মোদিজীর জমানায় ভারতীয় মুদ্রায় আসছেন নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসু।

বিগত সত্তর দশকের স্বাধীন ভারতের ইতিহাসে যদি কোন দেশ প্রেমিককে তার যোগ্য সম্মান দেওয়া হয়নি তা আমাদের বীর নেতাজী সুভাষ চন্দ্র বসু বললে ভুল হবে না। কারণ তিনি ছিলেন বিপ্লবী তথা মহান দেশ নায়ক নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসু। যখন থেকে দেশ স্বাধীন হয়েছে অর্থাৎ 1947 সাল থেকে ভারতের স্বাধীনতা লাভের পর থেকে এই দেশপ্রেমিকের কৃতিত্বতা দেশবাসীর কাছ থেকে মুছে ফেলার চেষ্টা অবিরাম চলে আসছে।এটা বললেও ভুল হবে না যে দেশকে স্বাধীনতা দেবার পেছনে যেমন মহাত্মা গান্ধী, জওহরলাল নেহরু, অন্যান্য নরমপন্থী কংগ্রেস নেতারা যেটুকু ভূমিকা গ্রহণ করেছিলেন তাদের তুলনায় অনেক বেশি ভূমিকায় গ্রহণ করেছিলেন এই দেশপ্রেমিক চরমপন্থী নেতা নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসু।তবে তিনি তার যোগ্য সম্মান দেশ থেকে পাননি। এই নিয়ে নানা তর্ক বিতর্কে ঐতিহাসিক থেকে শুরু করে রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব এবং নেতাজীর আত্মীয়-স্বজনরা বিভিন্নভাবে ক্ষোভ ও প্রকাশ করেছেন। নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসু সব সময় বিশ্বাস করতেন রক্তক্ষয়ী সংগ্রামের মাধ্যমে দেশকে স্বাধীনতা পাওয়ানো সম্ভব।

যার জন্য তাকে দেশ ত্যাগ করে পৌঁছে যেতে হয়েছিল ব্রিটিশদের শত্রুর ঠিকানায়। তিনি এই কূটনীতির নীতিতে বিশ্বাস করতেন শত্রুর শত্রু বন্ধু হতে পারে। তাই তিনি পৌঁছে গিয়েছিলেন হিটলার এর কাছে।আমাদের দেশে যেখানে একজন দেশপ্রেমিকে যেমন মহাত্মা গান্ধী থেকে শুরু করে জহরলাল নেহরু পর্যন্ত ব্যাক্তিদের আজ ও বিশেষ সম্মানে সম্মানিত করা হয় সেখানে নেতাজিকে বারবার অবহেলিত করা হয়েছে দেওয়া হয়নি তাকে তার উপযুক্ত সম্মান।কিন্তু এবার এটা বললে ভুল হবে না যে বর্তমান সরকার সম্পূর্ণ আলাদা বিগত কয়েক দশকে আমরা তার প্রমাণ পেয়েছি। বর্তমান সরকার সম্পূর্ণভাবে শপথ নিয়েছেন প্রতিটি দেশপ্রেমিককে তার উপযুক্ত সম্মান দেওয়া দায়িত্ব দেশের আর এই কাজে নেমে গেছে আমাদের সরকার তা বললে ভুল হবে না। এর কারণ স্বরূপ আমরা দেখতে পারি গত মাসে 21 শে অক্টোবর  নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসু গঠিত আজাদ হিন্দ সরকারের 75 বছরপূর্তি উপলক্ষে রঞ্জিত জাতীয় পতাকা উত্তোলন করলেন লালকেল্লায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

আর এখন বর্তমানে কেন্দ্রীয় সরকার রঞ্জিত জাতীয় পতাকার ইতিহাস কে স্মরণ করিয়ে রাখার জন্য আনতে চলেছেন 75 টাকা মূল্যে বিশেষ স্মারক কয়েন। এই উপলক্ষে ভারতীয় অর্থ মন্ত্রণালয় তরফ থেকে এক বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়েছে যেখানে বলা হচ্ছে।

এই কয়েনের বিশেষ কিছু বৈশিষ্ট্য:-এই বিশেষ কয়েনের ওজন হবে 35 গ্রাম যাতে থাকবে 40 শতকরা তামা এবং 50 শতকরা রুপো আর সাথে থাকবে 5 শতকরা করে নিকেল এবং জিংক। কয়েনে থাকবে নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর ত্রিবর্ণ রঞ্জিত জাতীয় পতাকায় সেলুট করার ছবি। আর নিচে উল্লেখ করা থাকবে সুভাষচন্দ্র বসুর 75 তম বর্ষ উদযাপন কথাটি। কয়েনের গায়ে লেখা থাকবে ফাস্ট ফ্লাগ হৈষ্টিং ডে (first flag hosting day) বাংলাতে যার অনুবাদ করলে দাঁড়ায় “প্রথম জাতীয় পতাকা উত্তোলন দিবস”‌।

পোস্টটি যদি আপনার ভালো লেগে থাকে তাহলে পোস্টটি শেয়ার করতে অবশ্যই ভুলবেন না। আরো এরকম নতুন নতুন পোস্ট পেতে আপনি আমাদের পেজে চোখ রাখতে পারেন।

Related Articles

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Open

Close