সকল কর্মচারীদের জন্য এল সুখবর! মোদী সরকার এবার শুরু করতে চলেছেন এক জাতি এক বেতন দিবস..

কেন্দ্রে যখন থেকে মোদী সরকার দেশের দায়ভার সামলেছেন তবে থেকে প্রায় নতুন নতুন যোজনার নাম দেশের মানুষজন শুনতে পাচ্ছেন, শুধু তাই নয় এই যোজনার দরুন অনেক মানুষ উপকৃতও হয়েছেন। আর এবার ও মোদি সরকার শ্রমিক শ্রেণীর স্বার্থ রক্ষার খাতিরে এক নতুন ভাবনা নিয়ে এলেন। দেশের শ্রমজীবী মানুষের স্বার্থ রক্ষার খাতিরে এবার মোদি সরকার এক জাতি এক বেতন দিবস ঘোষণা করতে চান। এমনটাই জানানো হয়েছে ইতিমধ্যে কেন্দ্রীয় শ্রম মন্ত্রী সন্তোষ গাঙ্গোয়ার তরফ থেকে ও।

মোদী সরকার চাইছেন গোটা ভারত জুড়ে বিভিন্ন সেক্টরে একই দিনে বেতনের ব্যবস্থা শুরু করতে। যাতে শ্রমজীবী মানুষেরা সময়মতো তাদের বেতন পেয়ে যায়। আর এই জন্য এক নতুন আইন পাস করাতে চাইছেন মোদি সরকার। শুধু তাই নয় এবার মোদী সরকার চাইছেন অভিন্ন ন্যূনতম মজুরির ব্যবস্থা করতে। আর এই একই ঘোষণা করা হয়েছে শ্রম মন্ত্রীও, শ্রমমন্ত্রীর তরফথেকে জানানো হয়েছে সারাদেশে অভিন্ন নুন্যতম মজুরির ঠিক করতে চাইছেন সরকার। যা শ্রমিকদের জীবন যাপন কে আরো উন্নত করে তুলতে সাহায্য করবে বলে আশাবাদী শ্রমমন্ত্রী।

অন্যদিকে অভিন্ন মজুরির দাবিতে দীর্ঘদিন ধরে আন্দোলন করে চলেছিলেন দেশের বাম দল গুলি। যেখানে বামেদের দাবি ছিল দেশের প্রত্যেক মানুষের অভিন্ন ন্যূনতম মজুরি করতে হবে 18 হাজার টাকা। তবে এখন কেন্দ্রীয় সরকার পেশাগত সুরক্ষার স্বাস্থ্য ও কাজের শর্তাদি বা ওএসএইচ কোড এবং মজুরি সম্পর্কিত কোড বাস্তবায়নের পথে রয়েছে। সংসদ ইতিমধ্যেই মজুরি সংক্রান্ত কোডটি পাস করেছে, এবং বাস্তবায়নের জন্য বিধিও তৈরি করেছে। আর 2019 এর 23 শে জুলাই লোকসভায় পেশ করা হয়েছিল ওএসএইচ কোডটি।

যার ফলে এখন স্বাস্থ্য, সুরক্ষা ও কাজের শর্ত নিয়ে মোট 13 টি কেন্দ্রীয় শ্রম আইন একসঙ্গে হয়ে যাবে। শুধু তাই নয় কাজের শর্তাদি বা ওএসএইচ কোডে যেসব উদ্যোগ নেয়া হয়েছে তার মধ্যে রয়েছে আবশ্যিক ভাবে যে কোনও শ্রমিককে অবশ্য নিয়োগপত্র দিতে হবে। এর পাশাপাশি বাৎসরিক মেডিকেল চেকআপ ও ব্যবস্থা করাতে হবে।এই বিষয় নিয়ে কেন্দ্রীয় শ্রম মন্ত্রী জানিয়েছেন 2014 ক্ষমতায় আসার পর থেকেই মোদী সরকার ধারাবাহিকভাবে শ্রম আইন সংস্কারের কাজ করে চলেছেন। তিনি জানান কেন্দ্রীয় সরকার ইতিমধ্যেই 44 টি জটিল শ্রম আইন সরলীকরণ এর উদ্যোগ নিয়েছেন।

Related Articles

Close