কী করে বুঝবেন আপনি করোনাভাইরাস আক্রান্ত হয়েছেন কীনা? তাই দেরি না করে এখুনি দেখে নিন…

করোনা ভাইরাসে আতঙ্কিত সারাদেশ। ইতিমধ্যে ইতালী ও চিনে মৃত্যু মিছিল শুরু হয়ে গেছে। ভারত দিনে দিনে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। ফলে সারা দেশের মানুষ চিন্তিত। সামান্য সর্দি কাশি হলে মানুষের মনে ভয় ঢুকে যাচ্ছে এই বুঝি করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গেলাম। মানুষের মনে ভয় সৃষ্টি হওয়া একটা স্বাভাবিক ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে এখন। কারণ আমরা সোশ্যাল মিডিয়াতে দেখছি চিন ও ইতালির কতটা করুন অবস্থা।

সাধারণত বিদেশ থেকে আসা কোন ব্যক্তির সংস্পর্শে থাকলে আপনার করোনাভাইরাস হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। কিন্তু আস্তে আস্তে পরিস্থিতি যে দিকে এগোচ্ছে তাতে বিদেশ থেকে আশা ব্যক্তিদের সংস্পর্শে না থাকলেও যে আপনার করোনা ভাইরাস হবে না তার কোনো মানে নেই। কিন্তু কী কী উপসর্গ হলে আপনি বুঝতে পারবেন যে আপনি করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হতে পারেন সেগুলি নিয়ে আমরা নিচে আলোচনা করবো –
1. প্রথম দিন থেকে তৃতীয় দিন – জ্বরের সাথে থাকবে আপনার হালকা গলা ব্যথা। 2. চতুর্থ দিন – এরপর পরিস্থিতি আস্তে আস্তে আরও কঠিন হয়ে আসবে জ্বর ও গলা ব্যথার সাথে সাথে দেখা দেবে গলা ভাঙ্গা, ক্ষুধাহীনতা, মাথা যন্ত্রণা, ডায়রিয়া এবং শরীরের তাপমাত্রা ক্রমশ বাড়তেই থাকবে।

4. পঞ্চম দিন – পরপর তিন চারদিন জ্বর অনুভব করার পরে ক্লান্তি অনুভব করবেন এবং মাংসপেশীতে ব্যথা করবে এবং শুকনো কাশি হবে।
5. ষষ্ঠ দিন – শরীরে 100° মতন জ্বর থাকবে,শুকনো কাশি হবে। এবং ষষ্ঠ দিনে যুক্ত হবে অসম্ভব শ্বাসকষ্ট এবং ডায়রিয়া আর সাথে বমিও হবে।
6. সপ্তম দিন – জলের পরিমাণ ধীরে ধীরে বাড়তে থাকবে 100 ডিগ্রীর বেশি তাপমাত্রা হবে। এর সাথে সাথে বমি এবং ডায়রিয়া হবে। 7. অষ্টম এবং নবম দিন – উপসর্গ ধীরে ধীরে আরো বাড়তে থাকবে এবং শ্বাসকষ্ট হবে। এই সময়টি ঋতু পরিবর্তন হওয়ার সময়। ফলে প্রায় সমস্ত বাড়িতেই জ্বর, সর্দি, কাশি, হাঁচি লেগেই আছে। ফলে এই সময় বাড়িতে বসে প্যারাসিটামল না খেয়ে ডাক্তারের পরামর্শ নিয়ে ওষুধ খান। এর ফলে আপনি নিজেও সুস্থ থাকবেন এবং অপরকেও সুস্থ রাখবেন। এই ভাইরাস নিয়ে চারদিকে আতঙ্ক ছড়াবেন না। নিজেও আতঙ্কে থাকবেন না এবং কোনরকম গুজবে কান দেবেন না।

Related Articles

Close