অধিক মূল্যে পেট্রোল কেনার হাত থেকে মুক্তি দিতে কেন্দ্র সরকার নিয়ে এসেছে নয়া জ্বালানি

পেট্রোলের দাম দিনে দিনে বৃদ্ধি পাওয়ায় সাধারণ মানুষের পক্ষে গাড়ি বাইক ব্যবহার করা খুবই কষ্টসাধ্য হয়ে উঠেছে। সাধারণ মানুষের এই সমস্যা থেকে মুক্তি দেওয়ার জন্য কেন্দ্রীয় সরকার এনেছে ইথানল পেট্রোলকে। আকাশছোঁয়া পেট্রোলের দামের জন্য কেন্দ্র সরকার এই ইথানল মিশ্রিত পেট্রোল ব্যবহারের অনুমতি দিয়েছে। কেন্দ্রীয় সড়ক ও পরিবহন মন্ত্রকের তরফ থেকে একটি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের মাধ্যমে জানানো হয়েছে যে গাড়ি এবং বাইকে অন্য ধরনের পেট্রোল ব্যবহারের অনুমতি দেওয়া হল।

 

এই অন্য-ধরনের পেট্রোলটি হল ইথানল পেট্রোল। এই ধরনের পেট্রোলের মধ্যে ২০ শতাংশ ইথানল থাকবে। সংশ্লিষ্ট সূত্র মারফত জানা গিয়েছে, এই ধরনের পেট্রোল থেকে কার্বন মনোক্সাইড এবং হাইড্রোকার্বন অনেক কম মাত্রায় নির্গত হয়।

E20 ইথানল পেট্রোলের ব্যবহারের সুবিধাঃ

১) এই ধরনের পেট্রোল থেকে কার্বন ডাই অক্সাইড গ্যাস কম নির্গত হওয়ার জন্য পরিবেশের দূষণ মাত্রা অনেকটা কম হবে।

২) ইথানল মিশ্রিত পেট্রোল ব্যবহারের ফলে ভারতে পেট্রোলের চাহিদা কিছুটা কমবে। ভারত তার চাহিদা অনুপাতে ৮৩ শতাংশ পেট্রোল আমদানি করে।

 

৩) পেট্রোলে ইথানলের ব্যবহার বাড়ার ফলে কৃষকদের অনেক লাভ হবে। কারণ ইথানল প্রস্তুত হয় আখ, ভুট্টা এবং অন্যান্য অনেক ফসল থেকে।

৪) ইথানলের দাম কিছুটা কম তাই উচ্চ হারে পেট্রোল কেনার থেকে ইথানল ব্যবহার করা মানুষের পক্ষেও অর্থনৈতিক দিক থেকেও বেশ উপাদেয়।

কেন্দ্র সরকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ২০৩০ সালের মধ্যে ২০ শতাংশ ইথানল মিশ্রিত করবে পেট্রোলে। কিন্তু ২০২৫ সালের মধ্যেই এই ২০ শতাংশ ইথানল ব্যবহার হয়ে যাবে। সরকার ২০২২ সালের মধ্যে ২০ শতাংশ ইথানল ব্যবহারের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এখন পেট্রোলে ৮.৫ শতাংশ ইথানল ব্যবহার করা হচ্ছে। ২০২২ এর দিকে এটা বাড়িয়ে ১০ শতাংশ করা হবে। ২০ শতাংশ ইথানল মিশ্রণের জন্য প্রয়োজন হবে ১২০০ কোটি অ্যালকোহলের। ৭০০ মিলিয়ন লিটার ইথানল তৈরীর জন্য ৬ মিলিয়ন টন উদ্বৃত্ত চিনি এবং অন্যান্য ফসল থেকে ৫০০ মিলিয়ন লিটার ইথানল তৈরি করা যেতে পারে।