দাঁড়াতে হবে না আর RTO-র লম্বা লাইনে, এবার রাজ্যে চালু হচ্ছে দুয়ারে লাইসেন্স কর্মসূচি, ঘরে বসেই মিলবে গাড়ি চালানো ছাড়পত্র

পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রায় সবকিছুই দুয়ারে এনেছেন পশ্চিমবঙ্গবাসীর জন্য। আধার কার্ড থেকে শুরু করে স্বাস্থ্য সাথী কার্ড, সবকিছুই আপনি আপনার নিকটস্থ ক্যাম্পে গিয়ে করিয়ে আসতে পারেন। দুয়ারে সরকার প্রকল্পের জন্য সবথেকে বেশি লাভবান হয়েছেন পশ্চিমবঙ্গের বয়স্ক নাগরিকরা। এবার দুয়ারে ড্রাইভিং লাইসেন্স কর্মসূচি আসতে চলেছেন ঘাটাল মহকুমা প্রশাসন। লাইসেন্সবিহীন গাড়ির চালকদের ড্রাইভিং লাইসেন্স সম্পর্কে ওয়াকিবহাল করতে এবং দুর্ঘটনা এড়ানোর জন্য উদ্যোগ পদক্ষেপ নিতে চলেছেন ঘাটাল মহকুমা প্রশাসন। “দুয়ারে ড্রাইভিং লাইসেন্স” কর্মসূচি চালু করা হলেও দাসপুর ১ এবং ২ ব্লক, চন্দ্রকোনা ১ এবং ২ নম্বর ব্লকে।

ঘাটালের মহকুমা শাসক সুমন বিশ্বাসের নেওয়া এই কর্মসূচিতে ড্রাইভিং লাইসেন্স প্রদান করার জন্য প্রত্যেক ব্লকে শিবির করার উদ্যোগ নিয়েছেন ঘাটালের মোটর ভেহিকেলস অফিসের কর্মচারীরা। এই শিবিরে সহজেই প্রয়োজনীয় নথিপত্র যাচাই করে প্রত্যেক ড্রাইভারকে দেওয়া হবে ড্রাইভিং লাইসেন্সের জন্য প্রয়োজনীয় সার্টিফিকেট। এই সার্টিফিকেট থাকলে একমাস পরে পরীক্ষা দিলেই আপনি পেয়ে যাবেন ড্রাইভিং লাইসেন্স।

এই বিষয়ে ঘাটাল মহকুমা প্রশাসক সুমন বিশ্বাস জানিয়েছেন, প্রশাসনিক দপ্তরে গিয়ে আবেদন করার পর ড্রাইভিং লাইসেন্স হাতে পেতে অনেকটা সময় লেগে যায় কিন্তু এই ক্যাম্পে আপনি ড্রাইভিং লাইসেন্স নেওয়ার জন্য নথি জমা দেওয়ার পরেই সার্টিফিকেট হাতে পেয়ে যাবেন। আপনাকে ড্রাইভিং লাইসেন্স পাওয়ার জন্য বেশিদিন অপেক্ষা করতে হবে না।

প্রসঙ্গত, বর্তমানে দুর্ঘটনা আরও বেশি বেড়ে গেছে পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন জেলায়। ড্রাইভিং লাইসেন্স না থাকলেও মানুষ গাড়ি নিয়ে বেরিয়ে পড়ছে রাস্তায়। পশ্চিমবঙ্গ সরকার সর্বদা এই বিষয় প্রত্যেক মানুষকে সচেতন করার জন্য বিভিন্ন কর্মসূচির আয়োজন করেছেন। তা সত্ত্বেও যেভাবে বিপদ অহরহ বেড়েই চলেছে তা কমানোর জন্য এবার এই অভিনব উদ্যোগ নিলেন সুমন বিশ্বাস।