ভারতের নতুন মানচিত্র দেখে রাগে ফেটে পড়লো পাকিস্তানের সরকার, মানচিত্রকে অবৈধ বলে দাবি পাক সরকারের

মোদি সরকারের দ্বিতীয় ইনিংসের নেওয়া জম্মু- কাশ্মীর থেকে অনুচ্ছেদ 370 বাতিল করাকে এক ঐতিহাসিক সিদ্ধান্ত হিসাবে মেনে নিয়েছে দেশের জনগণ। আর অন্যদিকে ভারতীয় জনতা পার্টির নেওয়া এরকম এক সিদ্ধান্তে ক্ষুব্ধ রয়েছে সকল পাকিস্তান বাসী থেকে শুরু করে পাক সরকার পর্যন্ত।পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান ভারতের এরকম এক ঐতিহাসিক সিদ্ধান্তের তীব্র বিরোধিতা করতে দেখা গিয়েছে একাধিকবার।

যদিও এই বিষয় নিয়ে ভাতর সরকার পরিষ্কার করে দিয়েছে যেহেতু কাশ্মীর ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয় সেহেতু এতে অন্য কোন দেশের নাক গোলানোর বিষয় নেই, তবুও পাকিস্তান ভারতের আভ্যন্তরীণ বিষয়ে অবিরাম নাক গলানোর চেষ্টা করেই চলছে। যেমন কী আমরা জানি জম্মু কাশ্মীর থেকে অনুচ্ছেদ 370 বাতিল করার পর থেকে মোদি সরকার একটি বড় সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন যেখানে তিনি জম্মু কাশ্মীর, লাদাখ কে দুটি পৃথক কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে বিভক্ত করেছিলেন।

এবার সেটি খাতা-কলমে 31 শে অক্টোবর 2019 থেকে দুটি পৃথক কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে বিভক্ত হয়।যার ফলস্বরূপ 31 শে অক্টোবর 2019 এর জম্মু-কাশ্মীরের নতুন মানচিত্র প্রকাশ করা হয়। তবে এমন পরিস্থিতিতে জম্মু-কাশ্মীরের নতুন মানচিত্র দেখে পাকিস্তান যেন রেগে ফেটে পড়েছে।ভারতে প্রকাশিত এই নতুন মানচিত্র পুরো কাশ্মীর অঞ্চলকে তার অংশ হিসাবে দেখানো হচ্ছে। যেখানে পিওকে নিয়ে কাশ্মীরকে জম্মু কাশ্মীরের সদ্য নির্মিত কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের অংশ দেখানো হয়েছে।

গিলগিট বালতিস্তানকে লাদাখ অঞ্চলে দেখানো হয়েছে। তারপরই পাকিস্তানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় রবিবার দিন একটি বিবৃতি জারি করে বলেছে, যে ভারতের নতুন মানচিত্রটি আইনত ভুল রয়েছে। পাকিস্তান দাবি করে বলেছে এটি জাতিসংঘের সুরক্ষা কাউন্সিলের প্রস্তাবগুলির বিরুদ্ধে করেছে ভারত।পাকিস্তানের বিদেশ মন্ত্রকের তরফ থেকে এই নিয়ে একটি বড় বিবৃতি জারি করা হয়েছে যেখানে তারা বলছে পাকিস্তানি রাজনৈতিক মানচিত্র গুলিকে মানে না যা জাতিসংঘের মানচিত্রের সাথে সঙ্গতিপূর্ণ নয়।”

তবে এখানেই শেষ নয় পাকিস্তান আরো বলে ভারতের যেকোনো পদক্ষেপ বিতর্কিত জম্মু ও কাশ্মীরের স্থিতি পরিবর্তন করতে পারে না, যা ইউএন দ্বারা স্বীকৃত।অর্থাৎ এখান থেকে এটা পরিস্কার হয়ে যাচ্ছে যে পাকিস্তান এখনো পর্যন্ত ভারতের নেওয়া এই পদক্ষেপটিকে মেনে নিতে পারছে না।পাকিস্তান বারবার চেষ্টা করছে কীভাবে ভারতকে এই বিষয়ে দাবিয়ে রাখা যায় তবে ভারত যে কোন প্রকারে দেবে যাওয়ার পাত্র নয় সেকথা তারা ভালভাবেই জানে।

Related Articles

Close