পাকিস্তানের ঘুম উড়িয়ে নয়া স্যাটেলাইটের তাক লাগাতে চলেছে ভারত! দেখে নিন ঠিক কী করতে চলেছে ভারত..

বিগত সরকারের শাসনে কেবল ঘোটালা নিয়েই আলোচনা উঠতো কখনো বোফর্স ঘোটালা, কখনো জিপ ঘোটালা, আবার কখনো সাবমেরিন ঘোটালা নিয়ে আলোচনা উঠত কিন্তু ,যখন থেকে ভারতে মোদীজির শাসন সামলেছেন ,একদিকে যেমন দেশের উন্নতি হয়েছে তেমনই অপরদিকে এবার সেনা কে কিভাবে আরো শক্তিশালী করা যায় সে নিয়ে আলোচনা উঠতে থাকে। মহাকাশে সবেমাত্র এ স্যাট অ্যান্টি স্যাটেলাইট মিসাইল উৎক্ষেপণের সাফল্য উপভোগ করছে ভারত। অনেকেই মনে করছে আগামী দিনে মহাকাশের ক্ষমতায়নে যা অন্যতম কান্ডারী হতে চলেছে। তবে এই ঘটনা দরুন পাকিস্তানের চোখ চোখ কোঁচকালেও তাকে বিন্দুমাত্র আমল না দিয়ে মহাকাশে ক্ষমতায়নে আরো এক চমক দিতে চলেছে ১৩০ কোটির দেশ ভারত।নতুন কোন চমকের অপেক্ষায়! এপ্রিল ১ তারিখে, শ্রীহরিকোটা থেকে পিএসএলভিসি ৪৫ এর সফল উৎক্ষেপণের অপেক্ষায় রয়েছে ইসরো। সকাল ৯:৩০ মিনিটে এই উৎক্ষেপণ হবে। এমিস্যাট নামের এই কৃত্রিম উপগ্রহ ডিআরডিও তথা দেশের প্রতিরক্ষার জন্য তৈরি করা হয়েছে।

তবে কি কাজে নিয়োজিত থাকবে এমিস্যাট তা এখন অনেকের মনে প্রশ্ন? তবে আপনাদের বলে রাখি এই স্যাটেলাইট মূলত শত্রু শিবিরের রাডারের খোঁজ করবে। যা নিঃসন্দেহে দেশের নিরাপত্তা ও প্রতিরক্ষার ক্ষেত্রে বিশাল বড় ঘটনা হতে চলেছে আগামীদিনে।
কোন খবর পাঠাতে ব্যবহার করা হবে এই স্যাটেলাইট? এই লো আর্থ স্যাটেলাইটের মাধ্যমে জানা যাবে শত্রুদেশ কোথায় রাডার স্থাপন করেছে। সেই সমস্ত জায়গার খোঁজ খবর দিতে চলেছে এই স্যাটেলাইট। এর আগে এই ধরনের কাজের জন্য় বিমানের ব্যবহার করত ভারত। তবে এবার থেকে তা মাহাকাশে ঘোরাফেরা করা স্যাটেলাইটই করে দেবে বলে জানাচ্ছে বিশেষজ্ঞ মহল।

তবে আপনাদের জানিয়ে দি, একদিকে ভারত যেমন স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণ করতে সক্ষম হয়েছে বর্তমানে ঠিক সেরকমই ভারত এখন স্থল, জল ও বায়ু তিন দিক থেকেই পরমাণু অস্ত্র ব্যাবহার করার ক্ষমতা অর্জন করে নিয়েছে। নরেন্দ্র মোদীর সময়কালে এর সফল পরীক্ষণ করাও হয়েছে।

Related Articles

Open

Close