মাস্ক ছাড়া মিলবে না মদ, মদের দোকানে ভীড় এড়াতে একাধিক পদক্ষেপ রাজ্য সরকারের

4 ঠা মে থেকে শুরু হয়েছে তৃতীয় দফার লকডাউন আর এই লকডাউন চলবে আগামী 17 ই মে পর্যন্ত। তবে এই তৃতীয় দফার লকডাউনে মদের দোকান খোলার ক্ষেত্রে মিলেছে বিশেষ ছাড়। আর কেন্দ্রের তরফ থেকে এরকম এক খবর পাওয়ার পরেই দেশের প্রতিটি রাজ্যই মদের দোকান খোলার অনুমতি দিয়ে দিয়েছে।আর ঠিক অন্য পাঁচ রাজ্যের মতো পশ্চিমবঙ্গে ও মদের দোকান খোলার ক্ষেত্রে অনুমোদন পাওয়া গেছে, তবে এক্ষেত্রে বাংলায় মদের দোকান খোলা হলেও রাখা হয়েছে কিছু শর্ত আর সেই শর্তগুলি মদ কেনার সময় প্রযোজ্য হবে আর না মেনে চললে দেওয়া হবে উপযুক্ত শাস্তি।

বাংলায় মদের দোকান খোলার ক্ষেত্রে যে বিশেষ শর্ত গুলি রাখা হয়েছে সেগুলি হল নিম্নরূপ-

1) সবার প্রথমে বলে রাখি কনটেইনমেন্ট জোন গুলিতে মদের দোকান খোলার ক্ষেত্রে কোন প্রকার অনুমতি দেওয়া হয়নি।

2) আর দ্বিতীয় যে শর্তটি রাখা হয়েছে সেখানে বলা হয়েছে কোনো প্রকার রেস্টুডেন্ট, হোটেল বা ক্লাবের সাথে থাকা মদের দোকান খোলা ও বসে মদ খাওয়ার ক্ষেত্রে কোন প্রকার অনুমতি দেওয়া হয়নি।

3) শপিং মল বা শপিং কমপ্লেক্স এর মধ্যে থাকা মদের দোকান খোলার ক্ষেত্রে অনুমতি দেয়া হয়নি।
4) এর পাশাপাশি মদের দোকান গুলোতে মদ কেনার জন্য লাইন দেওয়ার সময় সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার পাশাপাশি সতর্ক থাকতে হবে।

5) একসঙ্গে এক ব্যক্তি দুটির বেশি মদের বোতল কিনতে পারবে না।

6) এর পাশাপাশি মদের দাম বাড়ার নির্দেশিকা দোকানের সামনে ঝুলানো থাকবে যাতে কোনো রকম বিশৃঙ্খলা না হয়।

7) করোনা সংক্রমণ রুখতে মাস্ক পড়া অত্যন্ত বাধ্যতামূলক তাই মদ কিনতে যাওয়ার সময় মাস্ক পড়তে হবে তাছাড়া মিলবে না মদ।

8) মদের দোকানের সামনে মার্কিং করে রাখা বাধ্যতামূলক। যেখানে দুটি মার্কিংয়ের মধ্যে অন্ততপক্ষে ছয় ফুটের দূরত্ব বজায় রাখতে হবে। একসঙ্গে পাঁচ জনের বেশি প্রবেশ করানো যাবে না।
আজ 42 দিন পর খুলছে মদের দোকান, তাই এক্ষেত্রে যে মদ কেনার জন্য ভিড় যে অসংখ্য হবে তা বলার সন্দেহ নেই। তবে কোথাও কোন গন্ডগোলের হলেই মদের দোকান বন্ধ করে দেবার কড়া নির্দেশিকা জারি করা হয়েছে রাজ্য সরকারের তরফ থেকে।করোনা সংক্রমণের পরিস্থিতি থেকে বাঁচতে কোনও মতেই আপোস করবে না রাজ্য সরকার। কাজেই মদের দোকান খুললেও নিয়ম মেনে দোকানে যেতে হবে বলে বলে জানানো হয়েছে।