করোনার মতো মহাবিপদকে টেক্কা দিতে এই প্রক্রিয়ার মাধ্যমে বাড়িয়ে নিন শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা

ইতিমধ্যে শেষ হয়েছে চতুর্থ দফার লকডাউন আর এখন দেশজুড়ে শুরু করা হয়েছে আনলক-1,যার দরুন একটু একটু করে খুলতে শুরু করেছে বাজার-দোকানদানি রাস্তায় নামানো হচ্ছে বাস। পাশাপাশি সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে মানুষেরা যাচ্ছেন নিজেদের কর্মস্থানে।অর্থাৎ কতদিন এইভাবে লকডাউন চালিয়ে যাওয়া সম্ভব হবে তাই পরিস্থিতি বুঝে করোনাকে সঙ্গে নিয়ে চলতে হবে আমাদের।কারণ দেশজুড়ে যদি এইভাবে লকডাউন চলতে থাকে অধিকাংশ সময় ধরে তাহলে দেশের অর্থনীতি একপ্রকার ভেঙ্গে পড়বে এবং অন্যান্য দেশের তুলনায় আমাদের দেশ অনেকখানি পিছিয়ে পড়বে।

তবে এখন করোনা সম্পর্কে যে তথ্য বেরিয়ে আসছে সেখানে আশঙ্কা করা হচ্ছে এই করোনা সংক্রমনের হার ভারতে কিন্তু জুন-জুলাই মাসে অধিকাংশ মাত্রায় পৌঁছাবে। আর সেই বিপদের কথা মাথায় রেখেই আমাদের দৌড়াতে হবে নিত্যদিনের কাজ কর্মে। তাই এখন আমাদের কাছে একটাই উপায় রয়েছে যেখানে আমাদেরকে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে হবে। এখন প্রশ্ন কীভাবে বাড়ানো যাবে রোগ প্রতিরোধ করার ক্ষমতা?তবে এক্ষেত্রে বলে রাখি আলাদা করে কোনো উপয়ে করোনা প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানোর কোনো উপায় নেই তবে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে পারলেই অনেকখানি করোনা প্রতিরোধ করা সম্ভব হবে ভবিষ্যতে।

আর এক্ষেত্রে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে পারবেন সুষম খাবার খাওয়া, কিছু না কিছু ব্যায়াম করা বা শারীরিক পরিশ্রম করা, তার পাশাপাশি নিত্যদিন 7 ঘণ্টা করে ঘুমানো। তার পাশাপাশি ভিটামিন সি-এর যোগান দিতে মুসম্বি লেবু হোক কিংবা পাতি লেবুর রস খাওয়া। আবার অনেকেই শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানোর জন্য কতগুলো ভেষজ ওষুধ রয়েছে এগুলিকে খাবার কথা জানাই আর এগুলি যেকোন সংক্রমনের হাত থেকে বাঁচাতে ম্যাজিকের মতো কাজ করে বলেও দাবি করেন তারা।

এক্ষেত্রে অনেকেই মনে করেন প্রতিদিন সকালে উঠে নিয়ম করে গোটা পাঁচেক তুলসি পাতা যদি খাওয়াও তাহলে শরীরে রোগ-প্রতিরোধক্ষমতা অনেকখানি বাড়ে। শুধু তাই নয় এক্ষেত্রে গুলঞ্চ পাতা ও শাকও শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। আর তারপরেই উঠে আসে রসুনের নাম, যেখানে রসুনকে বলা হয় মর্তের অমৃত। তাই কেউ যদি রোজ সকালে দুই কোয়া করে রসুন খায় তাহলে তার শরীরে রোগ-প্রতিরোধ ক্ষমতা অনেকটাই বাড়ে। তবে এটি যে শুধু সকালেই খাওয়া যাবে তাই নয় যখন খুশি এটিকে টাইম করে প্রতিদিন নিয়মিত দু’কোয়া করে খেলেই শরীরের রোগ-প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ে।

তাছাড়া প্রতিদিন রাতে শুতে যাওয়ার আগে গরম দুধে একটু করে হলুদ মিশিয়ে খেলেও শরীরের অনেক উপকার হয় এতেও শরীরের রোগ-প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ে। এইগুলি খাওয়ার পাশাপাশি, এর সঙ্গে রোজ নিয়মিত ব্যায়াম করা খুবই জরুরী, যদি আর কিছু সম্ভব না হয় তাহলে নিয়ম করে প্রতিদিন হাঁটুন কারণ এটিও একটি ব্যায়াম। তবে এক্ষেত্রে সর্বদায় একথা মনে রাখবেন ঘুম চুরি করতে যাবেন না কারণ শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানোর জন্য প্রতিদিন অত্যন্ত 7 ঘণ্টা ঘুম শরীরের পক্ষে অতি জরুরী।