কানে হেডফোন লাগিয়ে ঘুমানোর শেষ পরিণতি কি হলো দেখলে ভয়ে আপনার গা শিউরে উঠবে।

হেডফোন আমাদের অনেকেরই সাথী। অনেকেই কানে হেডফোন লাগিয়ে রাত্রে ঘুমানোর অভ্যাস রয়েছে। তবে এর ফলে কি কি ক্ষতি হয় তা জানলে আপনার এটিকে অভ্যাস নয় বদ অভ্যাস বলবেন। আর এটা কত বড় ক্ষতি তা হাতেনাতে প্রমাণ পাওয়া গেল মালেয়েশিয়ার এক কিশোরের ঘটা দুর্ঘটনায়। মালয়েশিয়ার 16 বছর বয়সী কিশোর কানে হেডফোন লাগিয়ে ঘুমোচ্ছিলেন। কিন্তু সেই ঘুম আর ভাঙ্গে নি তার। তড়িদাহত হয়ে মৃত্যু হল ওই 16 বছর বয়সী কিশোরের।এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমের প্রকাশিত খবর থেকে জানা যায় ওই কিশোরের নাম হল মোহাম্মদ আইদিল আজহার জাহরিন।

ঘুমোনোর সময় ওই কিশোর কানে হেডফোন লাগিয়ে গান শুনছিলেন। শুধু গানেই শুনছিলেন তা না তার সাথে ফোনটি সে চার্জে দিয়ে ছিল। ফলের চার্জ হতে হতে একসময় ফোনটি গরম হয়ে যায় এবং বিদ্যুৎপৃষ্ঠ হয় ওই কিশোর। তার কান পুড়ে যায় এবং কানের ভিতর থেকে রক্তপাত শুরু হয়। এই মর্মান্তিক ঘটনাটি ঘটে মালয়েশিয়ার নেগেরি সেম্বিলান প্রদেসের রেমবাউ টাউনে।জাহরীনের মা ভোরে উঠে কাজে গিয়েছিলেন এবং কাজ থেকে ফিরে এসেই তার ছেলেকে ঘুম থেকে উঠানোর জন্য ডাকেন তিনি।

আর তখনই বোঝা যায় যে সে মারা গিয়েছে। জানা গিয়েছে যে ফোনের সঙ্গে ওই তারটি হাত দেওয়াতে তার ভাই ও শক খেয়ে গিয়েছিলেন। কিশোরের এই মৃত্যুর পরে আমরা নিশ্চয়ই বুঝতে পারছি যে ফোন চার্জে দেওয়ার সময় ফোন করা বা গান শোনা বা মোবাইলের যে কোন কাজ করা কতটা বিপদজনক হতে পারে।

Related Articles

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Close