মুখ্যমন্ত্রী-রাজ্যপালের সংঘাত যেন থামতে চাইছে না, আবারো মমতাকে সরাসরি তোপ রাজ্যপালের

রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী ও রাজ্যপালের মধ্যে সংঘাত যেন থামতেই চাইছে না। গতকাল শুক্রবার দিন ফের বিস্ফোরক মন্তব্য করলেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। এইদিন রাজ্যপাল জী 24 ঘন্টার ডিজিটাল এর কাছে দাবি করে বললেন বুলবুল ঘূর্ণিঝড়ের জেরে যেসব এলাকায় ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে তা নিয়ে তাকে কিছুই জানানো হয়নি। তিনি বলেন আমি মনে করি এই বিষয়ে মুখ্যমন্ত্রীকে আমাকে জানানো অত্যন্ত বাধ্যতামূলক।

যেমনটা আমরা জানি ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের জেরে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে দক্ষিণ 24 পরগনার একাধিক উপকূলবর্তী এলাকাগুলিতে।জানিয়ে দি , গত বৃহস্পতিবার দিন রাজ্যপাল বলেছিলেন রাজনীতির সাথে প্রশাসনকে মিলিয়ে ফেলা উচিত নয়, কারণ এর জেরে মূলত ক্ষতি হয় গণতন্ত্রের। তিনি বলেন বুলবুল বিধ্বস্তদের সহযোগিতা করার জন্য সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে। পরিস্থিতি খতিয়ে দেখা হচ্ছে, আবার প্রয়োজন পড়লে নিশ্চিতভাবে সেখানে যেতে হবে।

তবে আবার গতকাল শুক্রবার দিন রাজ্যপাল জী 24 ঘন্টা এক সাক্ষাৎকারে জানিয়ে দিলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী ঘূর্ণিঝড় বুলবুল বিষয়ক কোন কথাবার্তা তাকে জানায়নি।শুধু তাই নয় এই নিয়ে তিনি অভিযোগ করে বলেন এই বিষয়ক যেকোনো তথ্য মুখ্যমন্ত্রী আমাকে জানাতে বাধ্য। কিন্তু আজ পর্যন্ত কিছুই তাকে জানাননি। মুখ্যমন্ত্রীর হেলিকপ্টারে ঘূর্ণিঝড় পরবর্তী পরিস্থিতি খতিয়ে দেখাকে নিয়েও খোঁচা দিয়েছেন রাজ্যপাল। তাঁর মন্তব্য,”অনেকে বলল কিছুদিন আগেই এক মন্ত্রী নাকী এখানে হেলিকপ্টারে এসেছেন।

শুধু এখানেই শেষ নয় রাজ্যপাল আরো বলেন যে শিক্ষাদপ্তর ও এক্ষেত্রে অসহযোগিতা করেছে বলে, তিনি বলেন আমি অনেক কিছু জানতে চেয়েছি তাদের কাছে কিন্তু তারা সেসব কথা জানাননি। তবে আমি আশা করছি একদিন ঠিক জানাবে। এই সাথে সাথে তিনি আরো একটি কথা তোলেন যেখানে তিনি বলেন এনআরসি পুরোপুরিভাবে কেন্দ্রীয় সরকারের বিষয় যেটা তিনি মনে করেন। অন্যদিকে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও গত বৃহস্পতিবার দিন রাজ্যপালের নাম না নিয়ে নিশানা করে তোপ দাগেন তিনি বলেন এখন তিনি বিজেপির মুখপত্র হিসেবে কাজ করছে।একটা সমান্তরাল শাসন চালাচ্ছে। আমার রাজ্যেও এটা হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রীয় কাঠামো মেনে চলা উচিত।তার মনে রাখা দরকার, কেন্দ্র ও রাজ্য সরকার  নির্বাচিত।”

Related Articles

Close