ব্রিটেন, ফ্রান্সকে পিছনে ফেলে বিশ্বের পঞ্চম বৃহত্তম অর্থনীতির দেশ হিসেবে আত্মপ্রকাশ করলো ভারত

রাজনৈতিক চাপানউতোরের মাঝে ভালো খবর বেরিয়ে এলো ভারতের জন্য। এবার ব্রিটেনকে সরিয়ে বিশ্বের পঞ্চম বৃহত্তম অর্থনৈতিক দেশ হিসাবে আত্মপ্রকাশ করল ভারত। গত বছর অর্থনৈতিক মন্দার কবলে পড়েছিল বিশ্বের প্রায় প্রত্যেক বড় দেশ যেখানে বাদ যায়নি চিন, রাশিয়া বা ব্রিটেনের মতো দেশগুলি ও। আর তখন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ভিত্তিক থিঙ্ক ট্যাঙ্ক ওয়াল্ড পপুলেশন এর একটি রিভিউ প্রতিবেদনে বলা হয়েছিল যে 2019 সালে এবার ফ্রান্স ও ব্রিটেনকে ছাড়িয়ে বিশ্বের বৃহত্তম অর্থনীতির দেশ হিসাবে আত্মপ্রকাশ করেছে ভারত।

আর এই প্রতিবেদনে জানানো হয়েছিল যে 2019 সালে এই দুটি দেশকে ছাড়িয়ে ভারত 2.94 ট্রিলিয়ন ডলারের জিডিপি হিসাবে বিশ্বের পঞ্চম বৃহত্তম দেশ হিসাবে আত্মপ্রকাশ করেছে। যেখানে ফ্রান্সের অর্থনীতির আকার ছিল 2.71 ট্রিলিয়ন ডলার আর অন্যদিকে ব্রিটেনের অর্থনীতির আকার ছিল 2.83 ট্রিলিয়ন ডলার। পিপিপি এর ক্ষেত্রে ভারতের জিডিপি জাপান ও জার্মানি চেয়ে 10.51 ট্রিলিয়ন ডলার অধিক। তাছাড়া ভারতের অধিক জনসংখ্যার কারণে প্রত্যেক মাথাপিছু জিডিপি 2170 ডলার। আর সেখানে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে তা 62,798 ডলার।

তবে যাই হোক এক্ষেত্রে জিডিপির প্রবৃদ্ধি ভারতের আসল অবশ্য তৃতীয় বছরের জন্য 7.5% থেকে কমে 5% দুর্বল হবে বলে আশা করা হচ্ছে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক থিঙ্ক ট্যাঙ্ক ওয়াল্ড পপুলেশন এর একটি রিভিউ প্রতিবেদন অনুযায়ী জানা যাচ্ছে ভারত তার পূর্ববর্তী বন্ধ এবং অভ্যন্তরীণ স্বয়ং সম্পূর্ণ নীতিমালা থেকে একটি মুক্তবাজার অর্থনীতিতে বিকাশ করেছে।আর ভারতের অর্থনৈতিক উদারনীতি 2019 সালের গোড়ার দিকে শুরু করা হয়েছিল আর এরই মধ্যে অন্তর্ভুক্ত রয়েছে শিল্পী নিয়ন্ত্রণ বিদেশে বাণিজ্য ও বিনিয়োগের ওপর নিয়ন্ত্রণ হ্রাস এবং রাষ্ট্রয়ত্ত উদ্যোগে বেসরকারি করণ।

আর এই প্রতিবেদনে এ কথা বলা হয়েছে যে এই পদক্ষেপ গুলি ভারতের অর্থনৈতিক যে গতি সেটিকে ত্বরান্বিত করতে সহায়তা করেছে।আর এক্ষেত্রে ভারতে পরিষেবা খাত অন্যান্য দেশের দ্রুত বর্ধনশীল খাতগুলির মধ্যে অন্যতম একটি। যার মধ্যে রয়েছে অর্থনীতির 60 শতাংশ এবং কর্মসংস্থানের 28 শতাংশ। তাই বলা হয়েছে উৎপাদন ও কৃষিকার্য অর্থনীতির ক্ষেত্রে দুটি গুরুত্বপূর্ণ ক্ষেত্র।অর্থাৎ এবার পৃথিবীর বৃহত্তম পঞ্চম অর্থনীতির দেশ হল ভারত যার সামনে থাকছে শুধু আমেরিকা, চিন, জাপান এবং জার্মানি।