ফটাফট বানিয়ে ফেলুন বাচ্চার আধার কার্ড, লাগবে না কোনো বার্থ সার্টিফিকেট! কীভাবে করবেন বিস্তারিত জানতে

বর্তমানে ছোট থেকে বড় প্রায় সকলেরই আধার কার্ড সব কাজের ক্ষেত্রে প্রয়োজন। তাই মানুষের মধ্যে ছোট বা বড় সবারই আধার কার্ড করার একটা ঝোঁক লক্ষ করা যায়। কারণ আমাদের দেশের নাগরিক হিসেবে তার পরিচয় পত্র ও প্রমাণ এবং ঠিকানার জন্য আধার কার্ড জরুরী। সেই কারণেই Unique Identification Authority of India  (UIDAI) পাঁচ বছরের নিচের শিশুদের জন্য চালু করা হয়েছিল ‘বাল আধার’।এখনো পর্যন্ত পাঁচ বছরের নিচের শিশুদের আধার কার্ড বানানোর জন্য তার বাচ্চাটির বার্থ সার্টিফিকেট ও অভিভাবকের বিভিন্ন ডকুমেন্ট লাগতো।

তবে UIDAI সম্প্রতি আধার কার্ড বানানোর প্রক্রিয়া কে সহজ করে দিয়েছে। পরিবর্তিত নিয়ম অনুসারে বর্তমানে বার্থ সার্টিফিকেট ছাড়া হসপিটাল ডিসচার্জ সার্টিফিকেটের সাহায্যে আধার কার্ডের জন্য আবেদন করতে পারবেন। তবে ডিসচার্জ স্লিপ বা সার্টিফিকেট এর সাথে বাবা-মায়ের যেকোনো একজনের আধার কার্ড সহ অন্যান্য ডকুমেন্টস জমা করতে হবে। এক্ষেত্রে ‘বাল আধার কার্ড’ এর আবেদনের জন্য প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস ও যা যা করণীয় তা নিম্নে বর্ণনা করা হল।

বাল আধার কার্ডের জন্য কোন বায়োমেট্রিক ডাটার (ফিঙ্গারপ্রিন্ট বা রেটিনা স্ক্যান) প্রয়োজন নেই। আধার কার্ড টি পিতা-মাতার জনতাত্ত্বিক এবং ছবির উপর ভিত্তি করে তৈরি হবে। আইডেন্টি প্রুফ বা পরিচয় প্রমাণ হিসেবে যে সমস্ত ডকুমেন্টসগুলো প্রয়োজন- পাসপোর্ট, প্যান কার্ড, ড্রাইভিং লাইসেন্স, ভোটের কার্ড, রেশন কার্ড, আর্মস লাইসেন্স, ভারত সরকার কর্তৃক প্রদত্ত আইডি প্রুফ, একটি শিক্ষিত প্রতিষ্ঠানের ফটো আইডি প্রুফ, এন আর ই জি এ (NRAGA) জব কার্ড, ফটো ক্রেডিট কার্ড, পেনশনার ফটো কার্ড, ফ্রিডম ফাইটার ফটো কার্ড, কিষান ফটো পাসবুক, সিজি এইচএস (CGHS) ফটো কার্ড, ম্যারেজ সার্টিফিকেট, আইনগত ভাবে স্বীকৃতি নাম পরিবর্তনের সার্টিফিকেট, ইসি এইচএস(ECHS) ফটো কার্ড এবং রাজ্য সরকার /কেন্দ্র সরকার/ প্রশাসন কর্তৃক প্রদত্ত প্রতিবন্ধী মেডিকেল সার্টিফিকেট বা ইউনিক আইডি কার্ড এই ডকুমেন্টগুলি যেকোনো একটি থাকা দরকার।

Advertisements

ঠিকানা প্রমান পত্রের জন্য অভিভাবকের পাসপোর্ট, ব্যাঙ্ক পাসবুক, ব্যাংক স্টেটমেন্ট বা পাসবুক পোস্ট অফিসের অ্যাকাউন্টস স্টেটমেন্ট, ভোটার আইডি কার্ড, রেশন কার্ড, ড্রাইভিং লাইসেন্স, PSU কর্তৃক জারি করা সার্ভিস ফটো আইডি কার্ড (ঠিকানা সহ), তিন মাস পুরনো ইলেকট্রিক বিল, তিন মাস পুরনো জলের বিল, তিন মাস পুরনো গ্যাস কানেকশন এর বিল, টেলিফোন লাইনের বিল, হোম ট্যাক্সের রশিদ, ক্রেডিট কার্ড স্টেটমেন্ট, বীমা পলিসির ডকুমেন্ট, স্বাক্ষরিত লেটারহেড (ঠিকানা ও ফটো সহ), অফিস কর্তৃক স্বাক্ষরিত কোম্পানি লেটারহেড ফটো ঠিকানা সহ আর্মস লাইসেন্স,ভারত সরকার কর্তৃক প্রদত্ত আইডি প্রুফ, একটি শিক্ষিত প্রতিষ্ঠানের ফটো আইডি প্রুফ, এন আর ই জি এ (NRAGA) জব কার্ড, ফটো ক্রেডিট কার্ড, পেনশনার ফটো কার্ড, ফ্রিডম ফাইটার ফটো কার্ড, কিষান ফটো পাসবুক, সিজি এইচএস (CGHS) ফটো কার্ড, গাড়ি রেজিস্ট্রেশন সার্টিফিকেট, ডাক বিভাগ কর্তৃক ফটো, অ্যাড্রেস কার্ড এবং রাজ্য সরকার কর্তৃক জারি করা ফটো সহ জাতীয় অধিবাসীর প্রমাণ থাকা দরকার।

Advertisements

শিশুদের জন্য আধার কার্ডের আবেদন জন্য নিম্নলিখিত পন্থা অবলম্বন করুন—

১| আপনি যদি আপনার সন্তানের নামে আধার কার্ড তৈরি করতে চান তাহলে প্রথমেই UIDAI.gov.in -এই ওয়েবসাইটে চলে যান।

২| পেজ ওপেন হলে আধার কার্ড লিঙ্ক এ ক্লিক করতে হবে।

৩| এখানে আপনাকে আপনার সন্তানের প্রয়োজনীয় তথ্য নথিভুক্ত করতে হবে। এর মধ্যে আপনার সন্তানের বিবরণ ও আপনার নাম ঠিকানা ও বায়োমেট্রিক তথ্যের বিবরণ দেওয়া হবে।

৪| তারপর ঠিকানা জেলা ও রাজ্যের নাম লিখতে হবে।

৫| এরপর আধার কার্ডের জন্য রেজিস্ট্রেশন সেন্টার পছন্দ করতে হবে। এর জন্য আপনাকে অ্যাপার্মেন্ট অপশনে ক্লিক করতে হবে।

৬| এবার আপনার নিকটবর্তী আধার কার্ড সেন্টারে তারিখ ও সময় সিলেক্ট করতে হবে।

সেই নির্দিষ্ট দিনে আপনার আধার সেন্টার উপস্থিত হলেই আপনার কাজ যথা সময়ে সম্পন্ন হয়ে যাবে।