দুই টাকার এই কয়েনটি আপনার কাছে থাকলে আপনিও হতে পারেন কোটিপতি ,তাই দেরি না করে…

বর্তমান দিনে একটা দুই টাকার কয়েনের কতটুকু মূল্য তা সকলেই জানি। এখনো অনেক ভিখারি আছে যাদের দু টাকা দিলে হয়তো তারা নেন না। কিন্তু আপনারা কখনো এটা ভেবে দেখেছেন যে একটি দুই টাকার কয়েন আপনাকে এনে দিতে পারে তিন লক্ষ টাকা। দুই টাকার কয়েন ঘুরিয়ে দিতে পারে আপনার ভাগ্যকে। এটা শোনার পর হয়তো অনেকেই চমকে গেলেন, কিন্তু কথাটা কল্পনার মতো লাগলেও এটাই সত্যি। অন্ধপ্রদেশের এক ব্যক্তি বি চন্দ্রশেখর এরকম ঘটনা ঘটিয়ে ফেলেছেন।

অন্ধ্রপ্রদেশের এই চন্দ্রশেখর একটি ভিন্টেজ কয়েনের দোকান চালান। হায়দ্রাবাদের ওয়ার্ল্ড তেলেগু কনফারেন্সের অফিসের ঠিক সামনেই রাস্তার ধারে এনার একটি ছোট্ট দোকান রয়েছে। চন্দ্রশেখরের এই দোকান থেকে পুরনো কয়েন বিক্রি করা হয়। যেহেতু এনার দোকানটি তেলেগু কনফারেন্সের অফিসের সামনে তাই ওখানে লোকজনের যাওয়া আসা প্রায় লেগেই থাকে। তাদের মধ্যে অনেক উৎসাহী ব্যক্তিরা চন্দ্রশেখরের দোকানে উঁকিঝুঁকি মারেন। আমাদের মধ্যে অনেকেই পুরনো কয়েন সংগ্রহ করায় আগ্রহী থাকি।

সেরকম ব্যক্তি চন্দ্রশেখরের দোকানে এসে পুরনো কয়েন প্রায় সময় কিনে নিয়ে যান। আর এখানে যা রোজগার হয় তাতে চন্দ্রশেখরের সংসার চলে যায়।
পুরনো কয়েন চালিয়ে শুধু সংসার চালানোয় নয় বলতে গেলে বলা যায় লাখপতি হয়ে গেছেন চন্দ্রশেখর। এতদূর পর্যন্ত মানা যায় এরপরে আশ্চর্য হয়ে যাবার মতন ঘটনাটি হল মাত্র একটি দুই টাকার কয়েনের দ্বারা তিনি তিন লক্ষ টাকা উপার্জন করে ফেলেন। দিন কয়েক আগে এই চন্দ্রশেখরের দোকান থেকে একজন ব্যক্তি তিন লক্ষ টাকা দিয়ে একটি দুই টাকার পুরনো কয়েন কিনে নিয়ে গেছেন।


এখন সবার মনে প্রশ্ন এই দুই টাকার কয়েন এর মধ্যে এমন কী রয়েছে যার দাম তিন লক্ষ টাকা হয়ে গেল। আসলে এই কয়েনটি তৈরি হয়েছে 1973 সালের মুম্বাই মিন্টে। এবার আপনাদের জানিয়ে দিই, মুম্বাই মিন্ট হলো ভারতের সবচেয়ে প্রাচীনতম টাঁকশাল গুলির মধ্যে অন্যতম। এখানে যে সমস্ত মুদ্রা তৈরি করা হতো তাতে ডটের আকারে হীরের ছবি খোদাই করা থাকত। ফলে যারা পুরনো কয়েন সংগ্রহ করেন তাদের জন্য এই ধরনের কয়েনের মূল্য অনেক। চন্দ্রশেখর বাবু জানতেন এই কয়েনটি এর মূল্য বেশি হতে পারে তাই তিনি সুযোগ বুঝে ওই কয়েন টির দাম চড়া হাঁকেন। শেষ পর্যন্ত দর কষাকষিতে চন্দ্রশেখর বাবু তিন লক্ষ টাকায় বিক্রি করেন ওই দুই টাকার কয়েনটি।

Related Articles

Close