আলোচনার মাধ্যমে সমস্যার সমাধান না হলে করা হবে সেনা প্রয়োগ, চীন ইস্যুকে বড় ইঙ্গিত রাওয়াতের…

লাদাখ সীমান্তে ভারত এবং চীনের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছিল তা এখনো অনেক দিন পেরিয়ে গেছে তবে এখনো দুই দেশের মধ্যে পরিস্থিতি উত্তপ্ত রয়েছে। শুধু তাই নয় এই সীমান্ত বিভাগ নিয়ে একাধিকবার আলোচনা করা হয়েছে ভারত চীনের মধ্যে তবে এখনো পর্যন্ত এর কোনো ইতিবাচক দিক লক্ষ্য করা যায়নি। তবে এবার এই ইস্যু নিয়ে বড়োসড়ো ইঙ্গিত দিলেন ভারতের চিপ অফ ডিফেন্স স্টাফ বিপিন রাওয়াত।তিনি জানালেন এক্ষেত্রে চীনের সাথে যদি আলোচনা কোনো ইতিবাচক দিক নিয়ে না বেরিয়ে আসে এবং আলোচনার মাধ্যমে সমঝোতার চেষ্টা যদি বিফল হয় তাহলে ভারতের হাতে সেনারাই এর একমাত্র উপায়।

অর্থাৎ সেনাপ্রধান বিপিন রাওয়াত এর কথায় এটা স্পষ্ট জানতে পারা গেছে ভারতের সঙ্গে চীনের লাদাখ বিষয় নিয়ে আলোচনা যদি কোন সমাধান বেড়িয়ে না আসে তাহলে সেনা এই সমস্যার সমাধান করবে। দিন তিনি জানান সীমান্ত নিয়ে বিভিন্ন লাইন অফ কন্ট্রোল এর ঝামেলা উৎপত্তি হচ্ছে কিন্তু ভারতের প্রতিরক্ষা বাহিনী এই পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে যথেষ্ট যোগ্য ও নিপুন। আর সরকারের তরফ থেকে বারবার এই গোটা বিষয়টিকে শান্তিপূর্ণভাবে আলোচনার মাধ্যমে মিটিয়ে নেওয়ার চেষ্টা চালানো হচ্ছে।

তবে যদি পরিস্থিতি খারাপের দিকে এগোয় তাহলে প্রতিরক্ষা বাহিনী যে সব সময় তৈরি রয়েছে তার কথাও তিনি সর্বভারতীয় সংবাদ মাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে উল্লেখ করেন। প্রসঙ্গত লাদাখ সীমান্তে চীন এবং ভারতের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছিল তারপর থেকে কেন্দ্রীয় সরকারকে চীনকে শায়েস্তা করতে একাধিক পদক্ষেপ গ্রহণ করতে দেখা দিয়েছে। কখনো লক্ষ্য করা গেছে ভারত থেকে একাধিক চীনা অ্যাপ্লিকেশন ব্যান করে দিতে আবার কখনো দেখতে পাওয়া গেছে চীনের সাথে করা একাধিক চুক্তি বাতিল করতে। তাছাড়া লাদাখ সীমান্তে গিয়ে একাধিকবার পরিস্থিতির পরিদর্শন করেছেন দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী, প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত দোভাল। তাই এবার যদি আলোচনার মাধ্যমে কোন সমস্যার সমাধান না বের হয় তাহলে সেনাপ্রধানের দেওয়া এরকম ধরনের মন্তব্য যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করা হবে।