রাজ্যের অস্থায়ী কর্মীদের জন্য বেরিয়ে এলো সুখবর, নতুন বেতনের নির্দেশিকা নবান্নের…

রাজ্য সরকারের অস্থায়ী কর্মচারীদের জন্য বছরের প্রথম এই সুখবর এলো। এর আগে অবশ্য রাজ্য সরকারের বিভিন্ন দপ্তরে অস্থায়ী কর্মচারীরা সমকাজে সমবেতনের দাবি জানিয়ে আসছিল দীর্ঘদিন ধরে। তবে এবার দীর্ঘদিন দাবি জানানোর পর সরকার এ বিষয়টিকে গুরুত্ব দিয়ে পর্যালোচনা করেছে ক্এবং তাদের দাবি মেনেছে সরকার তার ইঙ্গিত দিয়েছে। গত মঙ্গলবার এই প্রক্রিয়া কার্যকর করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে নবান্নের তরফ থেকে।

নবান্নের নির্দেশ অনুসারে চলতি বছর থেকে রিভিশন অফ পে অ্যান্ড অ্যালাওয়েন্স রুল 2019 এর অধীনে রাজ্য সরকারের স্থায়ী কর্মচারীদের সঙ্গে সমহারে বেতন পাবেন রাজ্য সরকারের ওই পদে নিযুক্ত অস্থায়ী কর্মচারীরাও। তবে বেতন ক্রম অনুসারে বেতন কাঠামো বেতন নির্ধারণের ক্ষেত্রে অস্থায়ী কর্মচারীদের কোনো অনলাইনে ফর্ম ফিলাপ করতে হবে না। লিখিত আকারে ফর্ম ফিলাপ করে জমা দিতে হবে ওই কর্মচারীদের। অর্থাৎ তারা অফলাইনে ফর্ম ফিলাপ করতে পারবেন এর জন্য।

ফর্ম ফিলাপ থেকে শুরু করে বেতন কাঠামো এই সমস্ত প্রক্রিয়াটি অফলাইনে হবে। ওই সংশ্লিষ্ট দপ্তরের অধিকর্তারা অফলাইনের মাধ্যমে তাদের বেতন সংশোধন করবেন এবং ডিডিও-রা দ্রুত ইন্টিগ্রেটেড ফিনান্সিয়াল ম্যানেজমেন্ট সিস্টেমের এইচআরএমএস মডিউলে এমপ্লয়িজ মাস্টারের ওই পরিবর্তনকে সংশোধন করে নতুন বেতন নিশ্চিত করবেন। গত বছর সেপ্টেম্বর মাসে কেন্দ্রীয় সরকার সমকাজে সমবেতন নামক একটি পরিকাঠামোর ইঙ্গিত দিয়েছিলেন। 2016 সালের সম কাজে সম বেতন সংক্রান্ত একটি রায় দেয় সুপ্রিম কোর্ট।

এর ফলে 4 সেপ্টেম্বর 2019 সালে কেন্দ্রীয় পার্সোনেল, পিজি এবং পেনশন মন্ত্র থেকে এই নির্দেশিকা জারি করা হয়। এই নির্দেশিকায় স্পষ্টভাবে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে যে, কোনো স্থায়ী সরকারি কর্মচারী যে বেতন পাচ্ছেন একটি অস্থায়ী কর্মচারী ওই একই পদে কাজ করলে সেই স্থায়ী সরকারি কর্মচারীটির সমান বেতন পাবেন। কিন্তু স্থায়ী কর্মচারীরা আরো যে সুযোগ সুবিধা পায় সরকারের কাছ থেকে সেই সমস্ত সুযোগ-সুবিধা অস্থায়ী কর্মচারীরা পাবেন না।

এছাড়া ওই নির্দেশিকায় আরো একটি কথা বলা হয়েছে যে কোনো সংস্থা বা কন্ট্রাকটারদের মাধ্যমে কোন সরকারি সংস্থায় কেউ নিযুক্ত হলে সেই সমস্ত কর্মচারীরাও এই সুযোগ সুবিধা পাবেন না। 2016 সালে সুপ্রিম কোর্ট যে রায় দিয়েছিল তাতে স্পষ্ট ভাবে বলা হয়েছে, সম কাজের জন্য সমবেতন না হলে তা বিভাজনের সৃষ্টি হতে পারে। কিন্তু রায় দেওয়ার সময় এই চুক্তির সমস্ত শর্ত গুলি উল্লেখ করেছিল সুপ্রিম কোর্ট। এছাড়া 1993 সালে একই ধরনের একটি আন্তর্জাতিক চুক্তিতে স্বাক্ষর করেছিল ভারত সরকার। সুপ্রিম কোর্টের এই রায় দেওয়ার পর থেকেই বিভিন্ন সরকারি দপ্তরের অস্থায়ী কর্মচারীরা সমকাজে সমবেতন এর জন্য দাবি করতে থাকে।

Related Articles

Close