‘মন খুলে কাজ করতে পারব’, নবান্নে গিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর সাথে দেখা করে আনন্দিত বাবুল সুপ্রিয়

বিজেপি দল ত্যাগ করে এই কিছু দিন আগে তৃণমূল কংগ্রেস এ যোগ করেছেন প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী (বন দপ্তর ও পরিবেশ) বাবুল সুপ্রিয়। এই দুই দিনের মধ্যেই তাকে দেওয়া সময় সূচি মেনেই ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, সোমবার নবান্ন তে গিয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এর সাথে দেখা করে আসলেন আসানসোল এর সাংসদ বাবুল সুপ্রিয়। সাথে ছিলেন সাংসদ ডেরেক ও ব্রায়েন ও তৃণমূল কংগ্রেস এর সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়।

সেদিন দুপুরে নবান্ন এ আসেন বাবুল সুপ্রিয়। মুখ্যমন্ত্রী তখন ঘরে বসে দুজন এর মধ্যে আধঘণ্টা ধরে কথাবার্তা হয়। বিভিন্ন বিষয় নিয়ে দুজনের ভিতর কথা হয়েছে বলে জানিয়েছেন সাংসদ। নবান্ন থেকে বেরোনোর পর এ ব্যাপার নিয়ে বাবুল বলেন, “আমি আজ খুশি। দিদির ভালবাসা, উষ্ণ অভ্যর্থনায় আমি আপ্লুত।  মন খুলে কাজ করতে পারব।”

কিন্তু দলে তাঁর কাজ কি হবে সেটার বিষয়ে ভবিষ্যতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ঠিক জানিয়ে দেবেন বলে জানিয়েছেন আসানসোল এর সাংসদ বাবুল সুপ্রিয়। বাবুল বললেন, “দিদি, অভিষেক যা দায়িত্ব দেবেন তা পালন করব। মন খুলে গানও গাইতে পারব। দিদি যে গান গাইতে বলবেন, সেই গান গাইব।” নবান্ন থেকে বেরিয়ে তাৎপর্যপূর্ণ মন্তব্য করেন আসানসোলের সাংসদ। তাঁর কথায়, “এর আগেও একাধিকবার দিদির সঙ্গে আমার দেখা হয়েছে। বিভিন্ন বিষয় কথা হয়েছে। এদিনও তাই হল। অন্য জায়গা থেকে এখানে এসেছি। কিন্তু দিদি, অভিষেক আমাকে আপন করে নিয়েছেন।”

Advertisements

সেদিন বাবুল আরও জানান, “দিদি বলেছেন মন খুলে কাজ করতে। সঙ্গে মন খুলে গান করতেও বলেছেন।” মমতা ব্যানর্জির ও বাবুল সুপ্রিয় এর মিটিং নিয়ে স্বাভাবিক ভাবে ঝালমুড়ি এর ব্যাপার এ কথা উঠে আসে। সে কথা নিয়ে তাকে প্রশ্ন করতেই আসানসোল এর সাংসদ বাবুল সুপ্রিয় বলেন, “এখন দেখা গিয়েছে মুড়ি খেলে মোটা হয়ে যাচ্ছে। ইউরিয়া মেশানো হচ্ছে মুড়িতে। তাই দিদি সেই মুড়ি খেতে বারণ করেছেন। উনিও খাচ্ছেন না।”

Advertisements

১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১ এ তৃণমূল কংগ্রেস এর সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় এর হাত ধরে তৃণমূল কংগ্রেস এ যোগ দিলেন বাবুল সুপ্রিয়। যোগদান এর অনুষ্ঠান এ ছিলেন তৃণমূল সাংসদ ডেরেক ও’ব্রায়েন । তৃণমূল কংগ্রেস এর সূত্রে খবর, লোকসভা এর সাংসদ পদ ছেড়ে দিতে পারেন বাবুল।তার জায়গায় অর্পিতা ঘোষের ছেড়ে যাওয়া সাংসদ পদে রাজ্যসভায় যাওয়ার আশঙ্কা বাবুলের।