কেন্দ্রের তরফ থেকে সতর্ক করার পরও, জুম অ্যাপ ডাউনলোড কারীদের মধ্যে শীর্ষে উঠে এল ভারতের নাম

কিছুদিন আগে কেন্দ্রে তরফ থেকে সর্তকতা জারি করা হয়েছিল জুম অনলাইন ভিডিও কলিং অ্যাপটির
জন্য, এই জুম অ্যাপটির উপর অভিযোগ উঠেছিল তারা নাকী গ্রাহকদের ডাটা চুরি করে ডার্ক ওয়েবে বিক্রি করছিল। তারপরই কেন্দ্রের তরফ থেকে সর্তকতা জারি করা হয় এই অ্যাপটিতে নিয়ে তাই স্বাভাবিকভাবেই এই অ্যাপটি ব্যবহারের সংখ্যা কমে যাওয়া উচিত, তবে এর উল্টে এপ্রিল মাসে এই অ্যাপ ডাউনলোড কারীদের তালিকার শীর্ষে রয়েছে ভারতের নাম।

এ বিষয়ে এক পরিসংখ্যান বেরিয়ে এসেছে সেখানে জানতে পারা যাচ্ছে এপ্রিল মাসে বিশ্বজুড়ে 13 কোটি 10 লক্ষ মানুষ এই অ্যাপটিকে ডাউনলোড করেছে।আর অনলাইন ভিডিও কলিং অ্যাপ ব্যবহারের মধ্যে রয়েছে জুম অ্যাপটি ডাউনলোড করার সংখ্যা সবচেয়ে বেশি। আর ভারতের মধ্যে এই অ্যাপটি ডাউনলোড এর সংখ্যা রয়েছে 19 শতাংশ অর্থাৎ এক মাসে ভারতে প্রায় 72 লক্ষেরও বেশি মানুষ এই অ্যাপটি ডাউনলোড করেছে। আর ভারতের পরে এই অ্যাপটি কে ডাউনলোড করার স্থানে রয়েছে আমেরিকার নাম।তবে শুধু জুম অ্যাপ টিই নয় জুম অ্যাপটি ছাড়াও এখন টিকটক অ্যাপটির ডাউনলোড সংখ্যাও দিন দিন বাড়ছে।

গোটা বিশ্ব জুড়ে গত এপ্রিল মাসে 10 কোটি 70 লক্ষ মানুষ এই টিকটক অ্যাপ্লিকেশনটি ডাউনলোড করেছে। আর সে দিক থেকেও ডাউনলোডের ক্ষেত্রে বিচার করতে গেলে সবার ওপরে রয়েছে ভারতের নাম, ভারতে পারা দেশে গত মাসে টিকটক ডাউনলোড কারী ব্যক্তির সংখ্যা রয়েছে প্রায় 49 লক্ষ।যেহেতু এই মুহূর্তে গোটা বিশ্ব জুড়ে ছড়িয়ে পড়েছে করোনা ভাইরাসের প্রকোপ সেহেতু গোটা বিশ্বজুড়ে চলছে লকডাউন আর এর ফলে ঘরে একপ্রকার আটকে রয়েছে সকল মানুষ তাই বেশিরভাগ মানুষ সময় কাটাচ্ছে সোশ্যাল মিডিয়াতে।

শুধু তাই নয় কেউ কেউ তো আবার ঘন্টার পর ঘন্টা সময় কাটাচ্ছেন সোশ্যাল মিডিয়ায় আবার অনেকজন নিজেদের প্রয়োজনীয় অফিসের কাজ অফিসের মিটিং, পরিবারে বন্ধু-বান্ধবের সঙ্গে কথা বলা অনলাইনে সেরে ফেলছেন যার জন্য জনপ্রিয়তা বাড়ছে এইসব অ্যাপ্লিকেশন গুলির। শুধু তাই নয় এই মুহূর্তে প্রাইভেট টিউশন সহ স্কুলের ছাত্র-ছাত্রীদের পড়াশোনার ক্ষেত্রে ব্যবহার করা হচ্ছে এই অ্যাপ। যদিও এই বিষয়টি নিয়ে জুম ব্যবহারকারীদের অনেকেই জানিয়েছেন এই অ্যাপটির মধ্যে রয়েছে অনেক সমস্যা যাদের মধ্যে প্রধান সমস্যা হল সুরক্ষা।

অনেক সময় কোন আলোচনার মধ্যে অচেনা কেউ ঢুকে পড়ছে ফলে সমস্যা হচ্ছে অ্যাপটি ব্যবহার করার ক্ষেত্রে এই ঘটনার নাম দেওয়া হয়েছে “জুম বম্বিং”। আর এইসব সমস্যার কারণে ভারত সরকারের তরফ থেকে সমস্ত অধিকারীদের সতর্ক করা হয়েছে যাতে তারা তাদের নিজেদের কাজে এই জুম অ্যাপটি ব্যবহার না করে। এর পাশাপাশি দেশে জনগণের উদ্দেশ্যে জারি করা হয়েছে সর্তকতা কেন্দ্রে তরফ থেকে, তাছাড়া সাইবার সিকিউরিটি এজেন্সি কম্পিউটার ইমার্জেন্সি রেসপন্স টিম অফ ইন্ডিয়া তরফ থেকেও এই অ্যাপটি থেকে দূরে থাকার কথা বলা হয়েছে।

সেই সঙ্গে যারা এই অ্যাপটি ব্যবহার করছেন তাদের জন্য গাইডলাইন জারি করে দেওয়া হয়েছে এই গাইডলাইন ব্যবহার করে নিজেদের কথাবার্তা সুরক্ষিত রাখার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।যদিও এই বিষয় নিয়ে জুম অধিকারীদের তরফ থেকে জানানো হয়েছে তারা খুব শীঘ্রই এই সমস্যার সমাধান আনবে এবং তারা এই অ্যাপটির উপর এখন কাজ করা শুরু করে দিয়েছে। তাছাড়া জুম কর্তৃপক্ষের তরফ থেকে জানানো হয়েছে তারা হোয়াটসঅ্যাপের মতো কথাবার্তা ব্যবহারকারী দের মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকে তার জন্য একটা ইনস্ক্রিপশন যোগ করতে চলেছে ভবিষ্যতে।