নতুন খবরবিশেষভারতীয় সেনা

প্রধানমন্ত্রী মোদির “মেক ইন ইন্ডিয়া” ডাকে সাড়া দিয়ে আমেরিকার সঙ্গে চুক্তি বাতিল ভারতীয় বায়ুসেনার

গোটা বিশ্ব জুড়ে চলছে করোনা ভাইরাসের আতঙ্ক আর এই আতঙ্কের মধ্যে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি দেশকে আত্মনির্ভর গড়ে তোলার ডাক দিয়েছেন। যার দরুন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির দেশীয় শিল্পকে আরো বেশি করে জোর দেওয়ার কথা জানিয়েছেন এর পাশাপাশি একাধিক ক্ষেত্রে বিদেশি প্রযুক্তির জায়গায় দেশীয় প্রযুক্তিকে উন্নত করার ডাক দিয়েছেন। তবে এবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ডাকে দেশীয় প্রযুক্তির ওপর নির্ভর করার যে সারা জানানো হয়েছিল সেই ডাকে সাড়া দিয়ে আমেরিকার সঙ্গে একটি চুক্তি বাতিল করেছে ভারতীয় বায়ুসেনা।

তবে শুধু তাই নয় ব্রিটেন ও সুইজারল্যান্ড এর সঙ্গে চুক্তি বাতিল করে দেশীয় নির্মাতাদের প্রাধান্য দেওয়ার কথা জানিয়েছেন তারা। এই বিষয়ে সংবাদ সংস্থা ANI কে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে বায়ু সেনার প্রধান আরকেএস ভাদোরিয়া জানান বায়ুসেনার 80 টি জাগুয়ার বোমারু বিমানের জন্য আমেরিকা থেকে আধুনিক ইঞ্জিন কেনার কথা ছিল ভারতে কিন্তু এবার প্রতিরক্ষার স্বনির্ভর হতে সেই চুক্তিকে বাতিল করা হয়েছে। শুধু তাই নয় এবার থেকে বিমান নির্মাতা HAL এর থেকে ইঞ্জিনের আধুনিকরণ করানো হবে।

তার পাশাপাশি বায়ু সেনার প্রধান আরও জানান দেশীয় নির্মাতাদের উৎসাহ দিতে এক্ষেত্রে সুইজারল্যান্ড থেকে 38 টি পিলাটাস ট্রেনার বিমান ও ব্রিটেন থেকে হক বিমান কেনার কথা ভাবা হচ্ছিল সেটি আর কেনা হবে না। যেখানে এক হাজার কোটি টাকা দিয়ে এই পিলাটাস ট্রেনার বিমান কেনার কথা ছিল সেটির পরিবর্তে এবার HAL নির্মিত 70 টি HTT-40 বিমান কিনতে চলেছে বায়ুসেনা। আর যারা জানেন না তাদের উদ্দেশ্যে বলে রাখি এই বিমানগুলি পাইলট দের প্রশিক্ষণ দিতে ব্যবহার করা হবে।

প্রসঙ্গত যেমনটা আমরা জানি করোনা মহামারীর মোকাবিলায় জেরে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি কুড়ি লক্ষ কোটি টাকার আর্থিক প্যাকেজের ঘোষণা করেছিলেন যেখানে তিনি ভারতকে আত্মনির্ভর করে তোলার লক্ষ্যে অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ এই আর্থিক প্যাকেজটি নিয়ে চারদিন ধরে বিস্তারিত আলোচনা করেন। আর সেই আলোচনার মধ্যে বেশকিছু সামরিক সরঞ্জাম আমদানিতে নিষেধাজ্ঞা জারী করার কথা তিনি জানিয়েছিলেন। এর পাশাপাশি প্রতিরক্ষার ক্ষেত্রে প্রত্যক্ষ বিনয়োগে সায় দিয়েছিল কেন্দ্র।

তবে এক্ষেত্রে যদি দেখতে পাওয়া যায় তাহলে ভারতের নাম কিন্তু বিশ্বের অস্ত্র বাজারে অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ ক্রেতা হিসাবে খ্যাত। তাছাড়া রাশিয়া ও মার্কিন অস্ত্র নির্মাতাদের কাছেও নয়া দিল্লির গুরুত্ব অনেকখানি অপরিসীম। তাই এবার দেখার বিষয় হচ্ছে এরকম এক পরিস্থিতিতে আমদানি সঙ্গে জড়িত থেকে কৌশলগত হিসেবে  কিভাবে সামাল দেবে আগামীদিনে মোদি সরকার তার সময়েই জানিয়ে দিবে।

Related Articles

Back to top button