ব্যাঙ্কে আয়ের তুলনায় বেশি টাকা থাকলেই 83 শতাংশ জরিমানা দিতে হতে পারে আপনাকে…

আপনি যদি কিছুদিন আগে আপনার ব্যাংক অ্যাকাউন্টে মোটা অ্যামাউন্ট ক্রেডিট করেছেন তাহলে সময় থাকতে সাবধান হয়ে যান কারণ এবার যে তথ্যটি বেরিয়ে আসছে সেখানে জানতে পারা যাচ্ছে আইটি বিভাগ এর সন্ধান পেলেই এর জন্য আপনাকে ভারী কর দিতে হতে পারে। 69A আয়কর আইন অনুযায়ী আপনি যদি ভারী গয়না কিংবা বড় অ্যামাউন্টের টাকা আপনার ব্যাংক অ্যাকাউন্টে রেখে থাকেন তাহলে সেগুলো কোথা থেকে এল তার ব্যাখ্যা দিতে হবে এক্ষেত্রে ইনকাম ট্যাক্স ডিপার্টমেন্ট কে। শুধু তাই নয় যথার্থ বিবরণ দেওয়ার পর এর উপযুক্ত কাগজপত্র দেখাতে হতে পারে আপনাকে।

 

আর যদি এক্ষেত্রে আপনি সেটি দেখাতে না পারেন তাহলে সে সমস্ত জিনিস গুলি সিল করে দেওয়া হবে।এক্ষেত্রে আপনাকে প্রায় 84 শতাংশ ফাইন দিতে হতে পারে যেখানে রয়েছে 60 শতাংশ কর এবং 25 শতাংশ সারচার্জ তার সাথে রয়েছে 6 শতাংশ জরিমানা। তবে এক্ষেত্রে এই যে 6 শতাংশ জরিমানার পরিমাণটি রয়েছে সেটি যদি আগের বছর ট্যাক্স প্রদান করে থাকেন তাহলে তার প্রয়োজন পড়বে না। বলে রাখি আয়কর আইনের ধারা 64A অনুযায়ী কালো টাকা ব্যাংক অ্যাকাউন্টে ক্রেডিট করা হলে ধরে ফেলবে কর্মকর্তারা।

তাই টাকা হোক, কিংবা স্বর্ণ হোক, কিংবা অন্যান্য জিনিসই হোক না কেন এক্ষেত্রে যদি সঠিক কাগজ না থাকে তাহলে তার উপর ইনকাম ট্যাক্সের কর্মকর্তারা ফাইন বসাতে পারে। দেশজুড়ে প্রচুর পরিমাণে কালোবাজারি টাকা লেনদেন হওয়ার কারণেই এবার কেন্দ্রীয় সরকারের তরফ থেকে এরকম একটা সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। যদিও এর আগে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে কড়া সিদ্ধান্ত গ্রহণ করতে দেখা গেছে যেখানে 2016 সালের 8 ই নভেম্বরে নোট বন্দির ঘটনা লক্ষ্য করা গিয়েছে যার জেরে রাতারাতি নিষিদ্ধ করা হয়েছিল পাঁচশো এবং হাজার টাকার নোট। যেখানে একাধিক মানুষকে প্রচুর পরিমাণে বে-আইনিভাবে টাকা ব্যাংকে জমা করতে দেখা গিয়েছিল। আর তখনই এই গোটা বিষয়টি আয়কর দপ্তর এর কর্মকর্তাদের নজরে আসে এই সমস্ত কারণেই আয়ের বিষয়ে কোন প্রশ্ন ছাড়াই এই জাতীয় অজ্ঞাত আয়ের উপর ফাইন চাপানো হয়।