করোনার প্রথম ট্যাবলেট আসছে ভারতের বাজারে,দাম মাত্র 103 টাকা..

তবে কী দেশজুড়ে করোনা চিকিৎসার ক্ষেত্রে অবশেষে ওষুধের হাত ধরেই কী মুক্তির পথ দেখবে ভারত?কারণ এই প্রথম হবে যখন কোন ফার্মাসিটিক্যাল কোম্পানিকে ভারতের বাজারে ছাড়পত্র দেওয়া হয়েছে করোনার ওষুধ বিক্রি করার জন্য। গ্লেনমার্ক ফার্মাসিটিক্যালের তরফ থেকে COVID-19 এ ভোগা কম গুরুতর অবস্থায় রোগীদের জন্য নিয়ে আসা হয়েছে অ্যান্টিভাইরাল ওষুধ ফ্যাভিপিরভিরকে “ফ্যাবি ফ্লু” (Fabi flu) ব্যান্ডের নাম দিয়ে প্রকাশে আনা হয়েছে এমনটাই প্রাপ্ত খবর অনুযায়ী জানা যাচ্ছে।

এই বিষয়ে মুম্বাইয়ের এই সংস্থা জানিয়েছে ওষুধটির মার্কেটিং এবং নির্মাণ করার ক্ষেত্রে অনুমতি দিয়ে দিয়েছে ভারতীয় ওষুধি নির্মাণকারী সংস্থা তথা ডিজিসিআই। শুধু তাই নয় এই সংস্থার তরফ থেকে জানানো হয়েছে এই ওষুধ ব্যবহার এবং বিক্রির ক্ষেত্রে সম্মতি দেওয়া হয়েছে COVID-19 এর চিকিৎসার জন্য। এই অনুমতি এমন একটা সময়ে দেওয়া হয়েছে যখন ভারতে তুলনামূলক হারে অনেক বেশি বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দিন দিন। আর এইভাবে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ার ফলে আমাদের স্বাস্থ্যের পরিকাঠামো বড় চাপের মুখে পড়েছে।

তাই আপাতত আশা করা হচ্ছে এই ঔষধ ব্যাবহারের ফলে ভারতের স্বাস্থ্য পরিকাঠামোর ওপর অনেকটাই চাপ কমে যাবে। তবে শুধু তাই নয় এই সংস্থার দাবি ক্লিনিক্যাল পরীক্ষার মাধ্যমে এটা প্রমাণিত হয়ে গেছে যে করোনা আক্রান্ত যে রোগী গুলি রয়েছে যাদের এক্ষেত্রে রোগীর উপসর্গ বা তীব্রতা কম রয়েছে তাদের উপর এই ওষুধটি সফলভাবে কাজ করছে। তাছাড়া এই ওষুধটির যেহেতু ট্যাবলেটের রূপে পাওয়া যাচ্ছে সেহেতু এটি ব্যবহার করা অতি সহজ।

এক্ষেত্রে ওষুধ নির্মাণকারী এবং সাপ্লায়ার তার কোম্পানি ভারত সরকারের সঙ্গে মিলেমিশে কাজ করবে যার ফলে এটি সহজেই সকলের কাছে পৌঁছে দেওয়া যাবে। এক্ষেত্রে এখন অনেক মানুষের এই প্রশ্ন মাথায় ঘুরপাক খেতে পারে এই ওষুধের দাম তাহলে কত হবে তা কী সাধারণ মানুষের হাতের নাগালেই হবে না তারচেয়ে বেশি? এ বিষয়ে ডেনমার্কের কর্ণধার জানিয়েছেন এক্ষেত্রে প্রতি ট্যাবলেট ওষুধের দাম পড়বে মাত্র 103 টাকা।