দুর্দান্ত পলিসি LIC-র!এখন মাত্র 200 টাকা করে ইনভেসমেন্ট করে পেয়ে যাবেন 28 লক্ষ টাকা, বিস্তারিত জানতে

আপনি যদি লং টার্ম ইনভেসমেন্ট করতে চান, তাহলে কেন্দ্রীয় সরকারি সংস্থা LIC এর থেকে সবথেকে ভালো বিকল্প বোধহয় বর্তমানে ভারতের বাজারে কেউ নেই। LIC এর নতুন এই প্লানে মাত্র ২০০ টাকা প্রতিদিন ইনভেস্ট করে ২০ বছর পর আপনিও পেয়ে যেতে পারেন ২৮ লক্ষ টাকা। এই প্লানের গুরুত্বপূর্ণ বিষয়টি হলো এখানে আপনি ১৫ হাজার টাকার বেশি পেনশন পেতে পারেন। দেখে নিন LIC পলিসির সম্পূর্ণ বিবরণ।

LIC JEEVAN PRAGATI SCHEME:-

এলআইসি নতুন প্ল্যান টির নাম জীবন প্রগতি স্কিম। এই পলিসিতে আপনি যত টাকা জমা করবেন ম্যাচুরিটি সময় তার প্রায় দ্বিগুণ অংক পেয়ে যাবেন এটি একটি নন লিংক পলিসি।

LIC

কী কী সুবিধা পাবেন এই পলিসিতে দেখুন :-

প্রথমত এটি একটি এনডাওমেন্ট প্ল্যান। এই পলিসিটিতে প্রতি ৫ বছর রিস্ক কভারেজ বাড়তে থাকবে। প্রথম ৫ বছর টাকা জমার পরিমাণ একই থাকবে এর পর ৬ থেকে ১০ বছর পর্যন্ত ২৫ শতাংশ বেড়ে ১২৫ শতাংশ হয়ে যাবে। এরপর ১১ থেকে ১৫ বছরের জন্য সাম এসিউড ১৫০ শতাংশ হয়ে যাবে। শেষের দিকে ১৬ থেকে ২০ বছরের জন্য সাম অ্যাসিউডের ২০০ শতাংশ হয়ে যাবে। পলিসি চলাকালীন পলিসি হোল্ডারের যদি মৃত্যু হয় তাহলে তার নমিনি সিম্পল রিকভারি বোনাস ও ফাইনাল অডিশন বোনাস পেয়ে যাবেন।

অর্থাৎ সোজা কথায় আপনি যদি ২ লক্ষ টাকা সাম অ্যাসিউড করেন তাহলে প্রথম ৫ বছরের ডেট বেনিফিটের জন্য কভারেজ পাবেন ২ লক্ষ টাকা। ৬ থেকে ১১ বছরের জন্য ২.৫ লক্ষ টাকা ১১ থেকে ১৫ বছরের জন্য ৩ লক্ষ টাকা এবং ১৬ থেকে ২০ বছরের জন্য কভারেজ পেয়ে যাবেন ৪ লক্ষ টাকা। হিসাব অনুযায়ী অ্যাক্সিডেন্টাল ডেট বেনিফিট আপনি পেয়ে যাবেন দ্বিগুণ টাকা।

তবে ২৮ লক্ষ টাকা পেতে গেলে প্রথম ১৫ বছর আপনাকে সাম অ্যাসিউড এবং ২০০ টাকা করে প্রতিদিন ইনভেস্ট করতে হবে। ২০ বছর পর আপনি পেয়ে যাবেন ২৮ লক্ষ টাকা। এই পলিসিটি করতে গেলে পলিসি হোল্ডারের বয়স হতে হবে ১২ থেকে ৪৫ বছরের মধ্যে এবং পলিসি এর সময়সীমা ১২ থেকে ২০ বছরের মধ্যে করতে হবে। ম্যাচুরিটিতে পলিসি হোল্ডারের অধিকতম বয়স ৬৫ বছর হতে হবে। কভারেজের ন্যূনতম ১.৫ লক্ষ টাকা পর্যন্ত ইনভেস্ট করতে পারেন। অধিক কোন সীমা নেই। ৩ বছর পর্যন্ত প্রিমিয়াম দেবার পর পলিসি সারেন্ডার করাও যেতে পারে।