শেষ হতে চলেছে রাস্তায় বারবার খোঁড়াখুঁড়ি-র দিন! রাস্তা নির্মাণের মাস্টার প্ল্যান তৈরি কেন্দ্রের, বদলে যাবে রূপরেখা

খুব তাড়াতাড়ি কিছু দিনের মধ্যে ভারতের চিত্র তে বদল আনবে গতিশক্তি মাস্টার প্ল্যান নামক প্রকল্প (Gati Shakti Master Plan)। ভারতের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী, ১৩ ই অক্টোবর ২০২১ এর দিন এই প্রকল্পের বিষয়ে রূপরেখা দেশের সাধারণ নাগরিক এর সামনে তুলে ধরলেন। ভারতের উন্নতি কে আরও বেশি দ্রুত গতিতে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার ক্ষেত্রে , এই প্রকল্প কাজে লাগানো হচ্ছে। এই প্রকল্প এর সাহায্যে প্রধান ইনফ্রা স্ট্রাকচার এর সাথে যুক্ত কিছু প্রকল্পগুলি এর জন্য একটি সাধারণ টেন্ডার নিয়ে চিন্তা ভাবনা করা হবে।

এই বছর ২০২১, হল ভারতের ৭৫ তম স্বাধীনতা দিবসের সাল, তারপর থেকেই এই উদ্দেশ্যে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর গতি শক্তি প্রকল্প এর বিষয়ে ঘোষণা করেছিলেন কিছু মাধ্যমে। প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদী এর এই গতি শক্তি প্রকল্পের উদ্দেশ্য হলো নানা কেন্দ্রীয় এজেন্সি, বিভিন্ন রাজ্য সংস্থা, কিছু শহুরে স্থানীয় সংস্থা ও কিছু বেসরকারি সংস্থা এর দ্বারা কার্যকর ভাবে সমন্বয় ভাবে কিছু গ্রিনফিল্ড রাস্তা, ভারতীয় রেল, অপটিক্যাল ফাইবার কেবল, গ্যাস লাইন ও বিদ্যুৎ সংযোগ এর মতো কিছু ইউটিলিটি কে নিয়ে জড়িয়ে কিছু কাজকর্ম কে এক সাথে এগিয়ে ভারতের উন্নতির পথে নিয়ে যাওয়া।

নির্বাচিত প্রত্যেক ভৌগোলিক এলাকায় একটা করে নোডাল এজেন্সি কে তার দায়িত্ব দিয়ে, তার মাধ্যমে সাধারণ ভাবে একটি টেন্ডার এর সাহায্যে সমস্ত কাজ শুরু করার বিবেচনা হবে।এই গতিশক্তি মাস্টার প্ল্যান প্রকল্পের বিষয়ে এক সরকারী আধিকারিক বলেছেন, “প্রধানমন্ত্রী মোদী এই প্রকপ্লের উপর কাজ করার জন্য ভীষণই আগ্রহী। এই প্রকল্পের উদ্দেশ্য হল, কোন প্রকল্পের সমস্যার সমাধান করে তা দ্রুতগতিতে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া। সরকারের মধ্যে সাধারণ টেন্ডারিং একটি চ্যালেঞ্জিং কাজ। তবে এই কাজকে সম্পন্ন করতে পারলে, তা গেম চেঞ্জার হয়ে দাঁড়াবে। এই প্রকল্পকে অনেক দূর এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে”।

Advertisements

এই ক্ষেত্রে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এর উদ্যোগে তৈরি এই গতিশক্তি প্রকল্প কে একটি সমন্বিত চিন্তা ভাবনা হিসাবে সবার সামনে ঘোষণা করা হয়েছে। যে কারণে যাতে কোন কাজে কোনো প্রকারের সমস্যা এড়ানো সম্ভব হয় ও এই কাজের সাথে যুক্ত সমস্ত বিভাগ কে এক সাথে নিয়ে চলা হল এই প্রকল্পের প্রধান উদ্দশ্যে।

Advertisements

এই গতিশক্তি মাস্টার প্ল্যান প্রকল্পের বিষয়ে আরেক সরকারী আধিকারিক জানিয়ে রেখেছেন, “দূরত্ব কমিয়ে এনে দক্ষতার সঙ্গে কাজ দ্রুত সম্পন্ন করা এই গতিশক্তি প্রকল্পের প্রধান উদ্দেশ্যে। এলএনজি বা মিথেনলের মতো বিকল্প জ্বালানির উচ্চতর ব্যবহারের উপর জোর দিতে হবে। ২০২৪-২৫ সালের মধ্যে দেশে ১৭০০০ কিমি দীর্ঘ ট্রাঙ্ক পাইপলাইন দ্বিগুণ করে ৩৪৫০০ কিমি করার লক্ষ্যমাত্রা রয়েছে”।