লকডাউনের জেরে বিমানের টিকিট ক্যান্সেল করলে টাকা ফেরত পাবেন? কেন্দ্রের তরফে জারি নতুন নির্দেশিকা..

যেমনটা আমরা জানি গত 14ই এপ্রিল দেশজুড়ে করোনা পরিস্থিতির মোকাবিলা করতে আবার ও প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদি লকডাউনকে আগামী 3 মে পর্যন্ত বাড়ানোর ঘোষণা করেছিলেন। আর প্রধানমন্ত্রী এরকম ঘোষণা করার পরই আগামী মে মাসের 3 তারিখ পর্যন্ত বন্ধ রয়েছে সমস্ত দেশীয় ও আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর যার ফলে বন্ধ রয়েছে বিমান পরিষেবাও। তবে এরপর একাধিক প্রশ্ন শোনা যাচ্ছিল এমন অবস্থায় বিমানের টিকিট ক্যান্সেল করলে টাকা ফেরত পাওয়া যাবে না আর এমনটা জানানো হচ্ছিল নাকি সংস্থাগুলির তরফ থেকে।

আর তারপরই উপভোক্তাদের টাকা ফেরত পাওয়ার বিষয়টি নিয়ে নিশ্চিত করতে একটি জরুরি বৈঠকের আয়োজন করা হয় অসামরিক বিমান পরিবহন মন্ত্রী সচিব প্রদীপ খরোলার তরফ থেকে যেখানে ট্রাভেল এজেন্ট ফেডারেশন অফ ইন্ডিয়া প্রতিনিধির সঙ্গে বৈঠক করেন তিনি এই বিষয় নিয়ে, শুধু তাই নয় এই বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন আন্তর্জাতিক উড়ান সংস্থার প্রতিনিধিরাও। তবে এখন কেন্দ্রের তরফ থেকে যে নির্দেশ জারি করা হয়েছে সেখানে জানানো হয়েছে যে লকডাউন এর প্রথম পর্বে যেসব যাত্রীরা টিকিট কেটেছিলেন তাদের যাবতীয় টিকেট ক্যান্সলেশন এর ক্ষেত্রে টাকা ফেরত দেওয়া বাধ্যতামূলক, আর বিমান সংস্থাগুলিকে এই সংক্রান্ত নির্দেশ পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে ইতিমধ্যে কেন্দ্রের তরফ থেকে।

এর আগে বিভিন্ন বিমান সংস্থাগুলি সিদ্ধান্ত নিয়ে জানিয়েছিল দেশের আভ্যন্তরীণ বিমান পরিষেবা সংগঠনগুলির যে টিকিট কাটা হয়েছে তা ক্যানসেল করা হলে যাত্রীদের কোন রকম টাকা ফেরত দেওয়া হবে না এই ধরনের সময়ে। তবে এক্ষেত্রে টিকিটটি রিসিডিউল করার প্রস্তাব দেওয়ার কথা বলা হয়েছিল তাদের তরফ থেকে। এক্ষেত্রে রিসিডিউল করবার জন্য কোনো এক্সট্রা বাড়তি টাকা ধার্য করা হবে না এমনটা জানানো হয়েছিল তাদের তরফে। তবে এখন প্রশ্ন যারা 15 এপ্রিলের পর থেকে আগামী 3 রা মে এর মধ্যে টিকিট কেটেছেন তারা কী করবেন এক্ষেত্রে। তো তাদের জন্য এবার অসামরিক বিমান পরিবহন মন্ত্রকের তরফ থেকে বেরিয়ে আসা এক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে যারা 15 এপ্রিল থেকে আগামী 3 মে পর্যন্ত টিকিট কেটেছেন তাদের ক্ষেত্রে কিন্তু কোন টাকা ফেরত দেওয়া হবে না বরং তাদের টিকিটকে এক্ষেত্রে কেবলমাত্র রিসিডিউল করা হবে।