তবে কী বর্তমানে বোর্ড সভাপতি হওয়ার জন্যই কী তার সম্পর্কে এত ভাল ভাল কথা বলা হচ্ছে-সুনীল গাভাস্কার…

কলকাতার ইডেন গার্ডেন্সে অনুষ্ঠিত হওয়া ভারত বনাম বাংলাদেশ পিঙ্ক টেস্ট ক্রিকেটে বাংলাদেশকে ইনিংস ও 46 রানে হারিয়ে সিরিজটি জিতে যায় ভারত। যেখানে পাঁচদিনের পিঙ্ক টেস্ট ক্রিকেট ম্যাচটির ফলাফল বিরাট কোহলির বাহিনী তিন দিনেই শেষ করে ফেলেন।আর তারপরই লক্ষ্য করা যায় বাংলা দাদা অর্থাৎ সৌরভ গাঙ্গুলীর প্রশংসায় পঞ্চমুখ হন বিরাট কোহলি তিনি বলেন দাদার দলেই এই জয়ের অভ্যাসটা তৈরি করে দিয়েছে, আমরা শুধুমাত্র সেই ধারাকে বয়ে নিয়ে যাচ্ছি।

তবে সৌরভ গাঙ্গুলীর প্রশংসা করায় বিরাট কোহলির ওপর বেজায় ক্ষুব্ধ হয়ে যান সুনীল গাভাস্কার। যেমন টা আমরা জানি উনি কথা না ঘুরিয়ে সোজাসাপ্টা বলতেই পছন্দ করেন, আর এবারও করলেন ঠিক সেরকমই এবারও তিনি কথা না  ঘুরিয়ে সোজা সাপ্টা বললেন সৌরভ বর্তমানে বোর্ড সভাপতি হওয়ার জন্য কী এত কথা বলা হচ্ছে তার জন্য? এইদিন ভারত বনাম বাংলাদেশ টেস্ট ম্যাচে জয়লাভ করার পর প্রতিক্রিয়া দিতে গিয়ে ভারতীয় অধিনায়ক বিরাট কোহলি বলেন ভারতীয় দলের মধ্যে এই যে জয়ের সংস্কৃতিতা রয়েছে সেটা এনেছেন সৌরভ গাঙ্গুলী, আর আমরা শুধুমাত্র সেই ধারাকেই বয়ে নিয়ে চলেছি। ভারতীয় অধিনায়ক এর এরকম মন্তব্য পরেই বোমা ফাঁটান সুনীল গাভাস্কার,সেইদিন ম্যাচের পর্যালোচনা করতে গিয়ে সুনীল গাভাস্কার বলেন খুবই ভালো জয় ভারতীয় দলের পক্ষে এটি। কিন্তু আমারও কিছু বলার রয়েছে এখানে।যেহেতু দাদা বর্তমানে এখন বোর্ড সভাপতি হয়েছেন তাই হয়তো তার সম্পর্কে এত ভাল ভাল কথা বলছেন ভারতীয় অধিনায়ক। কিন্তু সত্তর ও আশির দশকে ভারতীয় দল এই ভাবেই জিততো আর তখন তো বিরাট কোহলির জন্মই হয়নি।

তবে এখানে যে থেমে গেছেন তা নয়, তিনি আরও বলেন অনেকে মনে করেন ক্রিকেট খেলাটা শুরু শুরু হয়েছে 2000 সালে কিন্তু এর 30 বছর আগেও ভারত টেস্ট ম্যাচ জিতেছে। শুধু তাই নয় বিদেশেও জিতেছে। বিদেশের মাটিতেও ভারতীয় ক্রিকেটারা টেস্ট সিরিজ জিতে জয়লাভ করে এসেছে। অন্য অনেক দল যেভাবে হারে সেভাবেও হেরেছে ভারত। যেমনটা আমরা জানি গত রবিবার দিন দুপুরে ভারতের মাটিতে প্রথম দিন- রাতের পিঙ্ক টেস্ট ক্রিকেট ইতিহাসে বাংলাদেশকে ইনিংসে হারালো ভারত।যে উদ্দেশ্যে শনিবার দিন বিকেল থেকে বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা ইনিংস বাঁচানোর লক্ষ্যে নেমেছিলেন সেই লক্ষ্য পূরণ হলো না আর তাদের। তাদের একমাত্র যে ভরসা ছিলেন যিনি মুশফিকুর তার লড়াই ও কাজে এলো না এই দিন। অবশেষে এক ইনিংস আর 46 রানে ভারতীয় বোলারদের কাছে আত্মসমর্পণ করতে বাধ্য হল মহমুদুল্লার বাহিনী। রবিবার দিন এই টেস্ট ক্রিকেট ম্যাচের তৃতীয় দিনে উমেশ যাদব বাংলাদেশের বাকি তিনটি উইকেট তুলে নিয়ে বাংলাদেশের ইনিংসে গণ্ডি টেনে দেন।আর এই ঐতিহাসিক পিঙ্ক টেস্ট ক্রিকেট ম্যাচে ম্যান অফ দ্যা ম্যাচ হিসাবে নিয়োজিত হন ইশান শর্মা এই দুই ইনিংস মিলিয়ে মোট 9 টি উইকেট তোলেন তিনি। শুধু তাই নয় সিরিজে সেরাও হিসাবে নিয়োজিত হন তিনি।