোন টি-টোয়েন্টি ফ্র্যাঞ্চাইজি দলকে কমপক্ষে দু’বছর কোচিং করানোর অভিজ্ঞতা থাকতে হবে।

সমস্ত আবেদন গ্রহণ করে 24 শে ডিসেম্বর তাদের শর্ট লিস্টিং করে তাদের ইন্টারভিউ নেওয়া হবে মুম্বাই হেড অফিসে।
এই দুটো শর্ত ছাড়াও আরো অনেক শর্ত রয়েছে। যেমন একটি শর্ত হলো তাকে সর্বোচ্চ স্তরে কোচিং করানো বা খেলানোর জ্ঞান থাকতে হবে। আর আবেদনকারীর বয়স 60 বছরের নিচে হতে হবে। তারমধ্যে শান্তি-শৃঙ্খলা বজায় করার এবং অপরকে মোটিভেট করার দক্ষতাও থাকতে হবে। তার মধ্যে নানারকম কালচারের মানুষের সাথে মিশে যাওয়ার মত ক্ষমতা থাকতে হবে। কম্পিউটারে জ্ঞান থাকা ও লিখায় পটু হতে হবে। তবে মনে করা হচ্ছে এখনো অনেকেই এ শর্তগুলি উতরে যাবেন। তবে দেখার বিষয় হলো বিশ্বের এই ধনীতম বোর্ডের চাকরি নেওয়ার জন্য কটা আবেদন জমা পড়ে।