দিল্লিতে তৈরি হলো সোনার তৈরি মিষ্টি,দাম শুনে চমকে যাবেন

রমরমিয়ে চলছে ষোলো হাজারী মিষ্টির চর্চা, যা বলার অপেক্ষা রাখে না। ব্যাপারটা কোনটাই কাল্পনিক নয়, বাস্তবের মাটিতেই ঘটেছে এমন ঘটনা।আর মিষ্টি বললেই যে জাতির কথা মনে পড়ে তা হল বাঙ্গালী জাতির কথা, শেষপাতে মিষ্টিমুখ না হলে ঠিক জমে না,সে যে কোনো শুভকাজ হোক বা সেটা জন্মদিন হোক, অন্নপ্রাশন হোক থেকে শুরু করে শ্রাদ্ধ বাড়ি পর্যন্ত, মিষ্টির অন্ত নেই অর্থাৎ মিষ্টি সাথে ওতপ্রোতভাবে যোগ আছে বাঙালির। কেউ কেউ বলেন বাঙালির চেহারাতেও মিষ্টির অনেক মিল আছে, আর এই মিষ্টির দুনিয়ায় ইতিহাস সৃষ্টি করেছে এই মিষ্টি, যা বিক্রি করছে দিল্লির মিষ্টির দোকানে।

মৌজপুরের শকুন সুইটস তৈরি হয়েছে এই মিঠাই দিল্লির বাজারকে গরম করতে তৈরি, অনেকে আবার একে গোল্ড প্লেটেডও বলছেন। কারণ এক বিশেষ প্রক্রিয়ায় তৈরি হয় এই মিষ্টি,এই মিষ্টিতে থাকে কাজু পেস্তা বাদাম কেশর আনারসের দানার সঙ্গে ২৪ ক্যারেট সোনার পরত, তাই তার দাম প্রতি কিলো প্রতি ১৬ হাজার টাকা। তবে এই মিষ্টিতে রয়েছে এক বিশাল ইতিহাসও। আসুন ইতিহাসের সেই দিকে চোখ রাখি। কিভাবে তৈরি হলো এই মহার্ঘ মিষ্টি।

এই মিষ্টির অর্ডার দিয়েছিলেন এক গ্রাহক, তার অর্ডারেই মুকেশ বনসাল ও নিতিন বনসাল চেষ্টা করেছিলেন এক নতুন মিষ্টির। তবে প্রথমেই গ্রাহকের দাবি শুনে তারা পিলে চমকে গিয়েছিলেন, কারণ এত দামি মিষ্টি কতটা বিক্রি হবে তা নিয়া প্রবল আশঙ্কা ছিন তাদের, কিন্তু পরে দেখা গেল এই মিষ্টি যথেষ্টই জনপ্রিয়তা পেয়েছে।

প্রতি মিষ্টির দাম প্রায় ৮০০ টাকা, এক কেজিতে গ্রাহকরা পান ২০টি মিষ্টি। তবে নতুন মিষ্টি তৈরি করতে পেরে অত্যন্ত খুশি, তবে এখানেই থেমে থাকতে তারা রাজি নন। তারা আরও অভিনব মিষ্টি তৈরি করতে উদ্যোগী, যা নিয়ে তাদের যথেষ্ট পরীক্ষা-নিরীক্ষা চলছে, আগামী দিন হয়তো আরো উচ্চমানের মিষ্টি হাজির করবেন তাঁরা আমাদের সামনে।