দেশনতুন খবরবিশেষভারতীয় সেনা

যা ভয় পাচ্ছিল চীন সেটাই করে দেখালো ভারত, কূটনৈতিক ও সামরিক দিক থেকে মাস্টারস্ট্রোক ভারত সরকারের..

ইন্ডিয়ার মাউন্টেন ফোর্সের কতখানি ক্ষমতা তা আমরা এর আগের পোস্টে আপনাদের জানিয়ে দিয়েছি। চীনের বিশেষজ্ঞরা ইতিমধ্যে স্বীকার করে নিয়েছে বিশ্বের সমস্ত দেশের সেনাদের থেকে সবথেকে ভয়ঙ্কর সেনা ভারতের কাছে রয়েছে। এর প্রমাণ আমরা কারগিলের যুদ্ধের সময়েও পেয়েছি। কারগিলের যুদ্ধের সময় ভারতীয় সেনা পাকিস্তানি সেনাদের যেভাবে কড়া জবাব দিয়েছিল তা বিশ্বের অন্য যেকোনো দেশের সেনাদের পক্ষে অসম্ভব ছিল। বর্তমান সময়ে ভারতের মাউন্টেন ফোর্সের যা দক্ষতা তা যেকোনো দেশের সেনাদের হার মানিয়ে দেবে।

আর এবারে চীনকে কড়া জবাব দিতে ভারত আবার মাউন্টেন ফোর্সের সাহায্য নিচ্ছে। ইতিমধ্যেই ভারত সীমান্তবর্তী এলাকায় মাউন্টেন ফোর্স মোতায়েন করে দিয়েছে। সীমান্তে মোতায়েন করা এই মাউন্টেন ফোর্স গরিলা আকারে যুদ্ধ করতে সক্ষম। শুধু সক্ষম নয় খুবই দক্ষতার সঙ্গে শত্রুপক্ষকে আক্রমণ করে এই মাউন্টেন ফোর্স। যতই কঠিন পরিস্থিতি থাক না কেন শত্রুদের দমন করতে সক্ষম এই ফোর্স। চীনের বিশেষজ্ঞরা এই মাউন্টেইন ফোর্স নিয়ে জানিয়েছেন, সারা বিশ্বের সমস্ত দেশ গুলির মধ্যে ভয়ঙ্কর সেনা হলো ভারতীয় সেনার।

এছাড়া চীনের তরফ থেকে আরো এক কথা জানানো হয়েছে যেখানে তারা বলেছে বর্তমানে আমেরিকা, ব্রিটেন, ফ্রান্স এর মত শক্তিশালী দেশ গুলির কাছেও এই ধরনের সেনা নেই। আর সীমান্তবর্তী এলাকায় মাউন্টেন ফোর্স মোতায়েন করার পর কার্যত চীন ঘাবড়ে গেছে। চীনকে তার কাজকর্মের কড়া জবাব দেওয়ার জন্য ভারতের রক্ষা মন্ত্রী রাশিয়া সফরে রয়েছেন। তবে একথা আপনার জানিয়ে দিই, ভারত এক ঢিলে দুই পাখি মারার জন্য রাশিয়ার সাথে বন্ধুত্ব করছে। খবর সূত্রে জানা গিয়েছে রাজনাথ সিং S-400 সিস্টেমকে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব ভারতে আনার চেষ্টা করছে। রাশিয়াকে এই সিস্টেমের অর্ডার দেওয়া হয়েছে যা বিশেষ কারণ বশত ভারতের কাছে এখনো পৌঁছায় নি আটকে রয়ে গেছে।

রাশিয়ার সাথে চীনের সীমান্তবর্তী এলাকা নিয়ে যে বিতর্ক রয়েছে সেটিকে কাজে লাগাতে চলেছে ভারত। রাশিয়াকে বেশ সক্রিয় ভাবে চীনের বিরুদ্ধে কাজে লাগাতে চাইছে ভারত। আজ রাশিয়ার বিদেশ মন্ত্রী বলেন যে, এই বৈঠকের সংযুক্তরাষ্ট্রের সম্ভাবিত সংশোধন এবং ভারতকে সং যুক্তরাষ্ট্রের স্থায়ী পরিষদের সদস্য করার জন্য আমরা পূর্ণ সমর্থন জানাচ্ছি। সুতরাং ভারত যে চীনকে সামরিক এবং কূটনৈতিক দুই দিক থেকেই একেবারে জব্দ করতে চলেছে তা আমরা স্পষ্টভাবে বুঝতে পারছি।

Related Articles

Back to top button