ভোটার কার্ড নিয়ে বেরিয়ে এলো গুরুত্বপূর্ণ ঘোষণা! এড়িয়ে যাবে না নইলে হতে পারে আপনারই বড় ক্ষতি…

মোদী সরকার ক্ষমতায় আসার পরই আধার কার্ড কে দেশের নাগরিক তথ্য হিসাবে সকল সাধারণ মানুষের কাছে তুলে ধরেন। তবে আধার কার্ড আসার পরও দেশের অন্যতম নাগরিক তথ্য-প্রমাণ হিসাবের মধ্যে অন্যতম উল্লেখযোগ্য ছিল ভোটার কার্ড। এমন অনেক জায়গায় থাকতো যেখানে ভোটার কার্ড কেই বেশি প্রাধান্য দেওয়া হত যার দরুন ভোটার কার্ড  ছাড়া হতো না সে কাজ তাই অনেক ক্ষেত্রেই সমস্যায় তৈরি হত।

তারপর আবার কিছুদিন আগেই ভোটার কার্ডের সঙ্গে আধার কার্ডকে সংযুক্তি করণের কথা জানিয়েছিল কেন্দ্র সরকার। আর তারপর থেকেই ভোটার কার্ডের গুরুত্ব আরো অনেক গুণ বেড়ে গেছে সাধারণ মানুষের কাছে। এছাড়া ভোটার কার্ড দেশে বসবাস কারী নাগরিকদের কাছে খুবই গুরুত্বপূর্ণ নথি হিসাবে বিবেচিত।তবে এবার প্রশ্ন আসে কোনভাবে যদি সেটিতে ভুল তথ্য চলে আসে  তবে খুব সহজেই এখন আপনি বাড়িতে বসেই সেটিকে ঠিক করে নিতে পারবেন।

তবে আর দেরি না করে আসুন আপনাদের বলে দেওয়া যাক কিভাবে আপনি এটিকে বাড়িতে বসেই সংশোধন করে নিতে পারবেন। এর জন্য আপনাকে প্রথমে www.nvsp.in ওয়েবসাইটের পেজে যেতে হবে যেখানে গিয়ে Correction of entries in electoral roll অপশনটিকে সিলেক্ট অথবা সরাসরি www.nvsp.in/Forms/Forms/form8 পেজে গিয়ে রেজিস্টার করে লগইন করে নিতে হবে এর জন্য। এরপর ড্রপ ডাউনে গিয়ে আপনার নিজের পছন্দের ভাষাটি বেছে নিতে হবে এরই সাথে আপনার যে বেসিক ইনফরমেশন গুলি রয়েছে সেগুলি সেখানে বসিয়ে দিতে হবে।

এরপর আপনার যে তথ্যগুলি ভুল রয়েছে সেগুলিকে ক্লিক করে ,এরপর সেখানে সঠিক তথ্যগুলি লিখতে হবে। এক্ষেত্রে একসাথে আপনি অনেক তথ্য সিলেক্ট করতে পারেন।তবে শুধু তাই নয় এক্ষেত্রে এবার আপনি নিজের ব্যক্তিগত তথ্য যেমন নিজস্ব ইমেইল আইডি ও ফোন নাম্বার অ্যাড করতে হবে। এক্ষেত্রে আপনি যদি আপনার ভোটার কার্ডে থাকা ছবি পরিবর্তন করতে চান তাহলে একটি নতুন ছবি আপলোড করতে পারেন। আর এক্ষেত্রে যদি আপনার নামের বানান ভুল থাকে তাহলে সে ক্ষেত্রে প্রয়োজন হবে আপনার জন্ম সার্টিফিকেট, প্যান কার্ড বা পাসপোর্ট এর। সবকিছু সম্পন্ন করার পর আপনাকে সাবমিট করে দিতে হবে এই অ্যাপ্লিকেশনের জন্য একটি ই-মেইল ও পাওয়া যাবে আপনার মেইল আইডিতে। আর এই কাজটি সম্পন্ন করার পর 30 দিনের মধ্যে আপডেট হয়ে যাবে আপনার ভোটার কার্ডটি। এক্ষেত্রে আপনি যদি আপনার ভোটার কার্ডের ঠিকানা পরিবর্তন করতে চান তাহলে রেজিস্ট্রেশন ফর্ম এর নিউ ভোটার আইডি কার্ড অপশনে ক্লিক করতে হবে অথবা due to shifting from another constituency তে ক্লিক করতে হবে। আর এক্ষেত্রে একটি নতুন ফর্ম ওপেন হয়ে যাবে যেখানে এটিকে সম্পূর্ণ ফিলাপ করে নিতে হবে। আর এক্ষেত্রে একথা মনে রাখবেন এখানে লেখা কোন তথ্যই যাতে ভুল না হয় না হলে সেই ভুল তথ্য আপনার ভোটার আইডি কার্ডেও চলে আসবে।

তবে এই সব কমপ্লিট হয়ে যাবার পর এক্ষেত্রে আপনাকে কিছু ডকুমেন্ট আপলোড করতে হবে যে গুলি নিম্নরূপ- ছবির স্ক্যান কপি, ঠিকানার প্রমাণপত্র, বয়সের প্রমাণপত্র। প্রয়োজনীয় এই ডকুমেন্টগুলি আবেদন করার পর ইলেকশন কমিশনের কর্মকর্তারা দেখবেন।এক্ষেত্রে সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে আগামী এক মাসের মধ্যে আপনার ভোটার আইডি কার্ড আপনার বাড়িতে পৌঁছে যাবে।

Related Articles

Close