MA-পাস বধূ বিয়ের শেষ ফেরেটি পূরণ হওয়ার আগে রেখে দিলেন এক শর্ত,বললেন এটি পূরণ হলে তবেই করবেন বিয়ে! দেখে নিন কী ছিল সেই শর্ত..

আজ আমরা আপনাদেরকে যে বিষয় সম্বন্ধে জানাতে চলেছি সেটি শুনলে আপনার অবশ্যই আশ্চর্য বোধ করবেন,আপনারা জেনে অবাক হবেন যে একটি নববিবাহিত বিয়ের সব রীতি নিয়ম গুলো পুরো হয়ে যাওয়ার পর হঠাৎ সেই বধূটি বিয়ের মন্ডপে বাকি রীতিগুলো পুরো হওয়ার আগেই বিয়ে আটকে দিলো, এম এ পাশ করা সেই বধূটি সাত নম্বর ফেরাটির শেষ হওয়ার আগেই রেল বিভাগে কাজ করা তার স্বামীকে প্রথমে নিজের শর্তগুলো পূরণ করার কথাগুলো বলল এবং এও বলল যে ,এই শর্তগুলো পূরণ হওয়ার পরই সে শেষ ফেরে নেবে। তার স্বামীর নাম হলো তারা চাঁদ বেরবা।

নতুন বধুটির এরকম কথায় সবাই আশ্চর্য হয়ে গেল, এবং দুই পক্ষ একে অপরের দিকে তাকাতে লাগলো, বর এবং বধু পক্ষ তারা সেই নববধূর শর্তগুলো জানতে চাইলো।বিয়ের পর সে নববধূটি তার স্বামী তারা চাঁদ বেরবাকে মত দান দিতে যাওয়ার সংকল্প নিতে বলল। এটি শুনে কিছুক্ষণের মতো সকলেই হেসে পড়লো। এরপর বরটি ও সে নববধূটির কাছে একটি প্রতিশ্রুতি চাইল, সেইসঙ্গে বর বলল যদি এই প্রতিশ্রুতি রাখতে পারো তাহলে শেষ ফেরে টা নিবে। আরেকবার সেখানে উপস্থিত সকল লোকেরা আশ্চর্য হয়ে গেল।

তার স্বামীর তারা চাঁদ বেরবা তার নববধূকে বললো, বিয়েতে পাওয়া কোন উপহারই সে এখান থেকে নিয়ে যেতে পারবে না তবে সে শেষ ফেরে টি নিবে। আর অন্যদিকে বরপক্ষের পিতা শ্রী ভগবান বেরবা বলেন যে আমার ছেলে রেলওয়েতে সরকারি চাকরি করে এর আগেও আমার ছেলের জন্য অনেক সম্বন্ধ এসেছিল এবং তারা যৌতুক দিতে চেয়েছিল অনেক তবে আমার ইচ্ছে ছিল বিনা যৌতুক নিয়ে তার বিয়ে দেওয়ার যেটা আজ আমার ছেলে পূরণ করে দিয়েছে।আর অন্যদিকে অন্তিম ফেরে হওয়ার আগে, তারা চাঁদ বেরবা তার স্ত্রী রিংকু বেরবা কে ডিসেম্বরে হওয়া ভোটে একসাথে ভোট দান করার জন্য সংকল্প নেওয়ার জন্য বললেন।

Related Articles

Close