আর্থিকভাবে মহাশক্তিশালী হওয়ার স্বপ্ন দেখেছিল চীন! পুরো পরিকল্পনাতে জল ঢেলে দিল মুকেশ আম্বানি সংস্থা..

গোটা বিশ্ব জুড়ে এখন যে মরন ভাইরাস COVID-19 ছড়িয়ে পড়েছে তার পেছনে যে হাতে রয়েছে চীনের তা এখন স্পষ্ট হয়ে গেছে।গোটা বিশ্বের কাছে চীন ইচ্ছাকৃত ভাবে একাধিক তথ্য লোপাট করে এই ভাইরাস ছড়িয়েছে যা এখন গোটা বিশ্বে মহামারি আকার ধারণ করেছে। আর এর পেছনে চীনের আসল উদ্দেশ্য কী ছিল তা স্পষ্ট হয়ে গেছে,চীন ভেবেছিল গোটা বিশ্বজুড়ে করোনা ছড়িয়ে দেওয়ার পর গোটা বিশ্বকে হাতের মুঠোয় করে নিতে পারবে তারা। চীনের এক্ষেত্রে প্লানিং ছিল আগামী 10 বছরে বিশ্বের সমস্ত দেশকে কীভাবে মাথা নত করা যায় তার ব্লু পিন্ট বানিয়ে ফেলেছিল চীনের কমিউনিস্ট ভু মাফিয়া গ্যাং।

তবে এক্ষেত্রে ভারতীয়রা চীনের এই সম্পূর্ণ পরিকল্পনাকে ভেস্তে দিয়েছে এবং এক আলাদাই এক মাস্টারস্ট্রোক খেলে দিয়েছে চীনের বিরুদ্ধে। চীনের ধারণা ছিল তারা গোটা বিশ্বে করোনা ছড়িয়ে দেবার পর পুরো বিশ্বে নিজেদের মাল রপ্তানি করে নিজেদের দেশের ব্যবসাকে আরও উন্নতির পর্যায়ে পৌঁছে দেবে। তবে যেভাবে ভারতীয়রা চায়না মাল বর্জনের ট্রেনিং শুরু করেছে তা দেখে এখন বিশ্বের অন্যান্য দেশগুলিও এরকমই এক পদক্ষেপ গ্রহণ করতে শুরু করে দিয়েছে।


দ্বিতীয়তঃ এক্ষেত্রে চীন ভেবেছিল তাদের 5G টেকনোলজির মাধ্যমে গোটা বিশ্বে আর্থিক মহাশক্তি স্থাপনের পরিকল্পনা গড়ে তুলবে। আর এক্ষেত্রে একথা বলা বাহুল্য যে 5G পরিষেবার দরুন আগামী 20 বছরের যে ভবিষ্যৎ সেটি অদ্ভুতভাবে পাল্টে যেতে চলেছে।এক্ষেত্রে ফাইভ-জি টেকনোলজি ব্যবহার করে ড্রাইভারলেস গাড়ি থেকে শুরু করে রোবটিক্সের ক্ষেত্রে এমন পরিবর্তন হতে চলেছে যা মানুষের চিন্তা ধারাকে এক অন্য পর্যায়ে পৌঁছে দেবে। যা রীতিমতো সকলকে অবাক করে দেবে আগামী দিনে।আর এক্ষেত্রে চীন এই কাজটি সম্পন্ন করার জন্য চীনা কম্পানি Huawei কে মাঠে নামিয়ে দিয়েছিল।

প্রসঙ্গত ফাইভ-জি পরিষেবার জন্য যে খরচ হয় তা অত্যন্ত ব্যয়বহুল এবং এর প্ল্যানিং কাজও অনেক। যার দরুন 5G এর মাঠে চীনকে টক্কর দেওয়ার মতো আপাতত কেউ ছিল না। চীন ভেবে ছিল গোটা বিশ্বে ফাইভ-জি টেকনোলজি ব্যবহার করে গোটা বিশ্বের পুরো ব্যবসাকে নিজের হাতের মুঠোয় রাখতে, একই সাথে 5G নেটওয়ার্কে কাজে লাগিয়ে শক্তিশালী দেশ গুলির তথ্য লোপাট করার প্ল্যানও বানিয়ে ফেলেছিল এক্ষেত্রে চীন। তবে চীনের এরকম এক প্ল্যানে জল ঢেলে দিল মুকেশ আম্বানির সংস্থা। কারণ ইতিমধ্যেই মুকেশ আম্বানির জিও সংস্থা গোটা বিশ্বে 5G পরিষেবা দেওয়ার ঘোষণা করে দিয়েছেন।


তবে শুধু তাই নয় এক্ষেত্রে চীনকে কড়া টেক্কা দেওয়ার জন্য বিশ্বের অন্যতম বিকল্প হিসাবে আত্মপ্রকাশ করেছে এক্ষেত্রে রিলায়েন্স। আর এখন যে খবরটি বেরিয়ে আসছে সেখানে শোনা যাচ্ছে এক্ষেত্রে বিশ্বের পূর্ণ ডিজিটালাইজেশনের জিওর পাশে গুগল কর্তৃপক্ষ দাঁড়াতে চলেছে। তাছাড়া ইতিমধ্যে গুগলের সিইও জানিয়েছেন তারা জিওতে প্রায় 33 হাজার কোটি টাকার বিনিয়োগ করতে চলেছেন আগামী দিনে। অর্থাৎ বলা যেতে পারে চীন যে বিশ্ব জয়ের স্বপ্ন দেখেছিল সেই স্বপ্নে মুকেশ আম্বানির এই মাস্টার স্ট্রোক চীনকে রীতিমতো বড় ধাক্কা দিয়েছে।