রেশন কার্ড হোল্ডারদের জন্য বেরিয়ে এল বড়োসড়ো সুখবর, মিলবে একাধিক সুবিধা

রেশন কার্ড হোল্ডারদের জন্য এখন বড় একটি সুখবর এসেছে। বর্তমান সময়ে রেশন কার্ডের মাধ্যমে বিনা পয়সায় রেশনের পাশাপাশি আরও কিছু সুবিধা পাওয়া যাবে। আধার কার্ড, ভোটার কার্ডের পাশাপাশি রেশন কার্ড ভারতীয়দের কাছে মূল্যবান একটি ডকুমেন্টস। করোনাকালে কেন্দ্র সরকার নভেম্বর মাস পর্যন্ত গরিব মানুষদের বিনামূল্যে রেশন দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছেন। প্রতিটি পরিবারের সদস্যদের মাথাপিছু 5 কেজি করে রেশন দেওয়া হচ্ছে।

করোনা মহামারীর জন্য সমগ্র বিশ্বের পাশাপাশি ভারতবর্ষে লকডাউন করা হয়। এই লকডাউনের ফলে বহু মানুষের কাজ চলে যায়। দু’বেলা দু’মুঠো খাবার জোগাড় করায় বহু মানুষের কাছে দুষ্কর ব্যাপার হয়ে দাঁড়ায়। ৮০ কোটি মানুষকে ফ্রিতে রেশন দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছে কেন্দ্র সরকার।

বিনামূল্যে রেশন দেওয়ার পাশাপাশি এই কার্ডের মাধ্যমে আরও কিছু সুবিধা পাওয়া যায়। যেমন এই কার্ডের মাধ্যমে আপনি গ্যাসের কানেকশন নিতে পারবেন। আবার এই রেশন কার্ড হল আপনার ঠিকানার একটি প্রমাণ পত্র। ভোটার আইডি বা অন্য কোনো ডকুমেন্টস তৈরি করার জন্য রেশন কার্ডের প্রয়োজন হয়। আপনার ইনকাম ২৭ হাজার টাকার কম হলে দারিদ্র সীমার নিচের রেশন কার্ডের জন্য আবেদন করা যেতে পারে ৷ রেশন কার্ড তিন ধরনের হয় APL, BPL, AAY ৷

রেশন কার্ড তৈরি করার জন্য অনলাইনে আবেদন করা যায়। আবেদন করার জন্য আপনাকে প্রথমেই খাদ্য বিভাগের ওয়েবসাইটে গিয়ে Apply Online for ration Card লিংকে ক্লিক করে আবেদন করুন। রেশন কার্ড তৈরির জন্য আধার কার্ড ভোটার কার্ড পাসপোর্ট প্রভৃতি ডকুমেন্টস আপনি ব্যবহার করতে পারবেন। অনেক সময় রেশন কার্ড তৈরির জন্য 5 টাকা থেকে 45 টাকা পর্যন্ত চার্জ নেওয়া হতে পারে। ফর্ম ফিলাপ করে টাকা জমা দেওয়ার পর আপনি অ্যাপ্লিকেশন সাবমিট করলে ফিল্ড ভেরিফিকেশন হবে। ফিল্ড ভেরিফিকেশন সম্পন্ন হলে আপনার রেশন কার্ডটি তৈরি হয়ে যাবে।