এক বিরল ঘটনার সাক্ষী রইল রাজস্থানের মরু রাজ্য! যা এর আগে কোনদিন ঘটেনি, একেই বলে প্রকৃতির আরো এক রূপ…

চারদিকে যেন বরফে ঢাকা কোথাও কোথাও বরফের ওপর দাঁড়িয়ে রয়েছে পাতা ঝরে যাওয়া ন্যাড়া গাছ।চারিপাশে যেদিকে চোখ যায় শুধু বরফ আর বরফ দেখলে যেন মনে হচ্ছে এটা হিমাচল প্রদেশের মনালি বা কাশ্মীরের গুলমার্গ। তবে এই দুটি জায়গার মধ্যে কোনোটিই নয় এমন এক দৃশ্য দেখা গেল এবার মরুর রাজ্য রাজস্থানে। যেখানে চারদিকে ঢেকে রয়েছে পুরু বরফের চাদরে। মাত্র কুড়ি মিনিটে শিলা বৃষ্টির ফলে তুষারে ঢেকে গেল রাজস্থানের নাগৌর, একেই বলে প্রকৃতির এক আজব রুপ।

এরকম এক দৃশ্য দেখে অনেকেই সেই এলাকার ছবি ও ভিডিও করে নেট দুনিয়ার মানুষদের চোখে তুলে ধরেন, যা দেখে সকলেই প্রায় অবাক হয়ে গেছে। কারণ যে মরুশহরে জলের দেখা পাওয়া মানে হলো বিশাল সৌভাগ্যের ব্যাপার সেখানে কি না এবার মরু উপদেশের অনুভূতি, চমকে দিয়েছে সবাই কে। গত বৃহস্পতিবার ও শুক্রবার দিন বদলে গিয়েছে রাজস্থানের নাগৌরের চেহারা তবে কেন এই মরুর রাজ্যের এমন এক পরিস্থিতি। এ বিষয়ে আবহাওয়া দপ্তর সূত্রে প্রাপ্ত খবর থেকে জানতে পারা গেছে গঙ্গানগরে রেকর্ড বৃষ্টি হয়েছে এইবার।

প্রায় 15.8 মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে এলাকায়, এই বৃষ্টি শুরু হয়েছে বৃহস্পতিবার দিন সকাল থেকে ও চলেছে শুক্রবার সারাদিন পর্যন্ত। শুধু তাই নয় গঙ্গানগর সহ পিলানি, সাওয়াইমাধোপুর ও জয়পুরেও কম বেশি বৃষ্টিপাত হয়েছে।যেখানে সাওয়াইমাধোপুর 10 মিলিমিটার, পিলানিতে 12.2 মিলিমিটার,ও জয়পুরে 9.8 মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে বলে খবর। এছাড়াও রাজস্থানের বিভিন্ন এলাকাতে কমবেশি 7 মিলিমিটার বৃষ্টিপাত হয়েছে এরই ফলে নেমে গেছে সেখানকার তাপমাত্রা। এমনকি বিভিন্ন এলাকায় রাতের তাপমাত্রা নেমেছে 8 ডিগ্রি সেলসিয়াসে।

যার মধ্যে রাজস্থানের সিকারে পারদ নেমেছে সবচেয়ে বেশি। শুধু তাই নয় এর নাগৌর এর ও আশেপাশে এলাকাতে শিলাবৃষ্টি হয়েছে। আর প্রচুর পরিমান শিলা বৃষ্টি হওয়ার কারণেই বরফ জমেছে সেখানেও। বরফে পুরু আস্তরণ ঢেকে গেছে বাড়ির ছাদ এমন কী রাস্তাঘাট পর্যন্ত। তবে এর ফলে ক্ষতি হয়েছে চাষবাসের ক্ষেত্রে প্রচুর শস্য নষ্ট হয়ে গেছে এরদরুন। তবে এই প্রথমবার হবে যখন এই এলাকায় এই রকম তুষারপাতের ঘটনা ঘটেছে।

Related Articles

Back to top button