ভারত মহাসাগরে এবার দাপিয়ে বেড়াবে ভারতীয় নৌসেনা, চীনতে ঘিরতে জাপানের সাথে বড় চুক্তি ভারতের..

সীমান্তবর্তী এলাকাগুলো নিয়ে ভারত আর চীনের মধ্যে উত্তেজনা বেড়ে চলেছে দিনের পর দিন। কখনো লাদাখ সীমান্তে বা কখনো অরুণাচল প্রদেশ বা কখনো কখনো উত্তরাখণ্ড সীমান্তবর্তী এলাকাগুলো নিয়ে দ্বন্দ্ব বাড়ছে এই দুই দেশের মধ্যে। তবে কয়েকদিন আগে এই দুই দেশের মধ্যে সমঝোতার সিদ্ধান্ত হলেও এখনো পর্যন্ত সঠিকভাবে জানা যায়নি। বরং চীন ভারতকে হুঁশিয়ারি পর্যন্ত দিয়েছে। যদিও এই সমস্ত কিছুকে একেবারে পাত্তা দেয়নি ভারত।

চীনকে চাপে রাখার জন্য আরও একটি নতুন চাল চালতে চলেছে ভারত। এই চীনকে চাপে রাখার জন্য জাপানের সাথে প্রতিরক্ষা চুক্তি করতে চলেছে ভারত। খবর সূত্রে জানা গিয়েছে, ভারত মহাসাগর এলাকায় চীনের আগ্রাসন ঠেকানোর জন্য জাপানের সাথে পারস্পরিক কৌশল গত সহযোগিতায় চুক্তি করতে চলেছে ভারত। এছাড়াও আরও জানা গিয়েছে, গতকাল অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ঠিক একই রকম প্রতিরক্ষা চুক্তিতে চুক্তিবদ্ধ করেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। এই চুক্তির পর থেকে দুই দেশের একে অপরের সেনা ঘাঁটি ব্যবহার করতে পারবে।

এর ফলে দুই দেশের সামরিক শক্তি অনেকটাই বেড়ে যাবে বলে মনে করেছেন বিশেষজ্ঞরা। শুধু তাই নয় এই চুক্তি হওয়ার পর থেকে ভারত মহাসাগর এবং দক্ষিণ প্রশান্ত মহাসাগর খুব সহজেই পাড়ি দিতে পারবে ভারতের নৌসেনা। এর ফলে চীনের নৌসেনাকে কড়া জবাব দিতে পারবে ভারত। তবে ভারতের এই ধরনের চুক্তি এই প্রথমবার করছে তা নয় এর আগে ফ্রান্স, আমেরিকা, দক্ষিণ কোরিয়া, সিঙ্গাপুরের সাথেও ঠিক একই চুক্তি করেছে। এবং এই চুক্তির ফলে ওই সমস্ত দেশ গুলির নৌসেনা ঘাঁটি খুব সহজে ব্যবহার করতে পারবে ভারত।

এটা এখন বর্তমানে ভিয়েতনামের সাথে সুসম্পর্ক গঠন করার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে ভারত। ভিয়েতনামের সাথে সুসম্পর্ক গঠন হয়ে গেলে ভারত সামরিক দিক থেকে আরও শক্তিশালী হয়ে উঠবে বলে মনে করেছেন বিশেষজ্ঞরা। ভারত সমস্ত দেশ গুলির সঙ্গে সুসম্পর্ক গঠন করছে কারণ চীনকে তার কাজকর্মের যোগ্য জবাব দিতে হবে খুব শীঘ্রই। আর ভারত জাপানের সাথে এই চুক্তি করার পর আরও একধাপ এগিয়ে গেল কিন্তু যোগ্য জবাব দেওয়ার জন্য।


প্রসঙ্গত যবে থেকে গোটা বিশ্বে করোনা ভাইরাসের প্রকোপ জাঁকিয়ে ধরেছে তবে থেকে চীন এবং আমেরিকার মধ্যে সম্পর্ক আরও অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে। এই দুই দেশের মধ্যে উত্তেজনা ক্রমশ বেড়েই চলেছে। তবে যেমনটা আমরা জানি এই মুহূর্তে গোটা বিশ্ব জুড়ে যে করোনা ভাইরাসের প্রকোপ ছড়িয়ে পড়ছে তার পেছনে যে চীন রয়েছে তা বলার অপেক্ষা রাখে না কারণ চীনা সরকার করোনা সম্পর্কে অনেক তথ্য গোপন রেখেছিল গোটা বিশ্বের কাছে, যার ফলস্বরূপ আজ গোটা বিশ্বে ছড়িয়ে পড়েছে করোনা। আর যার দরুন আমেরিকা সরকারের আক্রোশ ক্রমশ বাড়ছে চীনের প্রতি।

Related Articles

Back to top button