এবার নিজের লোকেদের কাছেই পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান ব্যঙ্গ-বিদ্রুপের পাত্র হয়ে উঠলেন…

পাকিস্তান প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের করা একটি টুইট তাকে সমালোচনার মুখে ফেললো। টুইটে ভুলের জন্য নেটিজেনদের ব্যঙ্গ-বিদ্রুপ ও কড়া সমালোচনার মুখে পড়তে হল পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানকে।এটি একটি নিতান্ত নির্বিষ ও অরাজনৈতিক টুইট। গত বুধবার দিন একটি টুইট করেন পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান এই টুইটের লেখা রয়েছে , ‘আই স্লেপ্ট অ্যান্ড আই ড্রিমড দ্যাট লাইফ ইজ অল জয়। আই ওক অ্যান্ড আই স্য’ দ্যাট লাইফ ইজ অল সার্ভিস। আই সার্ভড অ্যান্ড আই স্য’ দ্যাট সার্ভিস ইজ জয়।’

আপনারা হয়তো অনেকেই জানেন না উপরে এই লেখাটি কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের লেখা।কিন্তু পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান করা এই পোস্টটিতে এই লেখাটির স্রষ্টা হিসাবে লেখা হয়েছে লেবানিজ- মার্কিন কবি, সাহিত্যিক খলিল জিব্রানের নাম। আর তারপরই তার করা এই টুইট কে ঘিরে শুরু হয় ব্যঙ্গ-বিদ্রুপ, সমালোচনার ঝড় উঠেছে টুইটারে। ইমরান খানের করা এই টুডে প্রথম জবাব দেন এক পাকিস্তানি সাংবাদিক তিনি লেখেন আমার মনে হয় এই কথাগুলি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের লেখা।

আর অন্য দিকে লক্ষ্য করা যায় ভুল শুধরে দেওয়া ছাড়াও অনেকে কড়া সমালোচনার মুখে পড়তে হয়েছে ইমরান খানকে।ইমরান খানের করা  এই পোস্টকে ঘিরে একজন লিখেছেন ‘ইমরানের খানের নতুন মণিমুক্তো’। তবে এখানেই শেষ নয় আরও একজনকে লক্ষ্য করা যাই ইমরান খানের হাসি ঠাট্টা করতে। তিনি লিখেছেন, ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, জানি আপনার নির্বাচিত হওয়ার পিছনে হোয়াটসঅ্যাপের বড় ভূমিকা ছিল। কিন্তু অনলাইনে যা পাবেন, তা হঠাত্ করে ফরোয়ার্ড করে বসবেন না।’

আবার অনেক জনকে লক্ষ্য করা যায় রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের সাহিত্যের সঙ্গে খলিল জিবরানের সাহিত্যের তুলনা করতে।ইমরানের ওই টুইটের পর পেরিয়ে গিয়েছে প্রায় 30-32 ঘণ্টা। তবে গোটা ঘটনায় পাক প্রধানমন্ত্রীর অস্বস্তি এখনও কাটেনি।