বদলি হতে পারে পুরনো রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়ের, বাংলার নতুন রাজ্যপাল হিসেবে আসতে পারেন ইনি

বর্তমানে পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপাল জগদীপ ধনকর। মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে একাধিক বচসায় জড়িয়েছিলেন রাজ্যপাল। নির্বাচনের আগে এবং পরে বেশ কিছু বিষয়কে নিয়ে জগদীপ ধনকর পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রীর কড়া সমালোচনা করেন। এবার জল্পনা উঠেছে যে রাজ্যপাল জগদীপ ধনকর বদলি হতে পারেন।

কিছুদিন আগে আমরা দেখেছি ভোট পরবর্তী হিংসা নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর কড়া সমালোচনা করেছেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনকর। আবার নারোদা কান্ডকে নিয়েও মুখ্যমন্ত্রীকে তিনি কটাক্ষ করতে ছাড়েননি। এছাড়াও বাংলায় ৩৫৬ ধারা জারি করা নিয়েও মমতাকে ধমক দিয়েছিলেন এই রাজ্যপাল। এবার রাজ্যপালেরই দিল্লি থেকে ডাক এসেছে।

গতকাল রাতেই রাজ্যপাল দিল্লিতে পৌঁছে গেছেন। এক সূত্র মারফত খবর পাওয়া যাচ্ছে আগামী দিনে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ এবং প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে বৈঠকে সামিল হতে পারেন রাজ্যপাল। বর্তমান সময়ে বিধানসভা ভোটের পর খোলাখুলি মোদি বিরোধী তালিকায় শীর্ষে রয়েছে তৃণমূল দলটি। কেন্দ্র রাজ্যের এই সংঘর্ষে বাংলার বিরুদ্ধে যে অভিযোগ উঠেছে সেই বিষয়ে রাজ্যপালের আরো কড়া পদক্ষেপ নেওয়া উচিত।

রাজ্যপালের কাজ কর্মে খুশি নয় কেন্দ্র। আবার অন্যদিকে রাজভবনের নিয়োগ নিয়ে রাজ্যপালের বিরুদ্ধে স্বজনপোষণের অভিযোগ উঠেছে। এই সমস্ত কারণে দিল্লি থেকে ডাকা হয়েছে রাজ্যপালকে। মনে করা হচ্ছে রাজ্যপালের আসন থেকে জগদীপ ধনকরকে বদলি করা হতে পারে। সেই আসনে বসানোর তালিকায় শীর্ষে রয়েছেন কেরলের রাজ্যপাল আরিফ মহম্মদ খান।

আরিফ সংখ্যালঘু এবং নাগরিকত্ব আইনের পক্ষের মানুষ। আর এই কথা মাথায় রেখেই কেন্দ্র সরকার বাংলার সংখ্যালঘু সম্প্রদায়কে আরিফের মাধ্যমে বড় বার্তা দিতে চায়। তবে রননীতির ক্ষেত্রেও জগদীপ ধনকরের থেকে আরও বেশি চরমপন্থী আরিফ।