চীনকে শায়েস্তা করতে লাদাখ সীমান্তে ভারত নিযুক্ত করলো দেশীয় হেলিকপ্টার..

চীনকে শায়েস্তা করার জন্য আরও একটি দুর্দান্ত পদক্ষেপ নিল ভারতীয় বায়ুসেনা। চীনের হালচালের উপর নজর রাখার জন্য লাদাখ সীমান্তে মোতায়েন করা হলো হ্যালের হেলিকপ্টার। এই দুটি লাইট কমব্যাট হেলিকপ্টার রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থা হিন্দুস্তান অ্যারোনটিকস লিমিটেড (হ্যাল) তৈরি করেছে। এবং খুব তাড়াতাড়ির মধ্যে এই হেলিকপ্টার গুলি তৈরি করা হয়েছে বলে জানা গেছে। বায়ুসেনাকে সাহায্য প্রদান করার জন্য অত্যন্ত দ্রুততার সঙ্গে এই হেলিকপ্টার বানানো হয়েছে বলে জানিয়েছে এই সংস্থার তরফে।

এখানেই থামেনি এই সংস্থা, এই সংস্থার তরফে জানানো হয়েছে যে আরো 15 টি এই ধরনের হেলিকপ্টার বানাতে পারে সংস্থা। হ্যালের চেয়ারম্যান আর মাধবন জানিয়েছেন যে,” এটা হল বিশ্বের সবথেকে হালকা যুদ্ধ হেলিকপ্টার। ভারতীয় সেনাবাহিনীর চাহিদার ওপর ভিত্তি করে এই হেলিকপ্টার বানানো হয়েছে। এটি পাহাড়ে যুদ্ধের জন্য খুবই উপযুক্ত। এই ধরনের চিন্তাভাবনা আত্মনির্ভর ভারত গড়ে তোলার ক্ষেত্রে খুবই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে আগামী দিনে।”

অপরদিকে গত সপ্তাহে বায়ুসেনার উপপ্রধান এয়ার মার্শাল হরজিৎ সিংহ অরো একবার লাদাখ সফরে গিয়েছিলেন। এই সফরে গিয়ে তিনি দৌলতবেগ ওল্ডি এয়ারবেস থেকে এই যুদ্ধ হেলিকপ্টার উড়িয়েছিলেন। এই হেলিকপ্টার লাদাখ সীমান্তে মোতায়েন করা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করেছেন বিশেষজ্ঞরা। হ্যাল কে দেওয়া এই প্রজেক্ট অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ প্রজেক্ট ছিল। সম্প্রতি কারগিল যুদ্ধের পরেই এই প্রোজেক্টের অনুমোদন দেওয়া হয়। পাহাড়ে এই হেলিকপ্টার এর কার্যক্ষমতা অনেক বেশি।

 

ভারতের দুই প্রধান শত্রু চীন এবং পাকিস্তান কে শায়েস্তা করার জন্য এই হেলিকপ্টার অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে বলে মনে করেছেন প্রতিরক্ষা বিশেষজ্ঞরা।
চলতি বছরের শেষের দিকে আরো 15 টি এ ধরনের হেলিকপ্টার তৈরি করার চুক্তি হতে পারে হ্যালের সাথে। 15 টির মধ্যে 10 টি দেওয়া হবে বায়ুসেনাকে এবং আর 5 টি দেওয়া হবে সেনাবাহিনীকে। পরের ধাপে হেলিকপ্টার গুলো এমন ভাবে বানানো হবে যাতে এর ভিতরে অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে যাওয়া যায়। আমরা সবাই জানি আগামী 9 আগস্ট মোট 101 একটি প্রতিরক্ষা সামগ্রী আমদানি করার ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে প্রতিরক্ষামন্ত্রক। এবার এই তালিকায় এই লাইক কমব্যাট হেলিকপ্টারও যুক্ত হয়ে যেতে পারে বলে মনে করেছেন অনেকেই।