চাপ বাড়তে চলেছে চীন-পাকিস্তানের, ভয়ঙ্কর মিসাইলের পরীক্ষণ করতে চলেছে ভারত

প্রতিবেশী দেশ পাকিস্তান আর চীনের ভাবগতিক দেখে ভারত সেনাকে আরও মজবুত করার কাজ করছে যাতে সময়মত শত্রুদের কড়া জবাব দিতে পারেন সেনারা। এরই মধ্যে ভারত এমন এক মিসাইল বানিয়েছে যার দ্বারা ভারতীয় বায়ুসেনা শত্রুদের হাওয়াতেই ১৬০ কিমি দূর থেকে নিমিষে গুঁড়িয়ে দিতে পারবে। এই মিসাইলের আঘাত থেকে সামলানো সহজ না৷ ভিজ্যুয়াল রেঞ্জের বাইরে এয়ার টু এয়ার মিসাইল অস্ত্র এতটাই দ্রুতগতিসম্পন্ন যে শত্রুরা নিজেদের সামলানোর সুযোগ পাবে না।

ভারত অস্ত্র মার্ক-২ মিসাইল পরীক্ষণ করবে এই বছর৷   হাওয়া থেকে হাওয়ায় নিধন করতে সক্ষম এই  অস্ত্র মিসাইলের গতি শব্দের থেকেও চারগুণ বেশি। এই মিসাইলের রেঞ্জ ১৬০ কিমি। এবং এই মিসাইল ভিজ্যুয়াল রেঞ্জের বাইরেও শত্রুদের সহজেই নিশানা করতে পারবে।

জানা যাচ্ছে,  ভারতীয় বায়ুসেনার আধিকারিক জানিয়েছেন, অস্ত্র মিসাইলের পরীক্ষণ এবছর  শুরু হবে। পরীক্ষণ সফল হলে ২০২২ এর শেষ দিকে  ভারতীয় সেনার হাতে তুলে দেওয়া হবে এই মিসাইল।

এই নেক্সট জেনারেশন মিসাইল প্রোগ্রামের সঙ্গে যুক্ত আছেন  প্রাক্তন সেন্ট্রাল এয়ার কম্যান্ডার এয়ার মার্শাল এসবিপি সিনহা।  তিনি বলেন, “হাওয়া থেকে হাওয়ায় নিশানা করতে সক্ষম এটি একটি বেয়োন্ড ভিজ্যুয়াল রেঞ্জ মিসাইল। যদি লক্ষ্য চোখে দেখাও না যায়, তাহলেও এই মিসাইল নিজের লক্ষ্যকে সহজেই গুঁড়িয়ে দিতে পারবে।”

আগামী তিন দিন একাধিক জেলাতে বজ্রবিদ্যুৎ-সহ বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা, তালিকায় রয়েছে দক্ষিণবঙ্গের একাধিক জেলা

৪.৫ ম্যাক (৫৫৫৬.২) কিমি গতিতে আঘাত হানতে পারে এই মিসাইল৷ প্রতি সেকেন্ডে এই মিসাইল ১.৫৪ কিমি দূরত্ব নির্ধারণ করতে পারবে। ভারতীয় বায়ুসেনা এই মিসাইলটিকে স্বদেশী লড়াকু বিমান তেজসের সঙ্গে যুক্ত করার কাজ করছে৷ রাশিয়া, ফ্রান্স আর ইজরাইলের BVRAAM এর জায়গা নেবে। ভারতীয় বায়ুসেনা আর নৌসেনা ইতিমধ্যেই ২৮৮ অস্ত্র-২ মার্ক ১ মিসাইলের অর্ডার দিয়ে দিয়েছে। শুখোই MKI বিমানের সঙ্গে যুক্ত করা যায় এই মিসাইল৷