কীভাবে আপনার মোবাইলের ব্যক্তিগত তথ্য সুরক্ষিত রাখবেন! জেনে নিন এক ঝলকে….

যত দিন যাচ্ছে ততই মানুষ ডিজিটাল এর দিকে ঝুঁকে যাচ্ছেন। আগে যেগুলো আমরা বাইরে দৌড়াদৌড়ি করে করতাম সেগুলি এখন স্মার্টফোনের মাধ্যমে ঘরে বসেই হয়ে যাচ্ছে। বর্তমানে এখন ইলেকট্রিক বিল, মোবাইল রিচার্জ, টিকিট বুকিং, শপিং ঘরে বসেই করা যায়। কিন্তু আমাদের চিন্তার বিষয় হল মাঝে মাঝে প্রযুক্তির দুর্ব্যবহার ও খবরের শিরোনামে উঠে আসে। বর্তমান দিনে হ্যাকারদের হাত থেকে ডাটা সুরক্ষিত রাখা সব থেকে বড় চ্যালেঞ্জ। কতটা ডাটা সুরক্ষিত থাকবে তা পুরোটাই আপনার উপর নির্ভর করছে। আপনাদের সচেতন করতেই নিচে কতকগুলো টিপস দেওয়া হলো যে গুলির দ্বারা আপনি আপনার গুরুত্বপূর্ণ ডাটা সুরক্ষিত রাখতে পারবেন।

1. আপনি যদি অ্যান্ড্রয়েড ইউজার হন তাহলে শুধুমাত্র গুগল প্লেস্টোর থেকে অ্যাপস ডাউনলোড করে ব্যবহার করুন। এটি হলো আপনার কাছে সব থেকে সুরক্ষিত পদক্ষেপ। প্লে স্টোরে যদি ক্ষতিকর অ্যাপ থাকে তাহলে সঙ্গে সঙ্গে ইউজারদের জানিয়ে দেয় এবং তা প্লে স্টোর থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়। মোবাইলে যদি আপনার গুরুত্বপূর্ণ তথ্য থাকে তাহলে অবশ্যই প্যাটান বা পিন লক করে রাখুন। আপনার ফোন যদি গুগল একাউন্টে লগ ইন করা থাকে তাহলে সেটা আরো ভালো। আপনার ফোনটি যদি হারিয়ে যায় তাহলে android.com/find ওয়েবসাইটে গিয়ে খুঁজে পেতে পারেন।
2. ফোনের ব্যক্তিগত তথ্য সুরক্ষিত করে রাখার দায়িত্ব সম্পূর্ণ আপনার। কোন থার্ড পার্টি অ্যাপ্লিকেশন এর লোভে পা দিয়ে আপনি যদি গুরুত্বপূর্ণ ডাটা দিয়ে ফেলেন, তাহলে আপনি সমস্যায় পড়তে পারেন। অনেক সময় আপনার দেওয়া তথ্যের মাধ্যমে ওই থার্ড পার্টি অ্যাপ্লিকেশনটি আপনার ক্যামেরা, লোকেশন, কন্টাক্ট নম্বর ইত্যাদি ব্যবহার করে নিতে পারে আপনার অজান্তে। এই সমস্ত অ্যাপ গুলিতে তথ্য দেওয়ার আগে সেই অ্যাপ এর সম্পর্কে জেনে নিয়ে তারপর দেবেন।

3. অ্যান্ড্রয়েড ইউজারদের ক্ষেত্রে গুগোল অ্যাকাউন্টটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এটি ছাড়া আপনি প্লে স্টোর খুলতে পারবেন না। আর প্লে-স্টোর না খুলতে পারলে আপনি কোনও অ্যাপ্লিকেশনও ডাউনলোড করতে পারবেন না। তাই গুগল একাউন্টটি আপনার জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। গুগল একাউন্টের বারবার পাসওয়ার্ড বদলান এবং গুগলের নির্দেশাবলী মেনে চলুন।
4. একই পাসওয়ার্ড দিয়ে একাধিক অ্যাকাউন্ট লগ ইন করার অভ্যাস আমাদের মধ্যে অনেকেরই রয়েছে। যাদের এই অভ্যাসটি রয়েছে তারা যত তাড়াতাড়ি সম্ভব এই অভ্যাসটি পরিবর্তন করুন, নইলে বিপদ বাড়বে। মানে ব্যাপারটি হলো, ধরুন আপনার বাড়ি,গাড়ি,অফিস সমস্ত কিছুর একটি চাবি আর সেই চাবিটি যদি চুরি হয়ে যায় তাহলে আপনি বিপদের মধ্যে পড়ে যাবেন এটিও ঠিক একই ব্যাপার। তাই প্রত্যেকটি একাউন্টের আলাদা আলাদা পাসওয়ার্ড দেওয়া হলেও বুদ্ধিমানের কাজ। শুধু আলাদা আলাদা পাসওয়ার্ডেই নয়,পাসওয়ার্ড যেমন শক্ত হয় সেদিকেও লক্ষ্য রাখতে হবে আপনাকে।

5. মাঝে মাঝে আপনার মোবাইলে যে আপডেট আসে তা আপডেট করে নিন। এতে আপনার মোবাইলটি সুরক্ষিত থাকবে। এছাড়াও যে টু স্টেপ ভেরিফিকেসন থাকে সেটি করে নিন। অদ্ভুত নাম্বার থেকে ফোন এলে সেই ফোন ভুলেও ধরবেন না। হোয়াটসঅ্যাপ বা অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়ায় সমস্ত লিংকে ক্লিক করবেন না, হয়তো আপনি লিংকটি ক্লিক করলেই আপনার মোবাইলের সমস্ত তথ্য হ্যাকারদের হাতে  চলে যেতে পারে।

Related Articles

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Close