বিশ্বের অন্যতম শক্তিশালী দেশ ভারত -জো বাইডেন

বিশ্বের অন্যতম শক্তিশালী দেশ ভারত। অকপটে স্বীকার করে বন্ধুত্ব আরও দৃঢ় করার জন্য হাত বাড়িয়ে দিল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এর প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন৷ ইন্দো-প্যাসিফিক এলাকায় ভারত যে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের অন্যতম শক্তিশালী বন্ধু, তাও মনে করিয়ে দিল ওয়াশিংটন।

মার্কিন স্টেট ডিপার্টমেন্টের মুখপাত্র নেড প্রাইস সাংবাদিকদের বলেন, ‘ইন্দো-প্যাসিফিক এলাকায় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের অন্যতম শ্রেষ্ঠ পার্টানার হল ভারত। আমরা ভারতের শক্তিবৃদ্ধিকে স্বাগত জানাই। তাছাড়া সার্বিক ভাবে ভারত ইন্দো-প্যাসিফিক এলাকায় স্থিতি বজায় রাখার ক্ষেত্রে অন্যতম দায়িত্ববান দেশ। তারা সেই এলাকার শান্তি এবং সুরক্ষা সুনিশ্চিত করে।’

ভারত-মার্কিন অংশিদারিত্ব প্রসঙ্গে নেড প্রাইস বলেন, ‘আমরা বিভিন্ন ক্ষেত্রে ভারতের সঙ্গে হাত মিলিয়ে কাজ করে থাকি। প্রতিরক্ষা, সুরক্ষা, কূটনৈতিক বিষয়ে দুই দেশ একসঙ্গে কাজ করে থাকি। এছাড়া ইন্দো-প্যাসিফিক এলাকায় সন্ত্রাস বিরোধী অপারেশন এবং শান্তি বজায় রাখার ক্ষেত্রে একসঙ্গে কাজ করে দুই দেশ। এছাড়াও স্বাস্থ্য, পরিবেশ, শিক্ষা, প্রযুক্তি, কৃষি, মহাকাশ বিজ্ঞানের ক্ষেত্রেও ভারত ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র একসঙ্গে কাজ করে।’

বাসযাত্রীদের জন্য সুখবর, এবার খুব সহজেই অনলাইনে করতে পারবেন টিকিট বুকিং, জানুন পদ্ধতি

ভারতের সব থেকে বড় বাণিজ্যিক বন্ধু আমেরিকা। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র,  রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদে ভারতের অস্থায়ী সদস্যপদকে স্বাগত জানিয়েছে। ২০১৯ এই ভারত-মার্কিন বাণিজ্যের পরিমাণ ১৪৬ বিলিয়ন ডলার।  ভারতের বিদেশমন্ত্রী এস জয়শঙ্করের সঙ্গে মার্কিন সেক্রেটারি অফ স্টেট অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেনের আলোচনার প্রসঙ্গটিও উল্লেখ করেন নেস প্রাইড৷

লাদাখ সীমান্তে চীন ভারত দ্বন্দ্বে ভারতের পাশে থাকার বার্তা দিল আমেরিকা। এদিন নেড প্রাইস বলেন, ‘আমাদের কাছে ভারত-প্রশান্ত মহাসাগরীয় উপকূলীয় অঞ্চলে ভারত এক অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বন্ধু। আমরা স্বাগত জানাই বিশ্ব শক্তি হিসেবে ভারতের উত্থানকে৷ আমরা ভারতকে কূটনৈতিক এবং নিরাপত্তা ক্ষেত্রে ভারতকে সবরকম সহযোগিতা করব। আমরা পরিস্থিতির উপর নজর রাখছি। দুই দেশের সরকারের পারস্পারিক আলোচনা সম্পর্কেও আমরা অবগত। আলোচনার মাধ্যমে শান্তিপূর্ণ সমাধানকেই সমর্থন করি।’